ঢাকা     শনিবার   ১০ ডিসেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ২৫ ১৪২৯

ডেকে নিয়ে টিকা দিলেন শিক্ষক, হাসপাতালে শিক্ষার্থী

পিরোজপুর সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:৩৯, ২৯ আগস্ট ২০২২  
ডেকে নিয়ে টিকা দিলেন শিক্ষক, হাসপাতালে শিক্ষার্থী

পিরোজপুর সদর উপজেলার খামকাঁটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে জোর করে প্রধান শিক্ষক নিজে টিকা দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় গুরুতর অসুস্থ শিক্ষার্থী মিম আক্তারকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিক্যাল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

রোববার (২৮ আগষ্ট) বিকেলে পিরোজপুর জেলা হাসপাতাল থেকে মিমকে খুমেকে ভর্তি করা হয়।

মিম পিরোজপুর সদর উপজেলার দক্ষিণ খামকাঁটা এলাকার মনির হাওলাদারের মেয়ে।

মিমের পরিবার জানায়, গত বৃহস্পতিবার দুপুরে খামকাঁটা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রমা রানী মিত্র তৃতীয় শ্রেণিরর শিক্ষার্থী মিম আক্তারকে রুমে ডেকে নেন। এসময় তিনি নিজেই জোর করে মিমকে একটি টিকা প্রদান করেন। বাড়িতে ফিরে মিম প্রচন্ড জর ও শ্বসকষ্ট অনুভব করতে শুরু করে। পরে তাকে পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এসময় হাসপাতালের চিকিৎসক মিমকে খুলনায় রেফার্ড করেন। 

কি কারণে মিমকে টিকা দিয়েছেন প্রধান শিক্ষক এ বিষয়ে পরিবারের লোকজন কিছু জানাতে পারেননি। তবে প্রধান শিক্ষক উদ্দেশ্য প্রনোদিতভাবে এ কাজ করেছেন বলে ধারণা তাদের। তারা শিক্ষকের বিচার দাবি করেছেন। 

স্কুল ছাত্রী মিম আক্তারের খালা নূপুর আক্তার বলেন, ‘দুই দিন ধরে মিম প্রচন্ড জরে আক্রান্ত। সে ঠিকভাবে হাটা চলা করতে পারছিল না। এমনকি খাবার খেতেও পারে না। তাকে জিজ্ঞেস করলে সে বলে স্কুলের প্রধান শিক্ষক তাকে রুমে ডেকে নিয়ে জোড় করে একটা ইনজেকশন দেয় এতে সে অনেক ব্যাথাও পায়। আমরা এ বিষয়ে সুষ্ঠ তদন্ত করে প্রধান শিক্ষকের বিচার দাবি করছি।’ 

পিরোজপুর জেলা হাসপাতালের চিকিৎসক নাজমীন আক্তার জানান, শিশুটির শ্বসকষ্ট হচ্ছিল। তবে নির্দিষ্ট কোনো কারণ বোঝা যাচ্ছে না। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য শিশুটিকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।’ 

মিম আক্তারের বাবা নুরুল ইসলাম বলেন, খুলনা মেডিক্যাল কলেজে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে মিমকে। সে এখন আগের চেয়ে কিছুটা ভালো আছে। ওর ডান হাতে লাল দাগ রয়েছে।’ 

খামকাঁটা সরকারি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রমা রানী মিত্রের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বিষয়টি অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ দেওয়ার আগে প্রমাণ দিন। প্রমাণ ছাড়া অভিযোগ মানবো না। এ ঘটনাটি সম্পূর্ণ বানোয়াট। আমি কোনো শিক্ষার্থীর শরীরে কোনো টিকা পুশ করিনি।’

তাওহিদুল/ মাসুদ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়