ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৮ মে ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ১৪ ১৪৩১

প্রায় তিন কোটি টাকার প্লাস্টিক চেয়ার বসছে শের-ই-বাংলায়

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:১০, ১৬ এপ্রিল ২০২৪  
প্রায় তিন কোটি টাকার প্লাস্টিক চেয়ার বসছে শের-ই-বাংলায়

হোম অব ক্রিকেট খ্যাত মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের গ্যালারির বিভিন্ন অংশের চেয়ার লম্বা সময় ধরে ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে আছে। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) আগে চেয়ার পুনঃস্থাপনের কথা থাকলেও পূর্ণাঙ্গভাবে সেটি হয়নি। অবশেষে চেয়ার বসানোর কাজ শুরু হয়েছে ইতোমধ্যে।

বিভিন্ন অংশের গ্যালারিতে নতুন করে বসানো হচ্ছে প্রায় সাড়ে ৭ হাজার চেয়ার। দেশিয় কোম্পানি আরএফএলের এই চেয়ারগুলো বসাতে খরচ হচ্ছে প্রায় ৩ কোটি টাকা। সবশেষ বোর্ড মিটিংয়ে চেয়ার পুনঃস্থাপনের অনুমোদন দেয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

শহীদ জুয়েল স্ট্যান্ডের নিচের অংশে (ক্লাব হাউজ) সরেজমিনে দেখা যায়, পুরোনো ভাঙা চেয়ারগুলো সরিয়ে ফেলা হচ্ছে। যদিও এখনো নতুন চেয়ার বসানো শুরু হয়নি। পুরোনো চেয়ার সরানোর পর নতুন চেয়ার বসানো শুরু হবে বলে জানিয়েছে বিসিবির গ্রাউন্ডস বিভাগ।

চেয়ারগুলোর মধ্যে ৭ হাজার হচ্ছে ফোল্ডিং চেয়ার। যেগুলো বসানো হয়েছিল ২০১১ বিশ্বকাপের আগে, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের মাধ্যমে। এগুলো ব্যবহার অনুপোযোগী হয়ে যাওয়ায় নতুন চেয়ার বসানোর সিদ্ধান্ত হয়। প্রতিটি ফোল্ডিং চেয়ারের দাম পড়েছে ৩ হাজার ৮৩০ টাকা। সব মিলিয়ে এখানেই খরচ ২ কোটি ৬৮ লাখ ১০ হাজার টাকা।

পূর্ব গ্যালারিতে বসবে ২৬০টি ফিক্সড চেয়ার। প্রতিটির মূল্য ১ হাজার ৫ শত ৫০ টাকা। এ ছাড়া ৯২টি ফ্রেম স্ট্রাকচার নেওয়া হচ্ছে ৯২টি, যার প্রতিটির মূল্য ২ হাজার ৭৪০ টাকা করে। এখানে খরচ হচ্ছে ৬ লাখ ৫৬ হাজার টাকা। সব মিলিয়ে শুধু চেয়ার কেনা বাবদ খরচ হচ্ছে ২ কোটি ৭৪ লাখ টাকার বেশি। আগের চেয়ার সরানো, বসানোর প্রক্রিয়া শেষ করতে খরচ গড়াবে ৩ কোটি টাকায়।

চেয়ার ছাড়াও শের-ই-বাংলায় বসাতে হবে জায়ান্ট স্ক্রিন। গত ৩১ মার্চ কালবৈশাখী ঝড়ে যেটি ভেঙে যায়। যদিও এটা বসানোর কোনো দৃশ্যমান কাজ এখনো শুরু হয়নি।

রিয়াদ/আমিনুল

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়