RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     শুক্রবার   ৩০ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ১৫ ১৪২৭ ||  ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

লাকড়ি বেচেই জীবন চলে সরিনার

মামুন চৌধুরী || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৮:২৩, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১০:১১, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০
লাকড়ি বেচেই জীবন চলে সরিনার

হবিগঞ্জ জেলার শায়েস্তাগঞ্জ রেলওয়ে জংশনের গুদাম মাঠে পরিত্যক্ত রেলের জমিতে একটি ঝুপড়ি ঘর। এর ঘরের সামনে স্তূপ করে রাখা লাকড়ি (জ্বালানি কাঠ)। খোঁজ নিয়ে জানা গেল, এ লাকড়ি বিক্রি করেন সরিনা খাতুন (৪৫)। ঝুপড়ি ঘরে গিয়ে দেখা গেল, তিনি রান্না করছেন, পাশে বসে দুই শিশু খেলা করছে।

এ প্রতিবেদককে জানান, তার বাবা শেখ আব্দুল হালিম শায়েস্তাগঞ্জ রেলওয়ে জংশনে চাকরি করতেন। এ সুবাদে এখানে তাদের বসাবস। বাবা হারান ছোট বেলায়, মাও নেই। স্বামী নোয়াজ আলী মেইকারও প্রায় ৮ বছর আগে মারা গেছেন।

সেই সময় থেকে একেবারে অসহায় হয়ে পড়েন। বাসায় বাসায় কাজ করে দুই সন্তানকে বড় করেন। এর মধ্যে ছেলে বড় হয়ে বিয়ে করেছে, মেয়েরও বিয়ে হয়েছে। অসহায় অবস্থায় তিনি সৎপথে জীবিকা নির্বাহে লাকড়ি বিক্রির পেশা বেছে নেন।

রঘুনন্দন পাহাড়ি এলাকার পরিত্যক্ত লাকড়ি সংগ্রহ করেন। নিজ ঝুপড়ি ঘরের সামনে বসে সামান্য লাভে এ লাকড়ি বিক্রি করে দৈনিক এক থেকে দুইশ টাকা আয় হয়। এ টাকায় তার বাজার হয়। লাকড়ি বিক্রি না হলে বাজার হয় না, নিজের ঘরে চুলায় জ্বলে না আগুন। থাকতে হয় অনাহারে।

করোনাকালে প্রায় সময়ই তাকে অনাহারে থাকতে হচ্ছে, কেউ খোঁজ-খবর নেয়না। নেই সরকারি সহায়তা, নেই ঘর। পুরনো টিন জোড়াতালি দিয়ে তৈরি করেছেন এ ঝুপড়ি ঘর। সেই ঘরে রোদ-বৃষ্টির সঙ্গে লড়াই করে বসবাস করতে হচ্ছে।

ছেলের কথা জিজ্ঞেস করলে, এ ব্যাপারে তিনি কথা বলতে চাননি। কারণ, ছেলে বিয়ে করে নিজের সংসার নিয়েই চলা কঠিন হয়ে পড়েছে। তাকে কীভাবে দেখবে?

শায়েস্তাগঞ্জ পৌর এলাকার ভোটার হলেও বিধবা ভাতার কার্ড তার ভাগ্যে জুটেনি।

বর্তমান সরকারের কাছে তার চাওয়া নিজস্ব জমিতে একটি ছোট ঘর ও ব্যবসা করার জন্য কিছু পুঁজি এবং একটি ভাতার কার্ড। এসব পেলে তিনি বাকি জীবনটা নিরাপদে কাটাতে পারবেন।

এ ব্যাপারে শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভার ৩নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মাসুদউজ্জামান মাসুক বলেন, আবেদন করলে তাকে তিনি একটি ভাতার কার্ড সংগ্রহ করে দেওয়ার চেষ্টা করবেন।

উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ গাজীউর রহমান ইমরান বলেন, ‘ইউএনও ও চেয়ারম্যান মহোদয়ের সঙ্গে কথা বলে দ্রুত এ অসহায় নারীর জন্য কিছু একটা করতে চাই। আমরা নির্বাচিত হয়েছি তৃণমূল মানুষের কল্যাণে কাজ করার জন্য। এ প্রত্যাশা পূরণে কাজ করছি।’

সাজেদ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়