ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৫ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ১১ ১৪৩১

মিডিয়াম রিস্কে সফল হয়েছি, এবার হাই রিস্কে খেলবো: শান্ত

সাইফুল ইসলাম রিয়াদ || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:৪২, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩   আপডেট: ০৮:৪৭, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
মিডিয়াম রিস্কে সফল হয়েছি, এবার হাই রিস্কে খেলবো: শান্ত

ফর্মহীনতা, ব্যাটিং অ্যাপ্রোচ কিংবা স্ট্রাইক রেট নিয়ে সমালোচকদের সমালোচনায় জর্জরিত ছিলেন নাজমুল হোসেন শান্ত। কোনোদিক না তাকিয়ে দুর্বলতা নিয়ে কাজ করে ধীরে ধীরে এই বাহাতি ব্যাটসম্যান জানান দিচ্ছেন নিজেকে। এবারের বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ৫০০ রানের বেশি করে গড়েছেন রেকর্ড। পেয়েছেন টুর্নামেন্ট সেরার পুরস্কারও।

কিভাবে শান্ত ধীরে ধীরে নিজের ব্যাটিং উন্নতি করছেন একান্ত সাক্ষাতকারে সেই গল্প শুনিয়েছেন রাইজিংবিডির প্রতিবেদক সাইফুল ইসলাম রিয়াদকে। তার নেওয়া সাক্ষাৎকারটি রাইজিংবিডির পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো।

প্রশ্ন: টুর্নামেন্টসেরা হয়েও চ্যাম্পিয়ন হতে পারেননি, নিশ্চয় কিছুটা মন খারাপ?
নাজমুল হোসেন শান্ত:
না, অবশ্যই চ্যাম্পিয়ন হতে পারলে ভালো লাগতো। কিন্তু চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য কিছুটা ভাগ্যেরও দরকার হয়। হয়তো দিনটা আমাদের ছিল না। সব মিলিয়ে পুরো টুর্নামেন্ট আমরা ভালো খেলেছি। ফাইনালের দিনটা আমাদের ছিল না।

প্রশ্ন: পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে দ্রুত মানিয়ে নেওয়ার কথা। তবুও… 
নাজমুল হোসেন শান্ত:
না আসলে এরকমই। ক্রিকেটে এরকম হবে। ভবিষ্যতে আবারও হবে। একদিন জিতবো একদিন হারবো। আসলে এগুলো নিয়ে পড়ে থাকলে হবে না। পরবর্তীতে এরকম সুযোগ আসলে কিভাবে আমরা জিতবো এটা নিয়ে চিন্তা করাটাই এখন বেটার।

প্রশ্ন: ফাইনালে লিটনের ক্যাচ নিয়ে ক্ষিপ্ত অবস্থায় নাচ দিয়েছিলেন। মনে হয়েছে উত্তেজিত হয়ে পড়েছিলেন…
নাজমুল হোসেন শান্ত:
না তেমন কিছু না। ভালো ক্যাচ ধরেছি নিজের কাছে ভালো লাগছে।

প্রশ্ন: বিশ্বকাপ থেকে টানা ফর্মে। এবার বিপিএলে নিজেকে ছাড়িয়ে গেলেন। ব্যাট হাতে কি সেরা সময়?
নাজমুল হোসেন শান্ত:
 ভালো হচ্ছে। অবশ্যই ভালো হচ্ছে। কিন্তু এটা তখনি বুঝতে পারবো যখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ধারবাহিক খেলবো। সামনে যখন আরও সুযোগ আসবে যদি আরও রান করতে পারি তখনি বুঝতে পারবো। এই মূহুর্তে ঘরোয়া একটা টুর্নামেন্ট ভালো হয়েছে, বিশ্বকাপ একটা ভালো হয়েছে, সামনে যে আন্তর্জাতিক সিরিজগুলো আছে ওখানে যদি সুযোগ পাই, যদি পারফর্ম করতে পারি, তখন নিজের কাছে আরও ভালো লাগবে।

প্রশ্ন: এই যে মাঠে নামলেই রান পাচ্ছেন। সাফল্যের পেছনের গল্প কি? 
নাজমুল হোসেন শান্ত:
শুরু থেকে যেটা বলে আসছি, চেষ্টা করছি স্কিলটা উন্নতি করার জন্য। হচ্ছে না, তার মানে কোনো না কোনো জায়গায় কমতি আছে। ঐ জায়গাগুলো নিয়ে এখন ওয়ার্কআউট করছি। এখনো অনেক কাজ করা বাকি। উন্নতির এখনো জায়গা আছে, ঐ জায়গাতেই আমি ফোকাস করেছি, চেষ্টা করছি। ঐ জায়গাগুলো ধীরে ধীরে উন্নতি হচ্ছে বলে আমি ফল পাচ্ছি ধীরে ধীরে।

প্রশ্ন: এবার বিপিএলে আপনার স্ট্রাইকরেট ১১৬.৭৪, আন্তর্জাতিকে ১১৯.২০। টি-টোয়েন্টিতে একজন ওপেনারের জন্য এটা স্ট্যান্ডার্ড কি না?
নাজমুল হোসেন শান্ত:
এবার আমার দলতো ফাইনাল খেলেছে। তার মানে আমার ইনিংসগুলো দলের কাজে লেগেছে। ম্যানেজম্যান্টও আমার পারফরম্যান্সে খুশি, তারা আমার স্ট্রাইকরেট নিয়ে চিন্তিত না। যদি ব্যক্তিগতভাবে বলি, বিশ্ব ক্রিকেটে আরও ভালো স্ট্রাইকরেট নিয়ে খেলতে হবে। সামনে যদি সুযোগ আসে টিমের ডিমান্ড অনুযায়ী স্ট্রাইকরেট বাড়িয়ে খেলার চেষ্টা করবো। তবে আমার টার্গেট থাকবে হাই রিস্ক অর্থ্যাৎ স্ট্রাইকরেট বাড়িয়ে খেলার জন্য।

