ঢাকা     শনিবার   ১৫ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ১ ১৪৩১

এমন হার মানতে পারছে না কেউই

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:৪৫, ২২ মে ২০২৪   আপডেট: ১৮:০৪, ২২ মে ২০২৪
এমন হার মানতে পারছে না কেউই

কোন প্রসঙ্গে নির্বাচক আব্দুর রাজ্জাক স্ট্যাটাস দিয়েছেন তা বলা কঠিন। তবে যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে বাংলাদেশের হারের পরপরই তার প্রোফাইলে স্রেফ লিখা উঠে, ‘বাহ।’ তাই দুয়ে দুই চার মিলিয়ে ধরে নেওয়া যায় যুক্তরাষ্ট্রের চমকে দেওয়া পারফরম্যান্স এবং বাংলাদেশের হতশ্রী পারফরম্যান্স কোনোভাবেই মানতে পারেননি।

সামনা-সামনি অনেক কিছু প্রকাশ্যে বলা কঠিন, কোড অব কন্ডাক্টের কারণে। তবে এক শব্দে আব্দুর রাজ্জাক যা বলেছেন, যা বুঝিয়েছেন তা শত শব্দের চেয়েও গভীর। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে যুক্তরাষ্ট্রের মাটিতে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলার মূল উদ্দেশ্যই কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়া এবং সাম্ভাব্য সেরা প্রস্তুতি দেওয়া। অথচ প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ৫ উইকেটের বিব্রতকর হার মানতেই পারছে না অনেকেই।

কন্ডিশন যে একেবারেই বিরুদ্ধ ছিল এমনটা নয়। উইকেট ধীর গতির টার্নিং ছিল। যেরকম উইকেটে সারাবছর খেলে অভ্যস্ত বাংলাদেশ। অথচ ওই উইকেটে উইকেটের আনকোড়া বোলিংয়ের বিপক্ষে আগে ব্যাটিং করতে নেমে রান মাত্র ১৫৩। স্বল্প পুঁজি নিয়েও মোটামুটি লড়াই করে ম্যাচটা বাগিয়ে এনেছিল অতিথিরা। কিন্তু ডেথ ওভারে বোলিং দুর্বলতা আরও একবার সামনে চলে আসে। মোস্তাফিজুর রহমান ও শরিফুল ইসলামের ডেথ ওভারের নির্বিষ বোলিংয়ে যুক্তরাষ্ট্রের দুই ব্যাটসম্যান ঝড় তুলে দলকে এনে দেয় উড়ন্ত জয়।

যেকোনো ফরম্যাটে যুক্তরাষ্ট্র-বাংলাদেশের প্রথম দেখায় তারা জয় পাওয়ায় বেশ উল্লসিত। অন্যদিকে র‌্যাংকিংয়ে দশ ধাপ এগিয়ে থেকেও বাজে পারফরম্যান্সে ম্যাচ হেরে বিব্রত বাংলাদেশ। তাদের এই হার মানতে পারছে না সংশ্লিষ্টরাও। ক্রিকেট বোর্ডের একাধিক পরিচালক, কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে মনে হলো, তারা বেশ বিরক্ত ক্রিকেটারদের নিবেদনে, পারফরম্যান্সে।

শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত দুয়েকজন বাদে কেউ-ই খেলার মুডে নেই এমন অভিযোগও তুলছেন। প্রকাশ্যে এসব বলা যাচ্ছে না শুধুমাত্র বিশ্বকাপ আছে বলেই।

সামনে আরও দুটি ম্যাচ আছে। এরপর যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে আইসিসির আয়োজনেও প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। ম্যাচগুলোর ফলাফল হয়তো পক্ষে আসবে বাংলাদেশের। কিন্তু প্রথম ম্যাচের এমন হার, লড়াই না করার মানসিকতা, স্রেফ উড়ে যাওয়া বেশ পীড়া দিচ্ছে সবাইকেই।

ব্যাটিংয়ে টপ অর্ডার থেকে শুরু করে মিডল অর্ডারে প্রায় সবাই অফফর্মে। ওপেনিংয়ে রান নেই। প্রতিনিয়তই তারা ব্যর্থ হচ্ছেন। বারবার সুযোগ পেয়েও বড় কিছু করতে পারছেন না। মিডল অর্ডারে হাল ধরছেন কেবল তাওহীদ হৃদয়। ডেথ ওভারে ভরসা কেবল মাহমুদউল্লাহ। তাতেই কোনোমতে পাড় পাচ্ছে দলীয় রান। কিন্তু বলার মতো রান হচ্ছে না। নিজেদের মানের রান হচ্ছে না।

বোলিংয়ে কখনো ধার থাকছে কখনো থাকছে না। কখনো ছন্দ থাকছে তো কখনো থাকছে না। তাতে ভরসা হয়ে উঠতে পারছেন না বোলাররা। দেশের মাটিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৪-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতলেও তা আত্মবিশ্বাসে জ্বালানি দিতে পারেনি। বাইরে গিয়ে প্রথম ম্যাচেই হার উল্টো ব্যাকফুটে ঠেলে দিলো। এখান থেকে ঘুরে দাঁড়াতে পারবে তো বাংলাদেশ? সেটাই এখন বিরাট প্রশ্ন।

ইয়াসিন/আমিনুল

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়