Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ০১ ডিসেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ১৭ ১৪২৮ ||  ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

সাটুরিয়ায় ২০ হাজার পরিবার পানিবন্দি

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১০:০৩, ২৪ জুলাই ২০২০   আপডেট: ১০:৩৯, ২৫ আগস্ট ২০২০
সাটুরিয়ায় ২০ হাজার পরিবার পানিবন্দি

ধলেশ্বরী নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে সাটুরিয়া উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের ২০ হাজার পরিবাবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। ৯টি ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়ে এসব এলাকার অধিকাংশ রাস্তাঘাট পানির নিচে। বন্যা কবলিত এলাকায় বিশুদ্ধ পানি ও গো খাদ্যের সংকট দেখা দিয়েছে। করোনা ভাইরাসের প্রভাব ও বন্যায় হাজার হাজার মানুষ কর্মহীন জীবন কাটাচ্ছে।

উপজেলার সাটুরিয়া, বালিয়াটী, দিঘুলিয়া, বরাইদ, তিল্লি, ফকুরহাটি, ধানকোড়া, হরগজ, দড়রগ্রাম ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চল ডুবে কমপক্ষে ২০ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে তিল্লি, বরাইদ ও দিঘুলিয়া ইউনিয়ন বেশি প্লাবিত হয়েছে। তিল্লি ইউনিয়নের অধিকাংশ ফসলী জমি এখন পানির নিচে।

মানিকগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের পানি পরিমাপক (গেজ রিডার) ফারুক আহমেদ জানান, শুক্রবার বিকাল ৩টা থেকে এর আগের ২৪ ঘণ্টায় ৪ সেন্টিমিটার পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসমীর ৫৭ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

তিল্লি ইউপি চেয়ারম্যান মো. মুরছালিন বাবু বলেন. আমার, ইউনিয়নের তিল্লি চর, তিল্লি, উত্তর আয়নাপুর, দক্ষিণ আয়নাপুর, পাচুটিয়া গ্রামের ২ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

তিল্লি চর গ্রামের আব্দুল লতিফ বলেন, আমার বাড়ির চতুদিকে বানের পানিতে তলিয়ে গেছে। আমি এখন অন্যের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছি।

তিল্লি গ্রামের মো. রাজিব বলেন, আমাদের পাড়ায় অন্তত ৩০টি বাড়িতে পানি উঠেছে। সব নলকূপই পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় আমাদের খাবার পানি সংকট দেখা দিয়েছে।

শুক্রবার সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত সাটুরিয়া, দড়গ্রাম, দিঘুলিয়া, তিল্লি, বরাইদ ইউনিয়নে সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, হাজার হাজার বাড়ি ঘরে পানি উঠেছে। এসব এলাকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, রাস্তাঘাট, জমি, পুকুর ডুবে একাকার হয়ে গেছে।

বালিয়াটী ইউনিয়নের বাহ্রা গ্রামের বুলবুল বলেন, আমার বাড়ি থেকে যেখানেই যাই না কেন একমাত্র বাহন হচ্ছে নৌকা। করোনার কারণে দীর্ঘদিন বেকার ছিলাম। আবার বন্যার কারনে সম্পূর্ণ বেকার হইয়া গেলাম। পুলাপান নিয়ে খামু কী।

এ ব্যাপারে সাটুরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ ফটো বলেন, শুক্রবার সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত উপজেলার দিঘুলিয়া, বরাইদ ও তিল্লি ইউনিয়নের ১ হাজার ৯০ জন বানবাসিদের মাঝে ৩০ কেজি করে চাল, স্যালাইন ও পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট বিতরণ করেছি।

সাটুরিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশরাফুল আলম বলেন, সাটুরিয়ার কমবেশি সব ইউনিয়ন বন্যা কবলিত হয়েছে। তাছাড়া সাটুরিয়ার ১ হাজার ১ শত বর্গমিটার নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। ভাঙন প্রতিরোধে ইতোমধ্যে ১০ হাজার জিও ব্যাগ ফেলানো হয়েছে। আর বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্য অব্যাহত আছে।

 

 

হাসান ফয়জী/সাজেদ

রাইজিংবিডি.কম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়