ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৭ আষাঢ় ১৪২৬, ২০ জুন ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

‘শুধু গ্রেপ্তার করে জেলে ঢুকানো দুদকের কাজ নয়’

এম এ রহমান : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৫-১৯ ৯:৩১:০০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৫-২৩ ৯:৪৯:৩৬ এএম
Walton AC 10% Discount

নিজস্ব প্রতিবেদক : শুধু মানুষকে গ্রেপ্তার করে জেলে ঢুকানো দুর্নীতি দমন কমিশনের কাজ নয় বরং দুর্নীতি ঘটার আগেই সতর্ক করা অন্যতম কাজ বলে মনে করেন সংস্থাটির চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ।

রোববার চাঁদপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে দুর্নীতি প্রতিরোধে তাদের ভূমিকা শীর্ষক এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। দুদকের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়।

ইকবাল মাহমুদ বলেন, শুধু উন্নয়ন করলে হবে না টেকসই উন্নয়ন করতে হবে। শতভাগ শিশুকে প্রাথমিক শিক্ষায় এনরোলমেন্ট যেমন উন্নয়ন তেমনি ঝরে পড়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা শূন্যে নামিয়ে আনা টেকসই উন্নয়ন।

তিনি বলেন, শুধু মানুষকে গ্রেফতার করে জেলে ঢুকানো দুদকের কাজ নয়, বরং দুর্নীতি ঘটার আগেই সতর্ক করা দুদকের অন্যতম কাজ। আমার কর্মকালের প্রথম বছরেই দুর্নীতির মামলার অনেক আসামিকে গ্রেফতার করা হয়। আমরা একটা বার্তা দিতে চেয়েছিলাম যে, কেউই আইনের ঊর্ধ্বে নয়। সে বার্তা আমরা দিয়েছি এবং এটা প্রমান হয়েছে আইনের ঊর্ধ্বে কেউ নয়।

চাঁদপুর জেলায় বিগত ২০১৭ ও ২০১৮ সালে প্রাপ্ত অভিযোগের পরিসংখ্যান তুলে ধরে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, অন্যান্য জেলার তুলনায় চাঁদপুর জেলায় দুর্নীতির অভিযোগ তুলনামূলকভাবে কম। আগামী ১ বছরে চাঁদপুরকে দুর্নীতিমুক্ত অথবা সবচেয়ে কম দুর্নীতিগ্রস্ত জেলা হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা যায় কি না? এজন্য জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে ‘দুর্নীতিমুক্ত জেলা বাস্তবায়ন  কমিটি’ গঠন করা যেতে পারে।

দুদক চেয়ারম্যান বলেন, দেশের দুর্নীতির চেয়েও শিক্ষা ব্যবস্থা বড় সমস্যা। আমাদেরকে নৈতিক শিক্ষায় সক্ষম মানবসম্পদ সৃষ্টি করতে হবে। এজন্য প্রয়োজন মানসম্মত শিক্ষা।

তিনি জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা নিজেরা দুর্নীতিমুক্ত থাকলে জেলা পর্যায়ে দুর্নীতি করা অত্যন্ত কঠিন। স্ব স্ব কর্মপ্রক্রিয়া সংস্কার করে সুনির্দিষ্ট টাইম লাইন বেধে দিয়ে সরকারি সেবা প্রদান করলে দুর্নীতি কমে আসবে এবং জন হয়রানি লাঘব পাবে। এখন যেভাবে প্রশাসন চলছে এটাকে দোকান চালানোর মতো অবহিত করে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, প্রশাসনকেই জনগণের কাছে গিয়ে সেবা দিতে হবে। এটাই আধুনিক প্রশাসনিক ব্যবস্থা।

পুলিশের বিদ্যমান সেবা প্রক্রিয়াকে জনবান্ধব করার লক্ষ্যে ইকবাল মাহমুদ বলেন, পুলিশ শুধু আসামি গ্রেফতার করতে নাগরিকের বাড়িতে যাবে তা নয় বরং তাদের বাড়িতে যাবে তাদের কুশলাদী জানতে। তাদের সুবিধা-অসুবিধা জানার জন্য। যদি কোন অসুবিধা থাকে তা হলে এর সমাধান করবে। এমন পুলিশ হলে তাদের প্রতি মানুষের ভয় থাকবে না। পুলিশ হবে জনবান্ধব। মানুষ পুলিশকে তখন ভয় পাবে না।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৯ মে ২০১৯/এম এ রহমান/সাইফ

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge