Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ২১ ১৪২৮ ||  ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

গাজীপুরে বেতনের দাবিতে শ্রমিক বিক্ষোভ চলছে, মালিক লাপাত্তা 

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:১৭, ২৮ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ১৫:১৯, ২৮ অক্টোবর ২০২১
গাজীপুরে বেতনের দাবিতে শ্রমিক বিক্ষোভ চলছে, মালিক লাপাত্তা 

গাজীপুর সদর উপজেলার সালনা এলাকায় বকেয়া বেতনের দাবিতে আজও বিক্ষোভ করছে শ্যামলী গার্মেন্টস লিমিটেড কারখানার শ্রমিকেরা।

বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) বেলা ১২ টা থেকে শ্রমিকেরা ওই প্রতিষ্ঠানের মূল ফটকের সামনে আন্দোলন করছে। 

এর আগে বুধবার (২৭ অক্টোবর) দুপুর আড়াইটা থেকে রাত ৭ টা পর্যন্ত বকেয়া বেতনের দাবিতে আন্দোলন করে শ্রমিকরা। এসময় শ্রমিকেরা ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে। পরে পুলিশ-শ্রমিক সংঘর্ষ শুরু হয়। এসময় শ্রমিকেরা ক্ষিপ্ত হয়ে অর্ধশতাধিক যানবাহন ভেঙে ফেলে। একপর্যায়ে পুলিশ টিয়ার শেল নিক্ষেপ করলে শ্রমিকরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। 

গার্মেন্টসের শ্রমিক ও স্টাফদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, শ্রমিকদের ২ মাস ও স্টাফদের ৫-৬ মাসের বেতন বকেয়া রয়েছে। তাদের দাবি, চলতি মাসেই সকল বকেয়া পাওনা পরিশোধ করতে হবে। 

তারা বলেন, গতকাল থেকে আন্দোলন করছি কিন্তু প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না বেতনের ব্যপারে। এদিকে পুলিশ আশ্বাস দেয় কিন্তু তারাই আমাদের উপর আক্রমণ করে। গতরাতে পুলিশ টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে এতে কয়েকজন নারী শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পড়েছে। 

ওই প্রতিষ্ঠানের নারী শ্রমিক সুরাতন আক্তার বলেন, আমি গত ৪ বছর ধরে এই প্রতিষ্ঠানে কাজ করি। প্রথমে ঠিকঠাক বেতন দিতেন কিন্তু করোনা শুরুর পর থেকেই বেতনে সমস্যা হচ্ছে। আমরা গত ২ মাস ধরে বেতন পাইনা আর আমাদের স্যারেরা মানে স্টাফরা ৬ মাস ধরে বেতন পায় না।

ওই প্রতিষ্ঠানের আরেক শ্রমিক জাফর বলেন, সাড়ে ৩ হাজারের উপরে শ্রমিক ছিল। কিন্তু বেতন দেয়না বলে অনেকেই চাকরি ছেড়ে চলে গেছে। আমাদের বেতনও দিয়ে দিক। আমরাও চাকরি ছেড়ে দিবো কিন্তু আমাদের কষ্টের টাকা রেখে যাবো না। 

গাজীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম বলেন, গতকাল (বুধবার) আমরা শ্রমিকদের আন্দোলন থামিয়ে বাসায় পাঠিয়েছিলাম কিন্তু ওই প্রতিষ্ঠান এখনো বেতন না দেওয়ায় শ্রমিকরা প্রতিষ্ঠানের সামনে বিক্ষোভ করছে। গতকাল থেকে প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ রয়েছে। উর্ধ্বতন কর্মকতা কেউ আজ প্রতিষ্ঠানে আসেননি।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের ডিসি জাকির হোসেন বলেন, এখন পর্যন্ত ওই প্রতিষ্ঠানের শ্রমিকদের বেতন দেওয়া হয়নি। এজন্য শ্রমিকরা প্রতিষ্ঠানের সামনে শান্তভাবে আন্দোলন করছে। এ ব্যপারে ওই প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছি কিন্তু তাদের নম্বর বন্ধ। তবে শ্রমিকরা মহাসড়ক অবরোধ করেনি।

এ ব্যপারে ওই প্রতিষ্ঠান মালিক ও উর্ধ্বতন কর্মকতাদের যোগাযোগ করতে চাইলেও তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি। তবে গত রাতে শ্যামলী গার্মেন্টস লিমিটেড কারখানার ডিজিএম কাজল বরণ দেবনাথ বলেন, তাদের দাবিগুলো যৌক্তিক কিন্তু আমাদের কিছু সময় দরকার। আমরা মালিকের সঙ্গে কথা বলে প্রয়োজনে প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে হলেও শ্রমিকদের বেতন পরিশোধ করবো।

গাজীপুর/রেজাউল/টিপু

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়