ঢাকা     রোববার   ১৬ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ২ ১৪৩১

রাইসির হেলিকপ্টার দুর্ঘটনা: দ্বিতীয় তদন্ত রিপোর্টে যা আছে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:০১, ৩০ মে ২০২৪   আপডেট: ১৩:৩০, ৩০ মে ২০২৪
রাইসির হেলিকপ্টার দুর্ঘটনা: দ্বিতীয় তদন্ত রিপোর্টে যা আছে

হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসির মৃত্যুর ঘটনায় দ্বিতীয়বারের মতো তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে দেশটির সেনাবাহিনী। গত ১৯ মে আজারবাইজানের সীমান্তবর্তী এলাকায় একটি বাঁধ উদ্বোধন শেষে তিনটি হেলিকপ্টারের বহর নিয়ে ফেরার পথে রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টারটি বিধস্ত হয়। পরবর্তীতে এই দুর্ঘটনা নিয়ে নানা রকম প্রশ্ন ওঠে।

গত ২৩ মে ইরানের সেনাবাহিনী তাদের প্রথম তদন্ত রিপোর্টে জানিয়েছিল, প্রেসিডেন্ট রাইসির হেলিকপ্টার কোনো রকম হামলা শিকার হয়নি, এটা নিখাদ দুর্ঘটনা।

গতকাল বুধবার (২৯ মে) আনাদোলু এজেন্সির খবরে বলা হয়েছে, ওই দুর্ঘটনা নিয়ে দ্বিতীয় তদন্ত রিপোর্টেও ইরান জানিয়েছে, রাইসির হেলিকপ্টার দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে নাশকতার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। 

ইরানের সশস্ত্র বাহিনীর জেনারেল স্টাফ প্রকাশিত সর্বশেষ তদন্ত রিপোর্টটি তৈরি করা হয়েছে দুর্ঘটনাস্থল থেকে সংগৃহীত নমুনা ও হেলিকপ্টারের ধ্বংসাবশেষের ওপর ভিত্তি করে।

এছাড়া হেলিকপ্টারটির ব্যবস্থাপনার বিষয়ও খতিয়ে দেখেছেন তদন্তকারীরা। তাদের দাবি, হেলিকপ্টারটির ব্যবস্থাপনায় কোনো ত্রুটি ছিল না। 

তদন্ত প্রতিবেদনে আরও বলা হয়. দুর্ঘটনার ৬৯ সেকেন্ড আগে পর্যন্ত ক্রুদের সাথে যোগাযোগের মতো জরুরি কোনো ঘটনা ঘটেনি।

হেলিকপ্টারটি উড্ডয়নের সময় আবহাওয়া অনুকূলে ছিল। তবে প্রাপ্ত নথিপত্র ও অন্য দুটি হেলিকপ্টারের পাইলট ও যাত্রীদের বক্তব্যের সাথে সামঞ্জস্য রেখে, ফেরার রুটে আবহাওয়া পরিস্থিতির প্রভাব আরও বিশদে তদন্ত করা উচিত মনে করছেন তদন্তকারীরা। 

ইরানের সামরিক বাহিনী বলেছে, দুর্ঘটনার প্রকৃত কারণ খুঁজে না পাওয়া পর্যন্ত তদন্ত অব্যাহত থাকবে এবং ফলাফল জনগণকে জানানো হবে।

গত ১৯ মে হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট রাইসি, পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আব্দোল্লাহিয়ানসহ তাদের সঙ্গে থাকা মোট ৯ জন।

সেদিন তারা আজারবাইজান সীমান্তবর্তী এলাকায় আরাস নদীর ওপর একটি বাঁধ প্রকল্প উদ্বোধনের পর উত্তর-পূর্বাঞ্চলের শহর তাবরিজে ফিরছিলেন। ঘন কুয়াশার মধ্যে হেলিকপ্টারটি পার্বত্যাঞ্চলে দুর্ঘটনায় পড়ে। দুর্ঘটনাস্থল থেকে পরের দিন ২০ মে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়।

/ফিরোজ/

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়