ঢাকা     শুক্রবার   ৩১ মে ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ১৭ ১৪৩১

স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা, কেরানীগঞ্জ থেকে স্বামী গ্রেফতার

গাইবান্ধা প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:১০, ২৩ এপ্রিল ২০২৪  
স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা, কেরানীগঞ্জ থেকে স্বামী গ্রেফতার

স্ত্রী শ্রীমতি পুতুল রানী হত্যা মামলার প্রধান পলাতক আসামী স্বামী শ্রী রম্পেন দাশকে (৩৪) ঢাকার কেরাণীগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব। সোমবার (২২ এপ্রিল) দুপুরে গাইবান্ধা র‌্যাব-১৩, সিপিসি-৩ এর উপ-পরিচালক (মিডিয়া) মাহমুদ বশির আহমেদ স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

গ্রেফতারকৃত রম্পেন দাশ সাঘাটা উপজেলার বোনারপারার (রেলকলোনী, ১নং গেইট) গ্রামের খোঁকা দাশের পুত্র।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সুনিশ্চিত তথ্যের ভিত্তিতে গাইবান্ধা এবং কেরাণীগঞ্জ র‍্যাবের যৌথ অভিযানে গতকাল রোববার (২১ এপ্রিল) সন্ধ্যে সাড়ে ৭টায় শ্রীমতি পুতুল রানী হত্যা মামলার প্রধান পলাতক আসামী এবং তার স্বামী শ্রী রম্পেন দাশকে কেরাণীগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি হত্যা মামলার প্রধান পলাতক আসামী এবং নিহতের স্বামী বলে স্বীকার করেছেন। 

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উজেলার ধুতুর বাড়ি গ্রামের মৃত বিশ্বনাথের মেয়ে ভুক্তভোগী শ্রীমতি পুতুল রানীর (৩২) সঙ্গে আনুমানিক ১৫-১৬ বছর আগে আসামী শ্রী রম্পেন দাশের বিয়ে হয়। অভাব অনুটনের কারণে তারা ঢাকায় গার্মেন্টসে চাকরি করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। তাদের একটি মেয়ে সন্তান  রয়েছে। চলতি মাসের গত ৯ এপ্রিল তারা গ্রামের বাড়িতে আসেন। গত ১১ এপ্রিল দিবাগত রাতে পারিবারিক বিষয় নিয়ে উভয়ের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদ শুরু হয়। একপর্যায়ে স্বামী রম্পেন দাশ ক্ষিপ্ত হয়ে গালিগালাজসহ এলোপাতাড়ি মারপিট করতে থাকেন।

এসময় ভুক্তভোগী স্ত্রী শ্রীমতি পুতুল রানী প্রতিবাদ করলে আসামী ধারালো ছোরা দিয়ে ভুক্তভোগীর পেটে কোপ মারেন। এতে গুরুতর আহত হলে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়। সেখানে  চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভুক্তভোগীর মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর ভাই শ্রী রবিন দাশ গত ১৫ এপ্রিল বাদী হয়ে সাঘাটা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। আসামিকে সোমবার (২২ এপ্রিল) আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সাঘাটা থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

/মাসুম/মেহেদী/

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়