ঢাকা     সোমবার   ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||  ফাল্গুন ১৪ ১৪৩০

কপ-২৮ এর সাফল্য ৩ বিষয়ের ওপর নির্ভর করছে: জাতিসংঘ মহাসচিব

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:৪০, ১ ডিসেম্বর ২০২৩   আপডেট: ১৬:২২, ১ ডিসেম্বর ২০২৩
কপ-২৮ এর সাফল্য ৩ বিষয়ের ওপর নির্ভর করছে: জাতিসংঘ মহাসচিব

ছবি: রয়টার্স

জলবায়ু সংকট নিরসনে কনফারেন্স অফ দ্য পার্টিজের (কপ) ২৮তম আসরের সাফল্য তিনটি বিষয়ের ওপর নির্ভর করছে জানিয়ে বিশ্ব নেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস।

শুক্রবার (১ ডিসেম্বর) সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে জলবায়ু সম্মেলন কপ-২৮ এ বক্তব্য রাখতে গিয়ে এ বিষয়গুলো উল্লেখ করেন তিনি।

জাতিসংঘ মহাসচিব জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সৃষ্ট সংকটের কথা উল্লেখ করে বলেন, কিছু দিন আগে আমি অ্যান্টার্কটিকার গলিত বরফের ওপর ছিলাম। আমি নেপালের গলিত হিমবাহের মধ্যে ছিলাম। এই দুটি স্পট অনেক দূরত্বে, কিন্তু সংকটে একত্রিত। মেরু বরফ এবং হিমবাহগুলো আমাদের চোখের সামনে অদৃশ্য হয়ে যাচ্ছে, বিশ্বজুড়ে বিপর্যয় সৃষ্টি করছে। ভূমিধস এবং বন্যা হচ্ছে।

বিষয়গুলোকে বিপদ সংকেত আখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, বিশ্ব নেতাদের কার্যকর পদক্ষেপই এ থেকে মুক্তি দিতে পারে।

এ সময় কপ সম্মেলন সফল করতে ৩টি বিষয়ের ওপর গুরুত্বারোপ করেন জাতিসংঘ মহাসচিব। প্রথমত, মারাত্মকভাবে নির্গমন কমানো। দ্বিতীয়ত, জীবাশ্ম জ্বালানি ব্যবহার কমিয়ে নবায়নযোগ্য জ্বালানিকে ব্যবহার বাড়ানো। তৃতীয়ত, কার্বন নির্গমনের জন্য দায়ী নয়, কিন্তু জলবায়ু পরিবর্তনে ভুক্তভোগী দেশগুলোকে তহবিলের প্রতিশ্রুতি নিশ্চিত করা।

তিনি বলেন, উন্নত দেশগুলোকে অবশ্যই দেখাতে হবে যে, কীভাবে তারা ২০২৫ সালের মধ্যে প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী অভিযোজন অর্থায়ন দ্বিগুণ করে বছরে ৪০ বিলিয়ন ডলার করবে। এমনকি, প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী তারা কীভাবে ১০০ বিলিয়ন ডলার সরবরাহ করবে, তা স্পষ্ট করবে।

জলবায়ু রক্ষা করা বিশ্বের নেতৃত্বের সবচেয়ে বড় পরীক্ষা বলেও মন্তব্য করেন অ্যান্তোনিও গুতেরেস।

তিনি বলেন, রেকর্ড নির্গমন, ভয়াবহ দাবানল, মারাত্মক খরা এবং সর্বকালের উষ্ণতম বছর। আমরা প্যারিস চুক্তির লক্ষ্য থেকে মাইল দূরে।

জলবায়ু সংকট এড়াতে নেতৃত্ব, সহযোগিতা এবং রাজনৈতিক সদিচ্ছা প্রয়োজন মন্তব্য করে অ্যান্তোনিও গুতেরেস বলেন, কিন্তু আমাদের পৃথিবী অসম এবং বিভক্ত। আমরা দেখতে পাচ্ছি, দ্বন্দ্বের কারণে অপরিসীম দুর্ভোগ ও তীব্র আবেগ সৃষ্টি হচ্ছে। এ ছাড়া, জলবায়ু বিশৃঙ্খলা অন্যায়ের শিখা উস্কে দিচ্ছে।

জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে মানুষের মধ্যে যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে সেটি উল্লেখ করে তিনি বলেন, গ্লোবাল হিটিং বাজেট নষ্ট করছে, খাবারের দাম বাড়িয়ে দিচ্ছে, জ্বালানি বাজারের ঊর্ধ্বগতি করছে এবং জীবনযাত্রার খরচ-সঙ্কট তৈরি করছে।

বিশ্ব বাঁচাতে নবায়নযোগ্য জ্বালানির প্রয়োজনীয়তায় গুরুত্বারোপ করে তিনি বলেন, এটা আমাদের গ্রহ, আমাদের স্বাস্থ্য এবং আমাদের অর্থনীতির জন্য ভালো। কারণ, এটি আমাদের বায়ু পরিষ্কার করবে, বিশ্বের ক্রমবর্ধমান শক্তির চাহিদা মেটাবে, লাখো মানুষকে সাশ্রয়ী বিদ্যুতের সাথে সংযুক্ত করবে। বাজারে স্থিতিশীলতা ও নিরাপত্তা আনবে।

তিনি দুবাইয়ে চমৎকার আথিতেয়তার জন্য দেশটির রাষ্ট্রপতি শেখ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহিয়ান, আরব আমিরাতের সরকার ও জনগণের প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

কপ-২৮ এর সভাপতি সুলতান আহমেদ আল জাবের ক্ষয়ক্ষতির তহবিলের দ্রুত অনুমোদন করে সম্মেলনের ইতিবাচক সূচনার জন্য তাকে অভিনন্দন জানান জাতিসংঘ মহাসচিব।

পারভেজ/এনএইচ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়