ঢাকা     বুধবার   ২৫ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৯ ||  ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩

দুই মডেলের সিপিইউ লিকুইড কুলার বাজারে আনলো ওয়ালটন

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:১১, ১২ মে ২০২২   আপডেট: ১৭:১২, ১২ মে ২০২২
দুই মডেলের সিপিইউ লিকুইড কুলার বাজারে আনলো ওয়ালটন

দেশের প্রযুক্তিপণ্যের বাজারে একের পর এক চমক নিয়ে আসছে ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। বাংলাদেশে নিজস্ব কারখানায় বিভিন্ন ডিজিটাল ডিভাইস ও অ্যাকসেসরিজ তৈরি এবং বাজারজাত করছে ওয়ালটন।

এরই ধারাবাহিকতায় এবার দুই মডেলের সিপিইউ লিকুইড কুলার বাজারে ছেড়েছে ওয়ালটন। ডেস্কটপ কম্পিউটারের এই লিকুইড কুলারগুলো যেমন দৃষ্টিনন্দন ডিজাইনে সমৃদ্ধ, তেমনি অত্যাধুনিক সব ফিচারে ভরপুর। একাধিক ফ্যানসহ কপার বেইসে প্লাস্টিক বডিতে তৈরি এসব কুলারে ব্যবহৃত হয়েছে অ্যালুমিনিয়াম রেডিয়েটর। যা নিশ্চিত করছে সর্বোচ্চ কুলিং পারফরম্যান্স।

ওয়ালটন কম্পিউটার বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, তাদের পাওয়ার ডিভাইস ব্র্যান্ড ‘আর্ক’’ এর প্যাকেজিং-এ বাজারে আসা লিকুইড কুলার দুটির মডেল ডব্লিউএলসি১২০বি (WLC120B) এবং ডব্লিউএলসি২৪০বি  (WLC240B)। দেশের যেকোনো ওয়ালটন প্লাজা, ডিস্ট্রিবিউটর শোরুম, আইটি ডিলার, কম্পিউটার ডিলার শোরুম এবং ই-প্লাজা থেকে লিকুইড কুলার কেনা যাচ্ছে। দাম যথাক্রমে ৫ হাজার ৮৫০ টাকা এবং ৮ হাজার ৫৫০ টাকা। 

ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ডিএমডি এবং কম্পিউটার বিভাগের ইনচার্জ প্রকৌশলী লিয়াকত আলী বলেন, ক্রেতাদের চাহিদা ও প্রয়োজনীয়তা বিবেচনায় সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ও ফিচারের সাশ্রয়ী মূল্যের ডিজিটাল ডিভাইস উৎপাদন ও বাজারজাত করে আসছে ওয়ালটন। কম্পিউটারের সিপিউ বা সেন্ট্রাল প্রসেসিং ইউনিট সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ। সাধারণ এয়ার কুলার সিপিউ ঠান্ডা রাখতে কম কার্যকরী। তাই মানুষ এখন লিকুইড কুলার ব্যবহারের দিকে ঝুঁকছে। গ্রাহকদের চাহিদার প্রেক্ষিতেই লিকুইড কুলার বাজারে ছাড়া হয়েছে। এর ফলে কম্পিউটার ব্যবহারে ক্রেতার ভোগান্তি হ্রাস পাবে। সিপিইউ কুলিং সিস্টেম বা শীতল রাখার পদ্ধতি যত উন্নত হচ্ছে, কম্পিউটার তত শক্তিশালী হচ্ছে। ওয়ালটনের লিকুইড কুলার ব্যবহারে দীর্ঘ সময় সিপিইউ চালু থাকলেও অতিরিক্ত গরম হবে না। আরামদায়কভাবে কম্পিউটার ব্যবহার করা যাবে।

ওয়ালটন কম্পিউটার ও আইটি এক্সেসসরিজের প্রধান বাণিজ্যিক কর্মকর্তা তৌহিদুর রহমান রাদ জানান, লিকুইড কুলিং সিস্টেম কম্পিউটারের প্রসেসরের জন্য রেডিয়েটর হিসেবে কাজ করে। প্রসেসর থেকে তাপ শোষণ করে পিসির বাইরে পাঠিয়ে দিয়ে প্রসেসরকে ঠান্ডা রাখার এটি একটি দারুণ কার্যকর যন্ত্রাংশ। এতে পিসির কার্যক্ষমতা যেমন বাড়ে, তেমনই দীর্ঘদিন সার্ভিস দেয়। 

তিনি জানান, ওয়ালটন লিকুইড কুলারে ব্যবহৃত হয়েছে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ডিজিটাল লাইটিং সিরিজের রেডিয়েটর এবং কুলিং ফ্যান। যা নিশ্চিত করে সর্বোচ্চ এয়ারফ্লো। এতে ডেস্কটপ পিসির কার্যক্ষমতা অক্ষুন্ন থাকে। এর অ্যারো-ডায়নামিক ফ্যানের নয়েজ লেভেল খুবই কম। শতভাগ নিচ্ছিদ্র ওয়ালটন লিকুইড কুলার সহজেই ইনস্টল করা যায়।

ওয়ালটনের ‘আর্ক’ লিকুইড কুলারে ২ বছরের সার্ভিস ওয়ারেন্টি সেবা রয়েছে।

ঢাকা/অগাস্টিন সুজন/ফিরোজ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়