RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ২৪ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ৯ ১৪২৭ ||  ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

কুমিল্লায় বাসে ধর্ষণ: চালক ও হেলপার কারাগারে

কুমিল্লা প্রতিনিধি  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:৪৪, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ২১:১১, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
কুমিল্লায় বাসে ধর্ষণ: চালক ও হেলপার কারাগারে

কুমিল্লায় বাসে ধর্ষণের মামলায় ওই বাসের চালক আরিফ হোসেন সোহেল (২৬) ও হেলপার বাবু শেখকে (২২) কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। 

বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ থানা পুলিশ তাদের সাতদিনের রিমান্ড চেয়ে সোপর্দ করলে আদালত এই নির্দেশ দেন। 

মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) ভোর রাতে কুমিল্লার সদর দক্ষিণ উপজেলার পাদুয়ার বাজারে তিশা প্লাস পরিবহনের যাত্রীবাহী বাসে ওই তরুণীকে ধর্ষণ করা হয়। ঢাকা থেকে কুমিল্লায় আসা ওই তরুণীকে বাসের দরজা-জানালা বন্ধ করে চালক, হেলপার এবং সুপারভাইজার ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়।  

এ ঘটনার মামলায় বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বাসের চালক ও হেলপারকে গ্রেপ্তার করেছে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ থানা পুলিশ। চালক সোহেল কুমিল্লা সদর দক্ষিণ থানার নেউরা গ্রামের শরীফ হোসেনের ছেলে এবং হেলপার বাবু শেখ ফরিদপুরের ভাঙ্গা থানার কামিনারবাগ গ্রামের শেখ ওয়াজেদের ছেলে। তারা দুজনই সদর দক্ষিণ উপজেলার পদুয়ার বাজার এলাকায় থাকেন। 

ধর্ষণের অভিযোগে দায়ের করা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সদর দক্ষিণ মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) কমল কৃষ্ণ ধর শুক্রবার দুপুরে মোবাইল ফোনে জানান, ধর্ষণের শিকার ওই তরুণীর মা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। পরে পদুয়ার বাজার বিশ্বরোড এলাকায় অভিযান চালিয়ে চালক সোহেল ও হেলপার বাবু শেখকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তাদের রিমান্ডে চেয়ে আদালতে সোপর্দ করা হয়। 

মামলার অভিযোগ থেকে জানা গেছে, ঢাকা-কুমিল্লা-ঢাকা রুটে চলাচলকরা তিশা প্লাস পরিবহনের যাত্রীবাহী বাস (ঢাকা মেট্রো-ব ১৫-৩৯৮) প্রতিদিনের মতো সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) রাত ১১টার দিকে ঢাকা থেকে কুমিল্লার শাসনগাছার উদ্দেশে ছেড়ে আসে। ঢাকার সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল থেকে ওই বাসে অন্যান্য যাত্রীর সঙ্গে বাড়ি ফিরছিলেন কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার বাসিন্দা ১৮ বছর বয়সী ওই তরুণী। 

ওই তরুণী তাকে শাসনগাছা বাসস্ট্যান্ডে নামিয়ে দেওয়ার জন্য বাসের হেলপারকে অনুরোধ করেন। কিন্তু বাসস্ট্যান্ডে অন্য যাত্রীদের নামিয়ে দিলেও তাকে সেখানে না নামিয়ে কৌশলে সদর দক্ষিণ থানাধীন পদুয়ার বাজার বিশ্বরোডের আল-শাকিল হোটেলের সামনে নিয়ে যায়। সেখানে ভোর ৪টার দিকে বাসের দরজা-জানালা বন্ধ করে পালাক্রমে তাকে ধর্ষণ করে হেলপার বাবু শেখ (২২), চালক সোহেল (২৬) ও সুপারভাইজার আলম (৩২)।  

এরপর চালক সোহেল বাস থেকে নেমে গেলে তরুণীকে পদুয়ার বাজার এলাকায় হেলপার বাবু শেখের বাসায় নিয়ে তারা দুইজন পুনরায় ধর্ষণ করে। সকাল ৬টার দিকে অসুস্থ অবস্থায় ওই তরুণীকে ঘর থেকে বের করে দেয়।  

সুপারভাইজার চান্দিনা উপজেলার আটচাইল গ্রামের কবির মিয়ার ছেলে আলমকে (৩২) গ্রেপ্তারে পুলিশ তৎপর রয়েছে বলে তদন্ত কর্মকর্তা কমল কৃষ্ণ ধর জানিযেছেন।

ইমরুল/বকুল

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়