Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ২১ ১৪২৮ ||  ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

বিদায়বেলাতেও ছাত্রদের কথা বললেন ঢাকা কলেজ অধ্যক্ষ

ক্যাম্পাস ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৪৩, ৫ ডিসেম্বর ২০২০   আপডেট: ১০:৪৪, ৬ ডিসেম্বর ২০২০
বিদায়বেলাতেও ছাত্রদের কথা বললেন ঢাকা কলেজ অধ্যক্ষ

‘ঢাকা কলেজে আজকে আমার শেষদিন। এমন একটি সময়ে আমি ঢাকা কলেজ থেকে বিদায় নিচ্ছি, যখন আমি আমার প্রিয় ছাত্রদের দেখতে পাচ্ছি না। এসময় পুরো ক্যাম্পাস গমগম করার কথা। কিন্তু এখন চারদিকে নীরবতা। সুনসান ক্যাম্পাসে, নীরবে-নিভৃতে আমাকে বিদায় নিতে হচ্ছে, এর চেয়ে কষ্টের, এর চেয়ে দুঃখের আমার কাছে আর কিছু নেই।’ করোনাকালে বিদায়ের ডাক আসা ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক নেহাল আহমেদ এভাবেই বলছিলেন তাঁর বিদায়ের কষ্টগাঁথা। 

বিদায়ী ভাষণে অধ্যক্ষ বলেন, ‘আমরা সরকারি চাকরি করি। চাকরির সুবাদে আমাকে অন্য একটি অফিসে যেতে হচ্ছে। কিন্তু ঢাকা কলেজ আমার কাছে শুধু একটি চাকরি ছিল না। ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী, শিক্ষক, কর্মচারী সবার সাথে মিলেমিশে এখানে একটা আবেগের সম্পর্ক, একটা প্রেমের সম্পর্ক। আমার মনে হচ্ছে আমি আমার এই প্রেমের মঞ্চ ছেড়ে একটা নির্জলা মরুভূমিতে যাচ্ছি। সেখানে হয়তো আমি চাকরি করবো, দায়িত্ব পালন করবো কিন্তু আমার এই শিক্ষার্থীদের আর পাবো না।’

তিনি বলেন, ‘আমি এমন এক অবস্থায় চলে যাচ্ছি যখন আমি আমার পরিচিত ছাত্রদের মুখগুলো দেখতে পারছি না। ক্লাসগুলো ফাঁকা। এমনকি একাদশ শ্রেণিতে যে নতুন শিক্ষার্থীরা ভর্তি হয়েছে তাদের সাথেও আমার দেখা হলো না।’

অধ্যক্ষ নেহাল আহমেদের এই ভাষণ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আসার পরপরই সেখানে আবেগাপ্লুত হয়ে মন্তব্য করতে থাকেন কলেজটির শিক্ষার্থীরা। কলেজের প্রাক্তন ছাত্র বাহার কামরুল লিখেন, ‘স্যারের আবেগঘন বক্তব্য খুবই স্মৃতিচারিত করছে। আমরা সাবেক ছাত্র হিসেবে আশা করি, আগামী যে অধ্যক্ষ স্যারই আসুক না কেন, স্যারের মতো করে পরিচালিত করে ঢাকা কলেজের ঐতিহ্য ধরে রাখতে কাজ করবেন। ধন্যবাদ স্যারকে।’

রাইসুল নামে একজন লিখেন, ‘স্যারের কথাগুলো শুনছিলাম আর চোখ দিয়ে অজান্তেই পানি বেরিয়ে আসলো।’

বিদায়ের ভাষণেও অধ্যাপক নেহাল আহমেদ শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন অসুবিধার কথা স্মরণ করে জানান, এই করোনাকালীন সময়ের মাঝে ঢাকা কলেজের দৃশ্যপট অনেকখানি পালটে গেছে। শিক্ষার্থীরা এসে অনেক নতুন অবকাঠামো দেখতে পাবে। তাদের খেলার মাঠ, রাস্তা সবই সুন্দর করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

করোনার সময়ে শিক্ষার্থীদের কাছে না থাকতে পেরে, ক্লাসের মঞ্চে দাঁড়িয়ে মাইকে লেকচার না দিতে পেরে শিক্ষকেরা খুব বেশি আনন্দে নেই বলে উল্লেখ করেন বিদায়ী অধ্যক্ষ। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের জন্যই এতবড় প্রতিষ্ঠান, শিক্ষক, কর্মচারী এতসব আয়োজন। তারা না থাকলে সবকিছুই ম্লান লাগে।

ঢাকা কলেজের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে দীর্ঘ প্রায় ১৮০ বছরের ঐতিহ্য-ইতিহাসের কথা স্মরণ করে ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ বলেন, ‘সেই ব্রিটিশ শাসনামল থেকে পূর্ব বাংলায় শিক্ষার বিস্তারে বাতিঘর হিসেবে ঢাকা কলেজ অবদান রেখে আসছে। যার পেছনের কারিগর এই কলেজের শিক্ষার্থীরা। তারাই জ্ঞানে-কর্মে এই কলেজের সুনাম বাড়িয়েছে।’

বিদায়বেলায় তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘তোমরাই এই কলেজের প্রাণ। তোমরাই কলেজের সুনাম সারাবিশ্বে ছড়িয়ে দেবে। তোমরা যে কাজই করবে সবার আগে বাবা-মায়ের প্রতি তোমাদের দায়বদ্ধতা, কর্তব্যের কথা চিন্তা করবে। দেশের সাধারণ মানুষের অর্থে তোমরা এখানে পড়ছো। তাই দেশের প্রতি দায়িত্বের কথাও সবসময় মাথায় রাখবে।’

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ৫মে অধ্যাপক নেহাল আহমেদ ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব লাভ করেন। এর আগে, তিনি ঢাকা কলেজের উপাধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে তাকে ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বোর্ডের নতুন চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

ঢাকা/নোবেল

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়