RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ২৪ জানুয়ারি ২০২১ ||  মাঘ ১০ ১৪২৭ ||  ০৯ জমাদিউস সানি ১৪৪২

লক্ষ্মীপুর জজ কোর্টের গাড়িচালক দুদকের মামলায় কারাগারে

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:১৭, ১২ অক্টোবর ২০২০  
লক্ষ্মীপুর জজ কোর্টের গাড়িচালক দুদকের মামলায় কারাগারে

অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুদকের পৃথক দুটি মামলায় লক্ষ্মীপুর জজ আদালতের গাড়িচালক নুর হোসেন পাটওয়ারী ও তার ভাই আমির হোসেন পাটওয়ারীকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। 

রোববার  (১১ অক্টোবর) বিকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেন জেলা দায়রা জজ আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট জসিম উদ্দিন।

তিনি বলেন, জেলা ও দায়রা জজ রহিবুল ইসলাম’র আদালতে আত্মসমর্পণ করলে আদালত তাদের জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

গত ৭ সেপ্টেম্বর দুর্নীতি দমন কমিশনের নোয়াখালী সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে সহকারী পরিচালক সুবেল আহমেদ বাদী হয়ে তাদের বিরুদ্ধে পৃথক মামলা দায়ের করেন।

আসামি নুর হোসেন ও আমির হোসেন লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার মান্দারী ইউনিয়নের যাদৈয়া গ্রামের মৃত মোহাম্মদ উল্যা পাটওয়ারীর ছেলে।  নুর হোসেন লক্ষ্মীপুর জজ আদালতের গাড়ি চালক ও আমির হোসেন একজন ব্যবসায়ী।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও ভোগ দখলে থাকার অভিযোগে দুদকের নোয়াখালী সমন্বিত জেলা কার্যালয় ২০১৯ সালের ৮ জুলাই নুর হোসেন ও আমির হোসেনকে সম্পদ বিবরণী দাখিলের নোটিশ জারি করে।  এর আগে দুদক তাদের বিরুদ্ধে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন করে।  ২০১৯ সালের ১৯ নভেম্বর দুদকের প্রধান কার্যালয় নোয়াখালী কার্যালয়কে ওই দুই ভাইয়ের সম্পদ বিবরণীর আদেশ জারির নির্দেশ দেয়।  এ প্রেক্ষিতে ২৯ ডিসেম্বর নোয়াখালী কার্যালয় বিবরণীর আদেশ জারি করেন।  এর মধ্যে নুর হোসেনকে চলতি বছরের ২ জানুয়ারি ও আমির হোসেনকে ১৬ ফেব্রুয়ারি সম্পদ বিবরণীর ফরম বুঝিয়ে দেওয়া হয়।  তিনি সম্পদের হিসাব না দেওয়ায় তাকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়।

দুদকের নোয়াখালী কার্যালয়ের উপ-সহকারী পরিদর্শক আবুল কালাম আজাদ তাদেরকে ফরম বুঝিয়ে দিয়ে অফিস কপিতে স্বাক্ষর নেন।  কিন্তু ফরম বুঝে পাওয়ার দিন থেকে ২১ কার্যদিবসের মধ্যে সম্পদ বিবরণী দাখিল করার কথা থাকলেও তারা তা করেননি।  এমনকি তারা সময় বাড়ানোর আবেদনও করেননি।  এজন্য দুদক আইন ২০০৪ এর ২৬(২) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ করায় তাদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা দায়ের করা হয়।

বিবাদীর আইনজীবী অ্যাডভোকেট হুমায়ুন কবির জানান, দুদকের কাছে সম্পদের হিসাব না দেওয়া ও জামিন অযোগ্য ধারা হওয়ায় তাদেরকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়।

ফরহাদ/টিপু

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়