Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ১৮ এপ্রিল ২০২১ ||  বৈশাখ ৫ ১৪২৮ ||  ০৫ রমজান ১৪৪২

ডান চোখে ব্লক, বাম চোখ অপারেশন করলেন ডাক্তার

মো. আবু কাওছার আহমেদ || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১০:১১, ৮ এপ্রিল ২০২১   আপডেট: ১০:২৩, ৮ এপ্রিল ২০২১
ডান চোখে ব্লক, বাম চোখ অপারেশন করলেন ডাক্তার

সমস্যা ছিল ডান চোখে, কিন্তু ডাক্তার অপারেশন করলেন বাম চোখ। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর চক্ষু হাসপাতালে। ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে পরবর্তীতে বিনা পয়সায় ডান চোখটিরও অপারেশন করে দেওয়া হয়েছে।

ভুল চিকিৎসার দায় এড়াতে টেস্ট রিপোর্টদাতা টেকনিশিয়ানের ভুল বলে দাবি করছেন চিকিৎসক। ঘটনাটি জানাজানি হলেও এ ব্যাপারে কোন পদক্ষেপ নেয়নি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

ভুক্তভোগীর অভিযোগে জানা যায়, গোপালপুর উপজেলার ঝাওয়াইল ইউনিয়নের হরিষা গ্রামের সুফিয়া বেগম (৬৫) গত মার্চে ভূঞাপুর চক্ষু হাসপাতালে ডাক্তার দেখান । এ সময় টেস্টের মাধ্যমে তার ডান চোখে ব্লক নির্ণয় করা হয়। এ কারণে চিকিৎসক তার চোখ অপারেশনের সিদ্ধান্ত দেন। নির্ধারিত তারিখ অনুসারে ৬ মার্চ তার অপারেশন হয়। তবে ওইদিন ডাক্তার ডান চোখের পরিবর্তে তার বাম চোখে অপারেশন করেন। রোগী আপত্তি জানালেও তা শোনেননি হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. মো. ফারুক হাসান।

পরে স্বজনরা প্রতিবাদ করলে ওই চিকিৎসক জানান- অপারেশনটি ভুল নয়, হাসপাতালের ল্যাব টেস্টের রিপোর্টে ভুলবশত বাম চোখে ব্লক দেখানো হয়েছে। এ কারণেই বাম চোখের অপারেশন করা হয়েছে। এতে রোগীর স্বজনরা আরো উত্তেজিত হয়ে পড়লে, বিষয়টি ধামাচাপা দিতে পরবর্তীতে ১৬ মার্চ বিনা পয়সায় ডানের চোখের অপারেশনটি করে দেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

সুফিয়া বেগম বলেন, আমার ডান চোখে সমস্যা ছিল। কিন্তু ডাক্তার আমার বাম চোখের অপারেশন করেছেন। আমি বললেও ডাক্তার শোনেননি।

রোগীর ছেলে জজ মিয়া বলেন, আমি আমার মাকে নিয়ে ৬ মার্চ ভূঞাপুর চক্ষু হাসপাতালে যাই। ডাক্তার পরীক্ষা করে বলেন- ডান চোখে ব্লক আছে, অপারেশন করতে হবে। অপারেশন করার অনুমতি দেই আমি। অপারেশন শেষে দেখি বাম চোখ অপারেশন করা হয়েছে। বিষয়টি ডাক্তারকে জানালে তিনি বলেন, পরীক্ষায় আপনার মায়ের বাম চোখে ব্লক দেখানো হয়েছে। এটি কেন হলো, জিজ্ঞাসা করলেও কোন উত্তর দেননি তিনি। ১০দিন পর আবার হাসপাতালে চোখের সেলাই কাটতে যাই। ওইদিন ডাক্তার আবার আমার মায়ের ডান চোখের অপারেশন করতে হবে বলে জানান। এ সময় আপনারা ভুল অপারেশন করেন বলে আপত্তি জানাই। এরপরও ডাক্তার বিনা পয়সায় মায়ের ডান চোখের অপারেশনটি করে দেন। 

হাসপাতালের ল্যাব টেকনিশিয়ান সাদিয়া বলেন, টেস্ট রিপোর্টে ডান চোখেই ব্লক দেখানো হয়েছে। এরপরও ডাক্তার বাম চোখ অপারেশন করেছেন। এখন তার ভুল ধামাচাপা দিতে আমার ওপর দোষ চাপাচ্ছেন।

ভূঞাপুর চক্ষু হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মো. ফারুক হাসান বলেন, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ রোগীর স্বজনদের সাথে আলোচনা করে বিষয়টি মিমাংসা করেছেন। পরবর্তিতে ১৬ মার্চ আমার তত্ত্বাবধানেই ওই রোগীর ডান চোখের অপারেশনটি বিনা পয়সায় করে দেওয়া হয়েছে।

ভূঞাপুর চক্ষু হাসপাতাল পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান বলেন, ভুলবশত ডান চোখের পরিবর্তে বাম চোখ অপারেশন করা হয়েছিল। পরে পরিবারের সঙ্গে কথা বলে রোগীর ডান চোখটির অপারেশন করে বিষয়টির মিমাংসা করা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে টাঙ্গাইলের সিভিল সার্জন ডা. আবুল ফজল মো. শাহাবুদ্দিন খান বলেন, অতিদ্রুতই জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের তত্ত্বাবধানে ঘটনাটির তদন্তে কমিটি গঠন করা হবে। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের পরই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

টাঙ্গাইল/টিপু

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়