ঢাকা     বুধবার   ১৭ আগস্ট ২০২২ ||  ভাদ্র ২ ১৪২৯ ||  ১৮ মহরম ১৪৪৪

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ঘাটে নেই জনদুর্ভোগ 

রাজবাড়ী সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:৩৪, ২৮ জুন ২০২২   আপডেট: ২২:৩০, ২৮ জুন ২০২২
দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ঘাটে নেই জনদুর্ভোগ 

এখন ফেরিগুলো বাসের অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে থাকে

চালু হয়েছে দেশের দক্ষিণ-দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার সঙ্গে ঢাকার সংযোগকারী পদ্মা সেতু। এর ফলে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে দীর্ঘ বছরের টানা জনদুর্ভোগের স্থায়ী সমাধান হয়েছে বলে মনে করছেন যাত্রীরা। বাস চালকরা জানান, রাজবাড়ী শহর থেকে এখন মাত্র ২ ঘণ্টা ৩০ মিনিটে রাজধানীতে যাওয়া সম্ভব হচ্ছে।

সড়ক বিভাগের দেওয়া রাস্তার ফলক থেকে জানা যায়, দৌলতদিয়া থেকে খুলনার দূরত্ব ১৭৯ কিলোমিটার। আর দৌলতদিয়া ঘাট থেকে রাজধানীর দূরত্ব ৯৫ কিলোমিটার। এর মধ্যে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটের দূরত্ব মাত্র সাড়ে ৩ কিলোমিটার। সেই হিসাবে রাজবাড়ী থেকে রাজধানীর চেয়ে খুলনার দূরত্ব দ্বিগুণ। দৌলতদিয়া থেকে খুলনার যাতায়াতের থেকে ঢাকায় যাতায়াতের সময়ও কম লাগার কথা। কিন্ত মাত্র সাড়ে ৩ কিলোমিটার নৌপথ পার হতে যত দুর্ভোগ। এই সাড়ে ৩ কিলোমিটার নৌপথ পাড়ি দিতে যাত্রীবাহী পরিবহনের ৭/৮ ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হতো। পণ্যবাহী ট্রাক চালকদের গড়ে ৪৮ ঘণ্টা অপেক্ষায় থাকতে হতো ফেরিঘাটে। সময়ের সঙ্গে অতিরিক্ত টাকা ব্যয় হতো যানবাহন চালকদের। অনেক সময় পচনশীল পণ্য ঘাটে নষ্ট হয়ে যেত। লোকসান হতো ব্যবসায়ীদের। দীর্ঘদিনের এই জনদুর্ভোগ পুঁজি করে মাঝ থেকে লাভবান হতো উভয়ঘাটের কিছু দালাল চক্র। 

দক্ষিণবঙ্গের ২১ জেলার যাত্রীরা অভিযোগ করে বলেন, বছরে বিভিন্ন কারণে বন্ধ থাকে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটের ফেরি। কুয়াশার সময় ঘণ্টার পর ঘণ্টা ফেরি বন্ধ থাকে। বর্ষার সময় তীব্র স্রোত থাকে। শুকনো মৌসুমে নাব্যতা সংকট থাকে। সারা বছর থাকে ফেরি সংকট। এরসঙ্গে যুক্ত হয় কৃত্রিম যানজটও। সব মিলে সারা বছর দক্ষিণ-পশ্চিঞ্চলের ২১টি জেলার মানুষের দুর্ভোগ পোহাতে হতো উভয় ঘাটে।

স্থানীয় সাংবাদিক দৈনিক জনকণ্ঠের রাজবাড়ী সংবাদদাতা বলেন, যানজটের কারণে দৌলতদিয়া ফেরি ঘাটে প্রতিদিন ৬০ হাজার কর্ম ঘণ্টা অপচয় হয়। এখন ৬০ হাজার কর্ম ঘণ্টা অপচয় হবে না। 

তিনি আরও বলেন, পদ্মা সেতু উদ্বোধনের ফলে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে সেই চিরচেনা যানজট হচ্ছে না। উভয় ঘাটে এসে সহজে ফেরি পার হয়ে গন্তব্যস্থলে যেতে পারছে সাধারণ মানুষ।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্পোরেশন (বিআইডাব্লিউটিসি) জানায়, ঘাট যানজটমুক্ত থাকলে মাত্র ৩০ মিনিটে নদী পার হওয়া সম্ভব।

এই রুটের যাত্রী ও চালকদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, পাটুরিয়া ঘাট থেকে রাজধানীর ৯১ কিলোমিটার রাস্তা যেতে দেড় ঘণ্টা সময় লাগবে। রাজবাড়ী শহর থেকে দৌলতদিয়া ফেরি ঘাটের দূরত্ব মাত্র ২৩ কিলোমিটার। এই পথ আসতে সময় লাগবে ৩০ মিনিট। সেই হিসাবে রাজবাড়ী শহর থেকে ঢাকা যেতে সময় লাগবে ২ ঘণ্টা ৩০ মিনিট।

রাজবাড়ীর আরেক সাংবাদিক শামীম রেজা বলেন, রাজবাড়ী জেলা কৃষি নির্ভরশীল। রাজবাড়ীর সঙ্গে রাজধানীর যোগাযোগ সহজ হলে উন্নয়নের ছোঁয়া লাগবে কৃষকদের। অল্প ব্যয়ে সহজে পণ্য নিয়ে রাজধানীতে যেতে পারবে কৃষকরা।

ঢাকাগামী পণ্যবাহী ট্রাক চালক মাসুদ সিকদার বলেন, ‘দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুট যানজট মুক্ত থাকলে আমরা সহজে চলাচল করতে পারবো। ২ ঘণ্টা
৩০ মিনিটে ঢাকায় যেতে পারছি। পদ্মা সেতু সময় বাঁচিয়ে দিচ্ছে।’ 

গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) স্বপন কুমার মজুমদার বলেন, পদ্মা সেতু চালু হওয়ায় স্বস্তি ফিরেছে দৌলতদিয়া ঘাটে। যানবাহনের চাপ যেমন কমেছে, শৃঙ্খলাও ফিরেছে।
 

সুকান্ত/বকুল 

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়