ঢাকা, শনিবার, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

ই-পাসপোর্ট কী?

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০১-২২ ৫:৪৪:৩৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০১-২২ ৬:৩২:১৬ পিএম

বিশ্বের ১১৯ তম এবং দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম দেশ হিসেবে ই-পাসপোর্ট শুরু করে নতুন যুগের সূচনা করেছে বাংলাদেশ।

বুধবার ডিজিটাল ইলেকট্রনিক্স এই পাসপোর্ট সেবা উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে ই-পাসপোর্ট ধারণার সঙ্গে অনেকেই পরিচিত নন।  

বর্তমানে এমআরপি বা যন্ত্রে পাঠযোগ্য পাসপোর্টের সঙ্গে ই-পাসপোর্টের অনেক পার্থক্য রয়েছে। এমআরপিতে প্রথম দুই পাতায় যে তথ্য থাকত ই-পাসপোর্টে তা থাকবে না। সেখানে থাকবে পালিমানের তৈরি একটি কার্ড ও অ্যান্টেনা। কার্ডের ভেতরে চিপ। সেখানে সংরক্ষিত থাকবে পাসপোর্ট বাহকের সব তথ্য। ডাটাবেজে পাসপোর্টধারীর তিন ধরনের ছবি, ১০ আঙ্গুলের ছাপ ও চোখের আইরিশ থাকবে। ফলে ভ্রমণকারীর তথ্য সহজেই জানতে পারবে কর্তৃপক্ষ।

ই-পাসপোর্টের সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে এর মাধ্যমে ই-গেট ব্যবহার করে খুব দ্রুত ও সহজে ভ্রমণকারীরা যাতায়াত করতে পারবেন। ফলে বিভিন্ন বিমানবন্দরে ভিসা চেকিংয়ের জন্য লাইনে দাঁড়াতে হবে না। এর মাধ্যমেই ইমিগ্রেশন দ্রুত হয়ে যাবে।

ই-গেটের নির্দিষ্ট স্থানে পাসপোর্ট রেখে দাঁড়ালে ক্যামেরা ছবি তুলে নেবে। থাকবে ফিঙ্গারপ্রিন্ট যাচাইয়ের ব্যবস্থাও। সব ঠিক থাকলে তিনি ইমিগ্রেশন পেরিয়ে যেতে পারবেন। কোনো গরমিল থাকলে জ্বলে উঠবে লালবাতি।

ইন্টারন্যাশনাল সিভিল অ্যাভিয়েশন অরগানাইজেশন (আইসিএও) এই পিকেডি পরিচালনা করে। ফলে ইন্টারপোলসহ বিমান ও স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষ এসব তথ্য যাচাই করতে পারে। এখানে ৩৮টি নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য থাকায় এ ধরনের পাসপোর্ট জাল করা সহজ নয়।


ঢাকা/পারভেজ/সনি

     
 
রাইজিংবিডি স্পেশাল ভিডিও