ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৫ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ১১ ১৪৩১

পরিত্যাক্ত যাত্রী ছাউনিকে অনন্য রূপ দিলো ‘সেঁজুতি’

হাবিপ্রবি সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:২৯, ২৫ মে ২০২৪  
পরিত্যাক্ত যাত্রী ছাউনিকে অনন্য রূপ দিলো ‘সেঁজুতি’

দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) প্রথম প্রবেশদ্বার সংলগ্ন একটি যাত্রী ছাউনি রয়েছে। এ যাত্রী ছাউনি দীর্ঘদিন সংস্কার ও দেখভালের অভাবে একরকম পরিত্যক্ত অবস্থায় ছিল। আর সেটাতে অনন্য রূপে সাজিয়েছে হাবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের সংগঠন সেঁজুতি সাংস্কৃতিক ঐক্য, করে তুলেছে ব্যবহার উপযোগী।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পরিত্যক্ত অবস্থায় থাকা থাকা যাত্রী ছাউনি ও তার দেওয়ালগুলো সেঁজুতির সদস্যরা নিজ উদ্যোগে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করে। এরপর রং-তুলির আঁচড়ে দেওয়ালগুলো রাঙিয়ে তুলেছে এসব শিক্ষার্থীরা। অবহেলিত ও অপরিষ্কার যাত্রী ছাউনিটি হঠাৎ এ পরিবর্তনে নজর কেড়েছে শিক্ষার্থীসহ পথচারীদের।

যাত্রী ছাউনির দেওয়ালে নানা ধরনের চিত্রকর্মে স্থান পেয়েছে। এর মধ্যে মনপুরা মুভির দৃশ্যপট, বিখ্যাত উক্তিসহ নানা সৃজনশীল চিত্র। সংগঠন সেঁজুতি’র সদস্যরা এ দেওয়াল চিত্রকর্মের নাম দিয়েছে ‘ভাস্কর’, যা গত বৃহস্পতিবার (২৩ মে) উদ্বোধন করা হয়। 

বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন যাত্রী ছাউনিতে ‘ভাস্করের’ উদ্বোধন করেন হাবিপ্রবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. আলমগীর হোসেন আকাশ ও সাধারণ সম্পাদক এমএম মাসুদ রানা মিঠু।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সেঁজুতি সাংস্কৃতিক ঐক্যের সভাপতি মাহফুজার রহমান পুনম ও সাধারণ সম্পাদক তকি তাহমিদ মাহিনসহ ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটি এবং সেঁজুতি’র সাবেক ও বর্তমান সদস্যরা।

সেঁজুতি সাংস্কৃতিক ঐক্যের সভাপতি মাহফুজার রহমান পুনম বলেন, অনেকদিন ধরেই পরিত্যক্ত অবস্থায় ছিল যাত্রী ছাউনি। বিশ্ববিদ্যালয়ের ফটকের সঙ্গে সংযুক্ত থাকায়, এটা আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়েরই অংশ মনে হয়েছে। আমরা সেটাকে সুন্দর করার চেষ্টা করেছি, বলা যায়- আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সৌন্দর্য বর্ধনের চেষ্টা করেছি।

হাবিপ্রবি শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি মো. আলমগীর হোসেন আকাশ বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়কে সাংস্কৃতিক দিক দিয়ে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আমাদের জায়গা থেকে চেষ্টার কোনো ত্রুটি থাকবে না। বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোর কাছে আহ্বান থাকবে, আপনারা উদ্যোগ গ্রহণ করবেন, আমরা সহযোগিতা করবো। সবাই কাজ করলে অবশ্যই বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিবাচক পরিবর্তন করা সম্ভব।

/সংগ্রাম/মেহেদী/

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়