ঢাকা     শুক্রবার   ১৪ জুন ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ৩১ ১৪৩১

ফরিদপুরে এমপির বিরুদ্ধে হুমকির অভিযোগ এনে কাঁদলেন চেয়ারম্যান প্রার্থী

ফরিদপুর প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:২০, ২৭ মে ২০২৪   আপডেট: ২০:২০, ২৭ মে ২০২৪
ফরিদপুরে এমপির বিরুদ্ধে হুমকির অভিযোগ এনে কাঁদলেন চেয়ারম্যান প্রার্থী

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন চেয়ারম্যান প্রার্থী শহিদুল ইসলাম বাবুল

ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলা নির্বাচনের মাত্র দুই দিন আগে সংবাদ সম্মেলনে ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মুজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সনের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শনের অভিযোগ এনে নির্বাচন কমিশনসহ রিটার্নিং কর্মকর্তার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন চেয়ারম্যান প্রার্থী শহিদুল ইসলাম বাবুল।

সোমবার (২৭ মে) দুপুর ১২টার দিকে ফরিদপুর প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে ডেকে শহিদুল ইসলাম তাকে হুমকির বিষয়টি সাংবাদিকদের জানান। আগামী ২৯ মে ফরিদপুর সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে ভোটগ্রহণ করা হবে। 

এ সময় চেয়ারম্যান প্রার্থী শহিদুল ইসলাম বাবুল কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘আমার ৬৮টি কেন্দ্রের নেতাকর্মীদের উপর প্রচণ্ড চাপ, প্রতিনিয়ত তারা হুমকি দিচ্ছে। আমাকে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। আমার নেতাকর্মীরা ভীতসন্ত্রস্ত। আমি এখন টিকে থাকতে পারছি না। এ ব্যাপারে আমি নির্বাচন কমিশন ও রিটার্নিং কর্মকর্তার ত্বরিত হস্তক্ষেপ কামনা করছি।'

সংবাদ সম্মেলনে চেয়ারম্যান প্রার্থী শহিদুল ইসলাম বাবুল তার নির্বাচনী এলাকায় ফরিদপুর-৪ আসনের স্থানীয় সংসদ সদস্য মুজিবুর রহমান নিক্সন চৌধুরীর বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘণ করে তার অসহায়ত্বের কথা তুলে ধরেন। 

শহিদুল ইসলাম বাবুল বলেন, ‘স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানরা, প্রতিদ্বন্দ্বী চেয়ারম্যানরা, প্রাক্তন চেয়ারম্যানরা, এমপি মহোদয়ের লোকেরা হুমকি দিতেছে প্রকাশ্যে সিল মেরে দিবে। কোনো এজেন্ট ঢুকতে দেবে না। এমপি মহোদয় নিজে বলেছেন, আমাকে ৬৮টি কেন্দ্রে এজেন্ট দিতে দেবেন না। তার এই বক্তব্যের ফলে তার নেতাকর্মীরা এত উৎসাহিত হয়েছে যে, আমার জীবন এখন হুমকির মুখে।’ 

তিনি আরও বলেন, ‘নির্বাচনের মনোনয়নপত্র দাখিলের পরে গত ২১ মে নিক্সন চৌধুরী আমার বাড়িতে এসে শত শত লোকের সামনে থেকে আমাকে গাড়িতে তুলে নিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিতে বাধ্য করেন। এরপরও আমি জনগণের দাবির মুখে আবারও নির্বাচনের মাঠে ফিরে আসি।’ 

শহিদুল ইসলাম বাবুল অভিযোগ করেন, ‘গত ২৫ মে নিক্সন চৌধুরী তার নির্বাচনী এলাকার বাসভবনে নির্বাচনী সভা করেন। সেখানে শুধু তিনিই নন, তার অনুসারী ইউপি চেয়ারম্যানেরাও ঘোষণা দেন যে ৬৮টি ভোটকেন্দ্রের একটিতেও আমাকে এজেন্ট দিতে দিবেন না। ওই সভায় এমপি বলেন— আমার প্রতিপক্ষ প্রার্থী কাজী শফিকুর রহমান নয় বরং তিনি নিজেই প্রার্থী।’ 

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মুজিবুর রহমান নিক্সন চৌধুরী তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সত্য নয় উল্লেখ করে সাংবাদিকদের বলেন, ‘যারা জানে যে ভোটে হেরে যাবে, তারা তো সংবাদ সম্মেলন করে এসব উল্টাপাল্টা কথা বলবেই। তিনি বলেন, ২৫ মে তো আমি ঢাকায় ছিলাম তাহলে মিটিং করলাম কীভাবে?’
 

তামিম/বকুল

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়