RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ২৪ জানুয়ারি ২০২১ ||  মাঘ ১০ ১৪২৭ ||  ০৯ জমাদিউস সানি ১৪৪২

মাগুরায় এবার কাত্যায়নী পূজা হবে সীমিত পরিসরে, বসছে না মেলা

মাগুরা সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৪:২৮, ১৯ নভেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৪:৪৪, ১৯ নভেম্বর ২০২০
মাগুরায় এবার কাত্যায়নী পূজা হবে সীমিত পরিসরে, বসছে না মেলা

মাগুরায় এবার কাত্যায়নী পূজা হবে সীমিত পরিসরে, অন্যদিকে প্রতি বছরের মতো মেলাও বসছে না এবার।  করোনার কারণে পূজার আনুষ্ঠানিকতা ছাড়া অন্য সব আয়োজনই থাকবে সীমিত।

কাত্যায়নী পূজা উপলক্ষে প্রতিবছর লাখো মানুষের ঢল নামে মাগুরায়। এ জেলায় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের এই উৎসবের ঐতিহ্য প্রায় শত বছরের। রঙ বেরঙের আলোকসজ্জা ও পূজার আনুষ্ঠানিকতা দেখতে দেশের অন্যান্য এলাকার পাশাপাশি প্রতিবেশী বিভিন্ন দেশের মানুষও মাগুরায় ভিড় জমান। পূজাকে কেন্দ্র করে মাসব্যাপী চলে গ্রামীণ মেলা। এবার সে জমজমাট আয়োজন থাকছে না।

আগামী ২০ নভেম্বর ষষ্ঠীপূজার মধ্যে দিয়ে শুরু হয়ে ২৪ নভেম্বর বিজয়া দশমীতে শেষ হবে এ বছরের কাত্যায়ানী পূজা।

মাগুরা জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ সূত্র জানিয়েছে, এ বছর মাগুরা পৌর এলাকায় ১৬টি, সদর উপজেলায় ৩১টি, শ্রীপুরে ১৩টি, মহম্মদপুরে ১১টি ও শালিখায় ২৩টি মিলিয়ে জেলায় মোট ৯৪টি মন্ডপে কাত্যায়নী পূজা অনুষ্ঠিত হবে।

মাগুরা শহরের বিভিন্ন এলাকায় সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, বিভিন্ন মণ্ডপে প্রতিমা তৈরির কাজ শেষ পর্যায়ে। প্রতিটি মণ্ডপের আয়োজনে করোনার ছাপ স্পষ্ট। 

শহরের নিজনান্দুয়ালী গ্রামের নিতাই গৌর গোপাল সেবাশ্রমের পূজা বিষয়ক সম্পাদক তরুণ ভৌমিক জানান, এবারের আয়োজন কেবল আনুষ্ঠানিকতার মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে। 

তিনি বলেন, ‘আমাদের এই মন্ডপে অন্য বছর যেখানে ১০ থেকে ১২ লাখ টাকা বাজেট থাকে এবার সেখানে দুই থেকে আড়াই লাখ টাকা বাজেট ধরা হয়েছে।’

শহরের নতুন বাজার স্মৃতি সংঘ পূজা মণ্ডপের সাধারণ সম্পাদক প্রণয় ঘোষ বলেন, ‘কাত্যায়নী পূজা মাগুরা জেলার শত বছরের ঐতিহ্য। প্রতিবছর এ উৎসব উপলক্ষে দেশ বিদেশ থেকে লাখো মানুষের ঢল নামে। তবে এ বছর করোনাভাইরাসে আমাদের আত্মীয় স্বজনদের পূজা দেখতে আসার ব্যপারে অনুৎসাহিত করছি আমরা।’

জেলা পূজা উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘প্রশাসন ও জেলা পূজা উদযাপন কমিটির সিদ্ধান্ত অনুসারে এবার মেলা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। রাত ৯টার মধ্যে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পূজার আনুষ্ঠানিকতা শেষ করতে বলা হয়েছে। এছাড়া অন্যবারের মতো আলোকসজ্জা ও গান বাজনা সীমিত আকারের পরিবেশনের জন্য সবাইকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’

মাগুরার পুলিশ সুপার খান মুহাম্মদ রেজোয়ান বলেন, ‘প্রতিবারের মতো মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য পুলিশের টহল থাকবে।  এবারে তার সাথে সবাই যেন স্বাস্থ্যবিধি চলাচল করে ও নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পূজার আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে সে বিষয়ে পুলিশ তৎপর থাকবে।’

শাহীন/টিপু

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়