ঢাকা, শুক্রবার, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

ফরিদপুরে বিদ্যুৎকর্মীর ভুলে ক্ষতিগ্রস্ত প্রতিবন্ধী যুবক

মো. মনিরুল ইসলাম টিটো : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-১২-০৭ ১:৪১:৫৭ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-১২-০৭ ১:৪৬:২৭ পিএম

ফরিদপুর প্রতিনিধি : অতিরিক্ত বিদ্যুৎবিলের বোঝা কাঁধে নিয়ে সমস্যা সমাধানের আশায় বিদ্যুৎ অফিসে দীর্ঘদিন ধরে ঘুরছেন শারীরিক প্রতিবন্ধী এক যুবক। কিন্তু আট মাস ধরে ঘুরেও পাননি কোনো সমাধান।

ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলার ডাঙ্গী গ্রামে বসতবাড়িতে আবাসিক মিটারের পরিবর্তে বাণিজ্যিক মিটার লাগানোয় বিদ্যুৎবিলের পাহাড় বয়ে বেড়াচ্ছেন সিরাজুল ইসলাম নামে ওই যুবক। তিনি গ্রামের দবিরউদ্দিন প্রামাণিকের ছেলে। শারীরিক প্রতিবন্ধী সিরাজুল ইসলাম গত আট মাস ধরে দৌড়াদৌড়ি করলেও তার বাড়ি থেকে বাণিজ্যিক মিটার অপসারণ করা হয়নি।

তিনি জানান, গত বছর বাজারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে মিটারের জন্য আবেদন করেন তিনি। আট মাস আগে পল্লীবিদ্যুতের কর্মীরা ভুল করে তার বাড়িতে আবাসিক মিটারের পরিবর্তে বাণিজ্যিক মিটার লাগিয়ে দেয়। এতে অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিলের ভারে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন সিরাজুল। গত মঙ্গলবার তার বাড়িতে নভেম্বর মাসের বকেয়াসহ বিদ্যুৎ বিল এসেছে ১১ হাজার ৩০৯ টাকা। অথচ তার তিন সদস্যের পরিবারে শুধু তিনটি বাল্ব ও একটি ফ্যান চলে। তিনি বাড়ির পাশে মৌলভীরচর বাজারে দর্জি দোকানের কর্মচারী হিসেবে সামান্য আয়ের কাজ করেন।

সিরাজুল জানান, প্রতি মাসে বিলের বোঝা সইতে না পেরে শারীরিক প্রতিবন্ধকতা নিয়েই তিনি সংশ্লিষ্ট অফিসে ছুটাছুটি করে আসছেন আট মাস ধরে। কিন্তু বাড়িতে লাগানো বাণিজ্যিক মিটারটি এখন পর্যন্ত অপসারণ করা হয়নি।

এ ব্যাপারে উপজেলা পল্লীবিদ্যুৎ ইনচার্জ সবুজ হোসেন জানান, ওই যুবক গত বছর তার বাড়ি ও বাজারের দোকান মিলে দুটি মিটারের আবেদন করার পর বাজারের মিটারটি আগে এসেছে কিন্তু পল্লীবিদ্যুতের কর্মীরা ভুলে তার বাড়িতে লাগিয়ে দিয়েছে। গত দুদিন আগে বাড়ির মিটারটি বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। খুব তাড়াতাড়ি বাড়িতে লাগানো বাণিজ্যিক মিটারটি যথাস্থানে লাগানো হবে।

সিরাজুল ইসলাম জানান, বাণিজ্যিক মিটারে বিদ্যুৎ বিল ইউনিট প্রতি ৯ টাকা এবং আবাসিকে সাড়ে ৪ টাকা দর নির্ধারিত। উপজেলা পল্লীবিদ্যুতের অফিসকর্মী আরিফুল ইসলাম জেনে ও বুঝে তার বাড়িতে বাণিজ্যিক মিটারটি লাগিয়েছেন।



রাইজিংবিডি/ফরিদপুর/৭ ডিসেম্বর ২০১৭/মো. মনিরুল ইসলাম টিটো/এসএন

Walton
 
   
Marcel