প্রশ্ন: আপনার রোলটা আসলে পরিস্কার, এক প্রান্তে ধরে বুঝে শুনে খেলা। এটাতে আপনি কম্ফোর্টেবল? নাকি আক্রমণাত্বকরূপে যেতে পারলে ব্যাটিং আরও ভালো হবে?
নাজমুল হোসেন শান্ত:
আসলে টিম যেভাবে চায় ওভাবে খেলাটা আমার কাছে কম্ফোর্টেবল। এখানে বিষয়টা হচ্ছে টিম আমার কাছে কোন জিনিসটা চায়। আমার চাওয়াটা গুরুত্বপূর্ণ না। আমি কোনটাতে কম্ফোর্টেবল সেটা বিষয় না। টিম যেটা চায় সেটাই। টিম যে জিনিসটা আমার কাছে চায় ওই জিনিসটা আমি দেয়ার চেষ্টা করি। টিমের যাতে উপকার হয় সেভাবে খেলার চেষ্টা করি।

প্রশ্ন: সমালোচনা আপনি গায়ে লাগান না, সেটি আপনার হাতেও না। তবু বিষয়টা কিভাবে হ্যান্ডেল করছেন?
নাজমুল হোসেন শান্ত:
এটা নিয়ে ডিটেইলসে বলার কিছু নাই। কোনো মন্তব্য নেই। আমি আমার খেলা নিয়ে ফোকাসড ছিলাম। কোন জায়গায় কমতি আছে সেগুলা নিয়ে কাজ করার চেষ্টা করছি। বাইরের মানুষতো আমি নিয়ন্ত্রণ করতে পারবো না। তাই এটা নিয়ে বেশি ফোকাসড ছিলাম না। আমি আমাকে নিয়ে ব্যস্ত ছিলাম।

প্রশ্ন: এবারের বিপিএল যদি ধরি তাহলে কোথায় উন্নতি হয়েছে আপনার?
নাজমুল হোসেন শান্ত:
উন্নতি বলতে টি-টোয়েন্টিতে এতদিন লো-রিস্ক ক্রিকেট খেলতে পেরেছিলাম, এখন মিডিয়াম-রিস্কে খেলতে পারছি, রান করছি। যেটা আমার কাছে একটু ভিন্ন মনে হয়েছে। টি-টোয়েন্টিতে যেখানে হাই রিস্ক ক্রিকেট খেলে। মিডিয়াম রিস্কে ক্রিকেট খেলে সফল হয়েছি, এটা একটা ভালো দিক। এটা আমি বোঝাতে চেয়েছি ছয় কম মেরে চার মেরে খেলা। আমি নিচে নিচে বেশি খেলেছি। এই দিকটা আমার কাছে ভালো মনে হচ্ছে।

প্রশ্ন: সামনে ঝুঁকি নিয়ে খেলবেন বলে মনস্থির করেছেন কি না?
নাজমুল হোসেন শান্ত:
দেখেন আমি মূলত দলের পরিস্থিতি অনুযায়ী খেলে থাকি। বিপিএলে শেষ কয়েকটা ম্যাচে স্ট্রাইকরেট ১৩০ এর মতো ছিল। ওইদিন এরকম খেলার প্রয়োজন ছিল তাই এরকম খেলছি। যেদিন ১০০ স্ট্রাইকরেটে খেলার প্রয়োজন সেদিন সেভাবে খেলছি। যখন যেরকম খেলার দরকার ওইরকম খেলার অ্যাবিলিটি আমার আছে। কিন্তু এটা আরও উন্নতি করার জায়গা আছে। সামনে এটাই চেষ্টা করবো টিমের প্রয়োজন অনুযায়ী।

প্রশ্ন: মাঝে বলেছিলেন দেশের বিরুদ্ধে খেলেন। এটা বলার পর অনেকের চোখ-কান খুলেছে। সিলেটের এক সমর্থক ক্ষমা চাওয়ার কথা বলেছিল। আপনি ব্যাট হাতে জবাব দিয়েছেন বলেই হয়েছে। এই যে কঠিন সময়ের পর এখন ভালো সময়, আনন্দ কতটা?
নাজমুল হোসেন শান্ত:
অবশ্যই এটাতো অনেক ভালো লাগে। এখন সবাই সাপোর্ট করছে। জিনিসটা হলো একজন ক্রিকেটারকে খারাপ সময়ে সাপোর্ট করা উচিৎ। এখন যেরকম সবাই সাপোর্ট করে সবসময় করা উচিৎ। আর যে সমর্থকের কথা বললেন, দেখি নাই আমি। আপনার কাছেই প্রথম শুনলাম। কিছু বলব না (হাসি)।

প্রশ্ন: বিদেশি ক্রিকেটারদের থেকে ড্রেসিংরুম শেয়ার করেছেন, নিশ্চয় নতুন কিছু ভাবনার মধ্যে এসেছে?
নাজমুল হোসেন শান্ত:
ওরকম কিছু এই মৌসুমে মনে হয়নি। আমাদের যে বিদেশি ক্রিকেটার ছিল তাদের থেকে এবার ভিন্ন কিছু শিখেছি বলে মনে হচ্ছে না। যারা ছিল সবাই পরিচিতই ছিল।

ঢাকা/আমিনুল

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়