ঢাকা, বুধবার, ২৭ কার্তিক ১৪২৬, ১৩ নভেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

স্কিন র‌্যাশের রাশ টানতে...

এস এম গল্প ইকবাল : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১১-০২ ১০:৪৭:৫৩ এএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১১-০২ ১১:০২:০৬ এএম

ত্বকের একটি বেশ পরিচিত সমস্যা হচ্ছে স্কিন র‍্যাশ। বিভিন্ন চর্মরোগ অথবা অ্যালার্জিক রিয়্যাকশন অথবা কিছু সাধারণ কারণে আপনার ত্বকে র‍্যাশ ওঠতে পারে। র‍্যাশের স্থানটি লাল হয়ে যায় ও সেখানে চুলকানি বা ব্যথা বা অন্যান্য অস্বস্তি অনুভূত হতে পারে।

আপনার স্কিন র‍্যাশ কোনো মারাত্মক রোগের লক্ষণ না হলে অথবা অ্যালার্জি বা সাধারণ কারণে সৃষ্ট র‍্যাশ কিছু ঘরোয়া উপায়ে তাড়ানো যেতে পারে। ঘরোয়া পদ্ধতিতেও র‍্যাশ অদৃশ্য না হলে অবশ্যই চিকিৎসকের কাছে যাবেন। জেনে নিন স্কিন র‌্যাশ দূর করার কিছু ঘরোয়া উপায়।

ঠান্ডা সেঁক: ত্বকের অ্যালার্জিক রিয়্যাকশন সাধারণত লাল, চুলকানিযুক্ত স্কিন র‍্যাশের মাধ্যমে প্রকাশ পেয়ে থাকে। আপনার ত্বক ভুল বুঝে হুমকি মনে করে এমন কিছুর সংস্পর্শে আসলে এ উপসর্গ দেখা দেয়, যেমন- পয়জন আইভি, সাবান, ময়েশ্চারাইজার ও পোশাক ত্বকে অ্যালার্জিক রিয়্যাকশন সৃষ্টি করতে পারে। অ্যালার্জি জনিত স্কিন র‍্যাশের ব্যথা ও চুলকানি কমাতে ঠান্ডা সেঁক দিতে পারেন। ঠান্ডা সেঁক হচ্ছে এরকম স্কিন র‍্যাশ দূর করার অন্যতম সেরা উপায়।

ওটমিল  : গবেষণা সাজেস্ট করছে, কলোইডাল ওটমিল মিশ্রিত পানি দিয়ে গোসল করেও অ্যালার্জিক স্কিন র‍্যাশ থেকে মুক্তি পেতে পারেন। বোস্টনে অবস্থিত স্কিনকেয়ার ডক্টরসের প্রেসিডেন্ট ও ডার্মাটোলজিস্ট র‍্যানেলা হারশ বলেন, ‘চুলকানি কমাতে ও প্রদাহিত ত্বককে শান্ত করতে কলোইডাল ওটমিল বিস্ময়কর ভূমিকা পালন করে- এটি হিউমিক্ট্যান্ট হিসেবে কাজ করে, অর্থাৎ ত্বকে আর্দ্রতা ধরে রাখে ও আর্দ্রতার বেষ্টনি তৈরি করে। একজিমা ও সোরিয়াসিস প্রশমিত করতে আপনার গোসলের পানিতে এক/দুই কাপ ওটমিল যোগ করুন, কিন্তু নিশ্চিত হোন যে কুসুম গরম পানি ব্যবহার করছেন, কারণ অসহনীয় গরম পানি ত্বকের সমস্যাকে আরো বাড়িয়ে দিতে পারে।’

বেকিং সোডা : আপনার স্কিন র‍্যাশ দূর করতে গোসলের পানিতে ওটমিলের পরিবর্তে বেকিং সোডা ও ব্যবহার করতে পারেন। যদিও স্কিন র‍্যাশ নিরাময়ে বেকিং সোডা কতটা কার্যকর তা নিয়ে বৈজ্ঞানিক প্রমাণ নেই, কিন্তু আপনি চাইলে চেষ্টা করে দেখতে পারেন। ডা. হারশ কুসুম গরম পানির বাথে ১/৪ কাপ বেকিং সোডা মিশিয়ে স্কিন র‍্যাশকে ভেজাতে পরামর্শ দিচ্ছেন অথবা বেকিং সোডা ও পানির পেস্ট সরাসরি আক্রান্ত স্থানে প্রয়োগ করতে পারেন। তিনি ব্যাখ্যা করেন, ‘বেকিং সোডা ছত্রাকরোধী হিসেবে কাজ করে এবং চুলকানির উদ্রেককারী উপাদানগুলোকে শান্ত করে।’

* ক্যালামাইন: ক্যালামইন লোশন ত্বকে প্রশান্তিদায়ক, শীতল অনুভূতি দিয়ে স্কিন র‍্যাশ থেকে মুক্তি দেয়। মায়ো ক্লিনিকের মতে, মাইনর স্কিন ইরিটেশন জনিত চুলকানি, ব্যথা ও অস্বস্তি দূর করতে ক্যালামাইন লোশন বেশ কার্যকর। এ লোশনটি স্কিন র‍্যাশের ক্ষরণ শুকাতে পারে। কিন্তু শিশু বা বয়স্ক লোকের ত্বকের সমস্যায় এ লোশন ব্যবহারের পূর্বে অথবা স্কিন র‍্যাশটি অ্যালার্জিক রিয়্যাকশন মনে করলে আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

(আগামী পর্বে সমাপ্য)

 

ঢাকা/ফিরোজ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন