ঢাকা     সোমবার   ২৮ নভেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ১৪ ১৪২৯ ||  ০৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪১৪

শান্তিরক্ষা মিশনে নিহত ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ছেলে জসিম

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:০১, ৪ অক্টোবর ২০২২   আপডেট: ২১:০৩, ৪ অক্টোবর ২০২২
শান্তিরক্ষা মিশনে নিহত ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ছেলে জসিম

নিহত সৈনিক জসিম উদ্দিন

সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিকে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনের অপারেশন কার্যক্রম পরিচালনাকালে তিন শান্তিরক্ষী নিহত হয়েছেন। নিহতদের একজন সৈনিক জসিম উদ্দিন (৩১)। তার বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলার পাহাড়পুর ইউনিয়নের খাটিংগা গ্রামে। 

মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) সন্ধ্যায় আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে নিহতদের তথ্য নিশ্চিত করে।

মুক্তিযোদ্ধা নুরু মিয়ার ছেলে জসিম উদ্দিন সিলেট ৬১ বেঙ্গল রেজিমেন্টে কর্মরত ছিলেন। জসিমের বড় ভাই জুলহাস বলেন, সিলেট ৬১ বেঙ্গল রেজিমেন্ট থেকে সকাল ৯টায় মুঠোফোনে জানিয়েছে আমার ভাই আফ্রিকায় অপারেশন কার্যক্রম পরিচালনাকালে বোমা বিস্ফোরণে নিহত হয়েছেন। সে ১০ বছরের চাকরিজীবনের এই প্রথম (৯ মাস আগে) শান্তিরক্ষা মিশনে আফ্রিকায় ছিলেন। জসিমের ৩ বছর ও ২ বছরের দুইটি ছেলে সন্তান ও স্ত্রী রয়েছে। 

বিজয়নগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এ এইচ ইরফান উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, প্রশাসনের পক্ষ থেকে যেন জসিমের লাশ দ্রুত দেশে আনা যায়; সেজন্য প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সাথে যোগাযোগ করা হবে। তার পরিবারের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করা হবে।

এদিকে আইএসপিআর জানায়, সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিকের পশ্চিম সেক্টরে বোয়ার এলাকায় মোতায়েন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একটি পদাতিক ব্যাটালিয়ন (ব্যানব্যাট-৮) ২০২১ সালের ৯ নভেম্বর থেকে বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে শান্তিরক্ষায় নিয়োজিত রয়েছে। দুর্গম এলাকায় মোতায়েন অন্যতম অস্থায়ী ক্যাম্প কুই হতে পরিচালিত যান্ত্রিক টহলের একটি দল মেজর আশরাফের নেতৃত্বে গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় কাইতা এলাকায় টহলে যায়। বাংলাদেশ সময় রাত ১টা ৩৫ মিনিটে ফেরার পথে টহল কমান্ডার মেজর আশরাফকে বহনকারী প্রথম গাড়িটি মাটিতে পুঁতে রাখা আইইডি বিস্ফোরণে পতিত হয়। এতে গাড়িটি প্রায় ১৫ ফুট দূরত্বে ছিটকে পড়ে। ঘটনাস্থলেই সৈনিক শরিফ, সৈনিক জাহাংগীর ও সৈনিক জসিম মারাত্মকভাবে আহত হন।  

জরুরি ভিত্তিতে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য ১৪৪ কিলোমিটার দূরে বোয়ারে মিনুসকা হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা তাদের মৃত ঘোষণা করেন। আহত শান্তিরক্ষী মেজর মো. আশরাফুল হক চিকিৎসাধীন। বর্তমানে তার অবস্থা স্থিতিশীল। সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিকে নিয়োজিত অন্যান্য শান্তিরক্ষীরা নিরাপদে আছেন। শাহাদাতবরণকারী সেনাসদস্যদের মৃতদেহ দ্রুততম সময়ের মধ্যে দেশে আনার কার্যক্রম চলমান রয়েছে।   

মাইনুদ্দীন/এনএইচ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়