Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ১৮ এপ্রিল ২০২১ ||  বৈশাখ ৫ ১৪২৮ ||  ০৫ রমজান ১৪৪২

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে ৫ ঘণ্টা ফেরি চলাচল বন্ধ

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:৪৬, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১   আপডেট: ১৭:৪৮, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১
শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে ৫ ঘণ্টা ফেরি চলাচল বন্ধ

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে ফেরি চলাচল পাঁচ ঘণ্টা বন্ধ ছিল।

বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৭টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত ফেরি চলাচল বন্ধ করে রাখার অভিযোগ উঠেছে ঘাট কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে।

ঢাকা দক্ষিণ এবং উত্তরের সিটি কর্পোরেশনের পরাজিত মেয়র প্রার্থী ইশরাক হোসেন ও তাবিথ আউয়ালকে দেখে কর্তৃপক্ষ ফেরি চলাচল বন্ধ রেখেছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা।

বিএনপি নেতারা অভিযোগ করেন- নির্বাচনে ভোট কারচুপি ও জিয়াউর রহমানের খেতাব বাতিলের প্রতিবাদে বরিশালে বিএনপির প্রথম বিভাগীয় মহাসমাবেশে যোগ দিতে বৃহস্পতিবার সকাল ৭টায় গাড়িবহর নিয়ে বিএনপির এ দুই নেতা ঘাটে পৌঁছান। তারা ঘাটে পৌঁছানোমাত্র ফেরি চলাচল রহস্যজনক কারণে বন্ধ করে দেওয়া হয়।

এদিকে দীর্ঘক্ষণ ফেরি বন্ধ থাকায় ঘাট এলাকায় পারাপারের অপেক্ষায় হাজারো সাধারণ যাত্রী ও তিন শতাধিক যানবাহন আটকে পড়ে। 
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন শিমুলিয়া ঘাটের ট্রাফিক ইনচার্জ(টিআই) নাজমুল রায়হান।

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৭টার আগে শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে ফেরি ও লঞ্চ চলাচল স্বাভাবিক ছিল। ৭টার দিকে ইশরাক হোসেন ও তাবিথ আউয়াল ঘাটে আসেন। প্রায় দুই ঘণ্টা অপেক্ষার পর বেলা ৯টার দিকে তাবিথ আউয়াল সি-বোটে ও ইশরাক হোসেন নেতাকর্মীদের নিয়ে এমভি মাসুম-২ নামের লঞ্চে করে পদ্মা পাড়ি দেন। পরে বেলা ১২টার দিকে আবারও ফেরি চালু হয়।

স্থানীয় বিএনপির নেতাকর্মীরা অভিযোগ করে বলেন, ‘ইশরাক-তাবিথ ঘাটে আসার খবরে বাংলাবাজার ঘাট থেকে কোনো ফেরিই পাচঁ ঘন্টা ছাড়েনি। শিমুলিয়া ১ ও ২ নম্বর ঘাটে নোঙ্গর করা দুয়েকটি ফেরি থাকলেও সেগুলো বন্ধ ছিল। নেতাকর্মীদের সমাবেশে যাওয়ায় বিঘ্ন ঘটাতেই ফেরি বন্ধ করে দেওয়া হয়।’

তবে কী কারণে দীর্ঘ পাঁচ ঘণ্টা ফেরি চলাচল বন্ধ ছিল, তা বলতে রাজি হয়নি ঘাট কর্তৃপক্ষ। মুঠোফোনে একাধিকবার বিআইডব্লিউটিসি শিমুলিয়াঘাট কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করা হলেও কেউ ফোন রিসিভ করেননি।

লৌহজং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলমগীর হোসাইন বলেন, ‘বিষয়টি আমার জানা নেই। কেউ কোনো অভিযোগও করেনি।’

এদিকে পদ্মা পাড়ি দেয়াওর আগে ইশরাক হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, ‘বর্তমান প্রেক্ষাপট সবারই জানা। দেশে গণতন্ত্র নেই, ভোটের অধিকার নেই। বর্তমান সরকারের দুর্নীতি ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের যে অপকর্ম রয়েছে, তা আন্তর্জাতিক ও দেশীয় গণমাধ্যমে ফাঁস হয়ে যাচ্ছে। এসব থেকে দৃষ্টি ফেরাতেই শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের খেতাব নিয়ে সরকার ছিনিমিনি খেলছে।’

রতন/সনি

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়