ঢাকা, শুক্রবার, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২৪ নভেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

৩৬ ঘণ্টা পর রেল চলাচল শুরু

শাহরিয়ার সিফাত : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০৮-২১ ৪:৩৩:০৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৮-২২ ১১:১৯:৪৭ এএম

নিজস্ব প্রতিবেদক, টাঙ্গাইল : ৩৬ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর ঢাকার সঙ্গে দেশের উত্তর ও দক্ষিণাঞ্চলের রেল পথে যোগাযোগ স্বাভাবিক হয়েছে।|

সোমবার বিকেল সোয়া ৪টায় ঢাকার কমলাপুর রেল স্টেশন থেকে সিল্কসিটি এক্সপ্রেস ট্রেনটি রাজশাহীর উদ্দেশে ছেড়ে গেছে বলে রাইজিংবিডিকে জানিয়েছেন রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন) মো. হাবিবুর রহমান।

রাইজিংবিডিকে তিনি জানান, প্রায় ৩৬ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর ঢাকার সঙ্গে উত্তরবঙ্গ ও দক্ষিণাঞ্চলের রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক হচ্ছে। বিকেল সোয়া ৪টায় কমলাপুরে রেল স্টেশন থেকে সিল্কসিটি ট্রেনটি রাজশাহীর উদ্দেশে ছেড়ে গেছে। এই ট্রেনটি টাঙ্গাইলের ক্ষতিগ্রস্ত রেল সেতুটি অতিক্রম করবে। এর আগে বিকেল সোয়া ৪টায় রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চলের কর্মকর্তারা পৌলী ব্রিজ দিয়ে পরীক্ষামূলকভাবে একটি ডেমো ট্রেন চালিয়েছেন।

এ ছাড়া বিকেল ৫টা ২৩ মিনিটে রংপুর থেকে ঢাকাগামী রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনটি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পর পুনর্নির্মাণ করা রেল সেতুটি অতিক্রমের মধ্য দিয়ে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল পুনরায় শুরু হয়।



এর আগে গতকাল ভোর ৫টার দিকে টাঙ্গাইলের কালিহাতীর যমুনা নদীর শাখা নদী পৌলী নদীতে অবস্থিত পৌলী রেল ব্রিজের এপ্রোচ অংশ বন্যার পানিতে ধসে যাওয়ায় এই পথে রেল যোগাযোগ বন্ধ করে দেয় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। পরে রোববার সকাল ১০টা থেকে শুরু করে টানা ২৬ ঘণ্টা মেরামত করার পর আজ বিকেল সোয়া ৪টায় ক্ষতিগ্রস্ত রেল সেতুটি দিয়ে একটি ডেমো ট্রেন পরীক্ষামূলকভাবে চালু করে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

গতকাল সেতুতে ধসের পর জয়দেবপুর ও পাকশী থেকে প্রায় তিন শতাধিক কর্মী সেতুটিতে মেরামত কাজ শুরু করে। প্রায় ৩০ ফুট গভীর গর্তে জিও ব্যাগ ফেলে সেতুর ভিত্তি মজবুত করা হয়। পরে রেলওয়ের পাকশী ও জয়দেবপুর থেকে পুনর্নির্মাণ করার জন্য স্লিপারসহ অন্যান্য সামগ্রী আনা হয়। টানা ২৬ ঘণ্টা পুনর্নির্মাণ কাজের পর আজ বিকেল ৪টায় সেতুটি ট্রেন চলাচলের উপযোগী ঘোষণা করা হয়।

উল্লেখ্য, রোববার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে টাঙ্গাইল রেলস্টেশন হতে প্রায় পাঁচ কিলোমিটার দূরে পৌলী সেতুর ওপর অবস্থিত পৌলী রেল সেতুর এপ্রোচ মাটি সরে যেতে দেখে স্থানীয়রা। বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসনকে অবহিত করার পর স্থানীয় লোকজন লাল কাপড় টানিয়ে সতর্ক বার্তা প্রদর্শন করে। পরে তারা নীলফামারীর চিলাহাটি থেকে ঢাকাগামী নীলফামারী এক্সপ্রেস ট্রেনটি আসতে দেখে লাল পতাকা দেখিয়ে ট্রেনটি থামিয়ে দেন। এতে ঘটনাস্থলেই আটকা পড়ে নীল ফামারী এক্সপ্রেস ট্রেনটি।  

এ ছাড়া বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব স্টেশনে ঢাকাগামী রংপুর এক্সপ্রেস, বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম স্টেশনে দিনাজপুর থেকে ঢাকাগামী একতা এক্সপ্রেস এবং ঢাকা থেকে রাজশাহীগামী ধূমকেতু এক্সপ্রেস ট্রেন জয়দেবপুর রেলস্টেশনে আটকা পড়ে। এতে গতকাল রোববার ও আজ দুপুর পর্যন্ত কলকাতাগামী মৈত্রী এক্সপ্রেসসহ উত্তরবঙ্গ ও দক্ষিণাঞ্চলগামী সকল ট্রেনের সূচি বাতিল করেছিল রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।



রাইজিংবিডি/টাঙ্গাইল/২১ আগস্ট ২০১৭/শাহরিয়ার সিফাত/রুহুল

Walton