ঢাকা     শনিবার   ২২ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ৮ ১৪৩১

ভারতের একজন সাংসদ যে যে সুবিধা পান

সাতসতেরো ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৪:৪৪, ৮ জুন ২০২৪   আপডেট: ১৫:০৪, ৮ জুন ২০২৪
ভারতের একজন সাংসদ যে যে সুবিধা পান

ছবি: প্রতীকী

ভারতে ১৮তম লোকসভা নির্বাচনে তৃতীয়বারের মতো সরকার গঠন করতে যাচ্ছে বিজেপির নেতৃত্বাধীন জোট এনএডিএর শরিক দলগুলো। এই নির্বাচনে ৫৪৩টি আসনের মধ্যে ২৪০ আসনে জয় পেয়েছে ক্ষমতাসীন দল বিজেপি। এদিকে প্রধান বিরোধীদল কংগ্রেস পেয়েছে ৯৯টি আসন। জোটগতভাবে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট পেয়েছে ২৯৩টি আসন। অন্যদিকে ইন্ডিয়া জোট পেয়েছে ২৩২ আসন। অনেকের জানার আগ্রহ আছে যে, ভারতেও একজন সাংসদ কেমন সুযোগ, সুবিধা পেয়ে থাকেন।

এ বিষয়ে স্থানীয় গণমাধ্যমগুলোতে বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ হয়েছে। তথ্য মতে, ভারতের একজন সাংসদের মূল বেতন ১ লাখ রুপি।  যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ১ লাখ ৪১ হাজার টাকা।  ভারতের একজন সাংসদ মূল বেতনের সঙ্গে একাধিক ভাতা পান। প্রত্যেকে তার সংসদীয় এলাকায় পরিষেবা দেওয়ার জন্য প্রতি মাসে ৭০ হাজার রুপি ভাতা পান। যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ১ লাখ। 

একজন সাংসদ নিজস্ব দপ্তর চালানোর জন্য মাসে ৬০ হাজার রুপি ভাতা পেয়ে থাকেন। যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৮৫ হাজার টাকা। সংসদের অধিবেশনে বা সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে যোগ দেওয়ার জন্য সাংসদেরা দিনে ২০০০ রুপি করে ভাতা পান। যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৩ হাজার টাকা। ভারতের একজন সাংসদ দেশের ভেতর বছরে ৩৪ বার বিনামূল্যে বিমান সফর করতে পারেন। এই ভ্রমণে তার সঙ্গে থাকতে পারে তার নিকটাত্মীয়েরাও। ভারতের একজন সংসদ পুরো বছর বিনামূল্যে ট্রেনে যাতায়াত করতে পারেন। 

একজন সাংসদ নিজের লোকসভা কেন্দ্রে গাড়ি নিয়ে ঘুরলে জ্বালানি তেলের খরচ পেয়ে থাকেন। সংসদে উপস্থিত থাকার জন্য ভারতের প্রত্যেক সাংসদকে দিল্লিতে থাকতে হয়।  এজন্য প্রত্যেক সাংসদ দিল্লির অভিজাত এলাকায় পাঁচ বছরের জন্য বাংলো বাড়ি পেয়ে থাকেন। তবে সাংসদের বাড়ির আকার, অবস্থান নির্ভর করে তার নির্বাচিত হওয়ার সংখ্যার ওপর। প্রথমবার নির্বাচিত সাংসদের বাংলো বাড়ি তুলনামূলক ছোট হয়।  দিল্লির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় বাংলো বাড়ি পেয়ে থাকেন একাধিকবার নির্বাচিত সাংসদেরা। যারা বাংলো বাড়িতে থাকতে চান না তারা বাড়িভাড়া বাবদ মাসে ২ লাখ রুপি পেয়ে থাকেন। যা বাংলাদেশি  টাকায় প্রায় দুই লাখ আশি হাজার টাকার সমান। 

একজন সাংসদ এবং তার নিকটাত্মীয়রা সরকারি স্বাস্থ্য প্রকল্পের আওতায় বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা পেয়ে থাকেন। ফোন খরচ বাবদ একজন সাংসদকে দেড় লাখ রুপি দেওয়া হয়। তা ছাড়াও একজন সাংসদ তার বাড়ি এবং দপ্তরে বিনামূল্যে উচ্চ গতির ইন্টারনেট পরিষেবা পেয়ে থাকেন। সাংসদেরা বছরে ৫০ হাজার ইউনিট পর্যন্ত বিনামূল্যে বিদ্যুৎ পরিষেবা পান। এছাড়াও বছরে বিনামূল্যে চার হাজার কিলোলিটার পানি পেয়ে থাকেন।

সাবেক সাংসদেরা প্রতি মাসে ২৫ হাজার রুপি পেনশন হিসেবে পেয়ে থাকেন। যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৩৬ হাজার টাকা। 

/লিপি

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়