ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ২৮ মে ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

স্কুল খুললে জমা দিতে হবে সংসদ টিভিতে দেওয়া হোমওয়ার্ক

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৩-২৯ ১:৪৪:২১ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৩-২৯ ১:৫৩:১৫ এএম

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীদের পড়াশুনার মধ্যে রাখতে ‘সংসদ টেলিভিশন’-এ ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণির বিষয়ভিত্তিক শ্রেণি কার্যক্রম শুরু হচ্ছে।

রোববার (২৯ মার্চ) সকাল থেকে প্রচার শুরু হবে এ কার্যক্রমের। ক্লাস শেষে শিক্ষক বাড়ির কাজ দেবেন। শিক্ষার্থীরা স্কুল খোলার পর বাড়ির কাজ জমা দেবে, যা তাদের ধারাবাহিক মূল্যায়নের অংশ হিসেবে বিবেচিত হবে।

শনিবার (২৮ মার্চ) রাতে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা রাইজিংবিডিকে এই তথ্য জানান।

এরই মধ্যে এই কার্যক্রমের আগামীকালের রুটিন প্রকাশ করা হয়েছে।
ষষ্ঠ শ্রেণি : ইংরেজি (সকাল ৯.০৫), বিজ্ঞান (সকাল ৯.২৫)
সপ্তম শ্রেণি : বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয় (সকাল ৯.৫০), বিজ্ঞান (সকাল ১০.১০)
অষ্টম শ্রেণি : গণিত (সকাল ১০.৩৫), ইংরেজি (সকাল ১০.৫৫)
নবম শ্রেণি : তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (সকাল ১১.২০), গণিত (সকাল ১১.৪০), দুপুর ২টা-বিকাল ৫টা পর্যন্ত ক্লাসসমূহ পুনঃপ্রচার করা হবে।

পুনঃপ্রচার এর পর ক্লাসগুলো কিশোর বাতায়নে (www.konnect.edu.bd) পাওয়া যাবে। কিশোর বাতায়ান পরিচালনা করছে একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই)।

এটুআই হলো বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের প্রকল্পের অধীনে গণযোগাযোগ অধিদপ্তর কর্তৃক ৬৪টি জেলা তথ্য অফিস ও চারটি উপজেলা তথ্য অফিসের মাধ্যেমে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে প্রচার কৌশলের মাধ্যমে আন্তঃব্যক্তিক যোগযোগ স্থাপনের লক্ষ্যে প্রচার কার্যক্রম বাস্তবায়ন।

জানা গেছে, প্রথম পর্যায়ে ২৯ মার্চ থেকে ২ এপ্রিল পর্যন্ত ক্লাস রুটিন প্রকাশ করা হয়েছে। প্রতিদিন প্রতিটি শ্রেণির দুটি করে ক্লাস সম্প্রচার করা হবে। ক্লাসের ব্যাপ্তি হবে ২০ মিনিট। সকাল ৯টা ৫ মিনিটে ক্লাস শুরু হবে। দুপুর ১২ টায় ক্লাস শেষ হবে।

তবে ষষ্ঠ শ্রেণির ক্লাস ৯টা ৫মিনিট থেকে ৯টা ৪৫পর্যন্ত, সপ্তম শ্রেণির ক্লাস ৯টা ৫০মিনিট থেকে ১০টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত, অষ্টম শ্রেণির ক্লাস ১০টা ৩৫ মিনিট থেকে ১১টা ১৫ মিনিট পর্যন্ত, নবম শ্রেণির ক্লাস ১১টা ২০ মিনিট থেকে ১২টা পর্যন্ত চলবে।

প্রতিদিন ২টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ক্লাসসমূহ পুনঃপ্রচার করা হবে। পরবর্তী ক্লাস রুটিন আগামী ১ এপ্রিল মাউশির ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে।

মাউশি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. সৈয়দ গোলাম ফারুক সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘পাঠদানকারী শিক্ষক ক্লাস শেষে পাঠদানকৃত বিষয়ের ওপর বাড়ির কাজ দেবেন। প্রত্যেকটি বিষয়ের জন্য শিক্ষার্থীরা আলাদা আলাদা খাতায় তারিখ অনুযায়ী পরীক্ষা সম্পন্ন করবে। স্কুল খোলার পর নিজ নিজ স্কুলের সংশ্লিষ্ট শিক্ষকের কাছে বাড়ির কাজ জমা দিতে হবে। এই বাড়ির কাজের ওপর প্রাপ্ত নম্বর ধারাবাহিক মূল্যায়নের অংশ হিসেবে বিবেচিত হবে।’

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ‘ব্যানবেইস’, মোবাইল ফোন কোম্পানি ‘রবি’ এবং একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টুডিওতে ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণির বিভিন্ন বিষয়ের দুই শতাধিক পাঠদান ক্লাস রেকর্ডিং করা হয়েছে।


ঢাকা/হাসান/সনি