ঢাকা, রবিবার, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৭ নভেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

সমাবেশ পণ্ড হওয়ায় শিক্ষকদের বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১০-২৩ ১২:১৭:৪৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১০-২৩ ১:৫৬:০০ পিএম

গ্রেড পরিবর্তনের দাবিতে আন্দোলনরত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা পুলিশের বাধায় মহাসমাবেশ করতে পারেননি।

বুধবার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এ মহাসমাবেশের ডাক দিয়েছিলেন তারা। পুলিশের বাধায় এখন শহীদ মিনার সংলগ্ন রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন শিক্ষকরা।

সকাল থেকে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে সমাবেশে যোগ দিতে শহীদ মিনারে জড়ো হতে থাকেন শিক্ষকরা।

কিন্তু আগে থেকেই কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণ ঘিরে রাখে পুলিশ। বাধা পেয়ে শিক্ষকরা সড়কে অবস্থান নেন। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পুলিশ তাদের লাঠিচার্জ করে সরিয়ে দেয়। এ সময় কয়েকজন শিক্ষক আহত হন।

বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক মোহাম্মদ ছামছুদ্দীন মাসুদ রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে আমাদের প্রায় ১০ হাজার শিক্ষক এ আন্দোলনে এসেছেন। বুধবার ভোর ৫টায় আমরা শহীদ মিনার এলাকায় আসি। কিন্তু পুলিশের বাধার কারণে আমরা প্রবেশ করতে পারিনি।’

‘আমরা ১০টায় সমাবেশ শুরু করতে চাইলেও তার আগে আমাদের সমাবেশ শেষ করে দেয় পুলিশ। তাই শিক্ষকরা ক্ষোভ প্রকাশ করছেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের শিক্ষকরা তাদের আবেগ ও কষ্টের কথাগুলো শেয়ার করতে পারেনি। পুলিশ আমাদের কয়েকজন শিক্ষকের গায়ে হাত তুলেছে। লাঠিচার্জ করেছে। যেটি খুবই দুঃখজনক ও হতাশাজনক।’

এদিকে দাবি আদায়ে আগামী ১৩ নভেম্বর পর্যন্ত সরকারকে সময়সীমা বেধে দিয়েছে শিক্ষকরা। অন্যথায় ক্লাস পরীক্ষাসহ সমাপনী পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দেন তারা।

মোহাম্মদ ছামছুদ্দীন মাসুদ বলেন, প্রধান শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড ও সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেড দিতে আমরা দীর্ঘদিন থেকে দাবি করে আসছি। কিন্তু প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে প্রধানদের ১০ম গ্রেড দেয়া হলেও সহকারীদের ১২তম গ্রেড দিতে বলা হয়েছে। এটিও সরকারের পক্ষ থেকে ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে। এসব বিষয়ের প্রতিবাদ জানাতে আমার বাধ্য হয়ে আন্দোলনে নেমেছি।

তিনি বলেন, ‘নিজেদের দাবি আদায়ে শিক্ষকরা কোন হুমকি ভয় পায় না। এ আন্দোলনে প্রায় পৌনে তিন লাখ শিক্ষক যুক্ত আছেন।’

 

ঢাকা/ইয়ামিন/জেনিস

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন