ঢাকা     বুধবার   ২৯ মে ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪৩১

শীর্ষ দুই নেতার কাণ্ডে ইতালি আ.লীগে অস্থিরতা

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:৪২, ৭ মে ২০২৪  
শীর্ষ দুই নেতার কাণ্ডে ইতালি আ.লীগে অস্থিরতা

আওয়ামী লীগের ইতালি শাখার শীর্ষ দুই নেতার বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেছে সংগঠনটির নেতাকর্মীরা। সংগঠনের সভাপতি মাহতাব হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেনের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও অসাংগঠনিক কর্মকাণ্ডের অভিযোগ তুলে তাদের নেতৃত্ব থেকে মুক্তি চাইছে তারা।

মঙ্গলবার (৭ মে) সন্ধ্যায় ইতালির রোমের পিয়াচ্ছা ভিত্তোরিও ফুড অব রোমা রেস্টুরেন্টে ইতালি আ.লীগের বড় একটি অংশ দুই নেতার বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেন। সেখানে সংগঠনের দায়িত্বশীল নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় চরম ক্ষোভ প্রকাশ করে তারা অভিযোগ করে বলেন, আমরা দুর্নীতিগ্রস্ত এমন ইতালি আওয়ামী লীগ চাই না। আগের কমিটি দীর্ঘ ৯ বছর ছিল। এরপরও সম্মেলন দিতে আগ্রহ দেখাননি। অবশেষ তাদের ক্ষমতাচ্যুত করা হয়। ঠিক সেই পথেই বর্তমান মাহতাব-আলমগীর হাঁটছেন।

লিখিত বক্তব্যে এনআরবি ব্যাংকের পরিচালক এবং ইতালি আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি নজরুল ইসলাম মাঝি বলেন, সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সম্মেলন নিয়ে তালবাহানা করায় সম্মেলনের একদিন পূর্বে কার্যকরী পরিষদের সর্বাধিক সংখ্যা সদস্যদের উপস্থিতিতে তাদের অব্যাহতি দিয়ে একটি ত্রিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সেই সময়ও সাবেক নেতৃবৃন্দের স্বেচ্ছাচারিতা, অসাংগঠনিক ও অনৈতিক কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে কঠোর আন্দোলনে সোচ্চার ছিল। 

‘সম্মেলনে উপস্থিত সকলের সমর্থনে মাহতাব হোসেনকে সভাপতি, আলমগীর হোসেনকে সাধারণ সম্পাদক, সরদার লুৎফর রহমানকে সহ সভাপতি ও এম এ রব মিন্টুকে সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়। কিন্তু ইতালি আওয়ামী লীগের দুর্ভাগ্য, সঠিক নেতা নির্বাচিত করতে ব্যর্থ হয়েছিল। কিছু ছদ্মবেশী নীতি বিবর্জিত অসাংগঠনিক দুর্নীতি পরায়ণদের নেতা সর্বোচ্চ পদে নির্বাচিত হয়েছেন।’

তিনি বলেন, ইতালি আওয়ামী লীগের সুনাম অক্ষুণ্ন রাখার প্রয়াসে, দলকে দুর্নীতির হাত থেকে রক্ষা করতে এবং ইতালিতে একটি শক্তিশালী আওয়ামী লীগ গঠন করার লক্ষ্যে এবং দুর্নীতিবাজদের চিহ্নিত করতে সবাই ঐক্যবদ্ধ। 

ইতালি আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ কতিপয় নেতৃবৃন্দের সীমাহীন দুর্নীতি-অনিয়মের বিরুদ্ধে সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন জানিয়ে বক্তারা বলেন, সম্মেলনের ৪৫ দিনের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের বাধ্যবাধকতা থাকলেও প্রায় আড়াই বছরেও তারা কমিটি গঠন করতে ব্যর্থ হয়েছে। ইতালি আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদনের জন্য সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ২৭ হাজার ইউরো (৩৫ লাখ টাকা প্রায়) ফান্ড সংগ্রহ করেন, উল্লিখিত ফান্ড কোথায় এবং কীভাবে ব্যয় হয়েছে ইতালি আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা তার সঠিক তথ্য জানতে চায়।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ইতালি আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আব্দুর রউফ ফকির, আফতার বেপারী, মাইনুদ্দিন লিটন হাজারী, আলী আযম, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এম এ রব মিন্টু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান সিদ্দিকী, করিব হোসেন, আফছার বেপারী, আওয়ামী লীগ নেতা গোলাম মোস্তফা, সাংগঠনিক সম্পাদক জি আর মানিক, ইলিয়াস মাদবার, এআর আহাম্মেদ তপু, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক বায়েজীদ আলী, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক রাজিব রহমান, ইতালি আওয়ামী লীগ সদস্য ইলিয়াস মোল্লা, নাসির উদ্দিন মানিক, মো. ইব্রাহিম, নাসিম হোসাইন, সালাউদ্দিন, মোজাম্মেল হক, আবু সাইদ, রিপন তপদার, আব্দুর রহমান, আব্দুল মজিদ বাবুল,আওয়ামী লীগ নেতা ইমরুল কায়েছ, হাবিব মাতুব্বর, মামুন রহমান, দীন মোহাম্মদ, সাবেক যুব নেতা বাদশা, জাবেদ রহমান প্রমুখ।

পারভেজ/এনএইচ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়