ঢাকা     শুক্রবার   ১২ এপ্রিল ২০২৪ ||  চৈত্র ৩০ ১৪৩০

ফুরোমন পাহাড়, যেখানে দেখা মেলে মেঘের লুকোচুরি খেলা

বিজয় ধর, রাঙামাটি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৮:৫১, ৩১ জানুয়ারি ২০২৪   আপডেট: ০৯:০৯, ৩১ জানুয়ারি ২০২৪
ফুরোমন পাহাড়, যেখানে দেখা মেলে মেঘের লুকোচুরি খেলা

হ্রদ পাহাড়ের শহর পার্বত্য জেলা রাঙামাটি। প্রতি বছর শীত মৌসুমে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে পর্যটকরা এখানে ঘুরতে আসেন প্রকৃতির সৌন্দর্য উপভোগ করতে।

ফুরোমন পাহাড় ভিন্ন ঋতুতে ভিন্ন রূপ ধারণ করে। কোনো পর্যটক বর্ষায় ফুরোমন পাহাড় ভ্রমণ করলে দেখতে পাবেন চির সবুজ পাহাড়। গ্রীষ্মকালে আসলে রুক্ষ ও শুষ্ক পাহাড় দেখা যাবে। আবার শীত মৌসুমে দেখা মিলবে শিশিরে ভেজা মেঘে ঢাকা আকাশ আর পাহাড়।

ফুরোমন পাহাড়ের অবস্থান রাঙামাটি সদরের সাপছড়ি এলাকায়। পাহাড়ের চূড়ায় উঠলে দেখা মিলে সূর্যোদয় আর সূর্যাস্তের। ফুরোমন পাহাড়ে দুইভাবে যাওয়া যায়। একটি রাঙামাটি সদর উপজেলার শালবাগান এলাকা দিয়ে, অপরটি শুকরছড়ি এলাকা দিয়ে।

পাহাড়ের উচ্চতা ১ হাজার ৫১৮ ফুট। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ২ হাজার ৬০০ ফুট উঁচুতে। ফুরোমন পাহাড়ে উঠতে কিছুটা কষ্ট হলেও পাহাড়ে উঠার পরে সব কষ্ট আনন্দে পরিণত হয় বলে জানান স্থানীয়রা।

তানিশা নামের এক পর্যটক বলেন, এর আগে তিন পার্বত্য জেলার অনেক পাহাড়ে ভ্রমণ করেছি। তবে, এবারের অনুভূতি আগের তুলনায় ভিন্ন।

চট্টগ্রামের মীরসরাই থেকে ফুরোমন দেখতে আসা পর্যটক সুমন চৌধুরী বলেন, খুবই চমৎকার পাহাড়। যেখানে আসলে নিজের সব দুঃখ, কষ্ট মিলেমিশে একাকার হয়ে যায়।

তিনি আরও বলেন, আমি দেশের সকল ভ্রমণপ্রেমী মানুষদের বলবো, আপনারা একবারের জন্য হলেও ফুরোমন পাহাড়ে ঘুরে যাবেন।

প্রীতম দত্ত নামের আরেক পর্যটক বলেন, এখানে এসে নিজেকে হারিয়ে ফেলেছি। ফুরোমন পাহাড়ের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য দেখে আর ফিরে যেতে ইচ্ছে করছে না।

সরেজমিনে দেখা যায়, সবুজ পাহাড়ে গায়ে ভেসে বেড়াচ্ছে সাদা মেঘ। আর পাহাড়ের ভাজে ভাজে অজানা অসংখ্য ফোটা ফুল মনকে শিহরিত করে তুলে।

স্থানীয় পর্যটক শুভ বলেন, বর্তমানে এখানে সাজেকের মতো মানুষ ভিড় জমাচ্ছেন নীল আকাশ ও মেঘের ছোঁয়া নিতে। যারা পাহাড় ভালোবাসেন তারা একবার এসে ঘুরে যেতে পারেন।

পর্যটক দীপা বলেন, ফুরোমনে মেঘের লুকোচুরি খেলা সত্যিই অসাধারণ। যে ফুরোমন ভ্রমণ করবেন না, সে জীবনে অনেক কিছু মিস করবেন।

ফুরোমন ভ্রমণে পর্যটকদের একটি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে। তা হলো, এখানে রয়েছে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের ফুরোমন ভাবনা কেন্দ্র বৌদ্ধ মন্দির। যারা এখানে ঘুরতে আসবেন, তাদের অবশ্যই মন্দিরের ভাবগাম্ভীর্যতা রক্ষা করতে হবে।

কেআই

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়