ঢাকা, সোমবার, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২০ নভেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

শরীরের বিস্ময়কর কিছু ঘটনা (পর্ব-১)

এস এম গল্প ইকবাল : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-১০-২৩ ১০:৪৯:২৮ এএম     ||     আপডেট: ২০১৭-১০-২৩ ১২:১৮:৫৪ পিএম
প্রতীকী ছবি

এস এম গল্প ইকবাল : রিডার্স ডাইজেস্টের পক্ষ থেকে মানব শরীরের অদ্ভুত ঘটনা ও সত্য গল্প জানতে বিশেষজ্ঞদের জিজ্ঞাসা করা হয়। বিশেষজ্ঞরা এমন তথ্য দেন যা আপনাকে বিস্মিত করতে পারে। এ সম্পর্কে রিডার্স ডাইজেস্টের প্রতিবেদক টেরেসা ডুমেইনের প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করা হল।

১. বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কি চরণযুগল বাড়ছে?
মানব শরীরের কিছু অদ্ভুত ঘটনা শেষপর্যন্ত প্রকট হয়ে অপ্রত্যাশিত অবস্থার দিকে ধাবিত হয়। বছরের পর বছর জুতো পরিধান এবং হাঁটাচলার পর, চরণের টেন্ডন ও লিগামেন্ট দুর্বল হয়ে যেতে পারে। এ কারণে চরণের আর্চ ফ্ল্যাট বা সমতল হয়ে যেতে পারে, ফলে চরণকে প্রশস্ত ও দীর্ঘ দেখায়। এটি সবার ক্ষেত্রে ঘটে না। অতিরিক্ত ওজন, স্ফীত চরণ বা গোড়ালি, কিছু মেডিক্যাল সমস্যা (যেমন- ডায়াবেটিস) যাদের আছে, তারা এ সমস্যাপ্রবণ হতে পারে। যদি এমনটা ঘটে- চরণের গড় বৃদ্ধির হিসেবে ৭০ অথবা ৮০ সাইজের জুতোর প্রয়োজন হতে পারে।

- কেরি এম. জিনকিন, ডিপিএম, আমেরিকান পোডিয়াট্রিক মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের মুখপাত্র এবং পোডিয়াট্রিক স্পোর্টস ফিজিশিয়ান।

২. গলায় পাকস্থলী চলে এসেছে রোলার কোস্টারে এই অনুভূতির ক্ষেত্রে কি ঘটে?
রোলার কোস্টারে চড়ার সময় মনে হবে আপনার গলায় পাকস্থলী চলে এসেছে। কারণ, আপনার অন্ত্রের নড়নচড়ন হচ্ছে! যখন একটি রোলার কোস্টার শীর্ষস্থানে পৌঁছে, সংযুক্ত টর্চারের জন্য এক সেকেন্ডের জন্য গতি কমিয়ে ফেলে এবং তারপর দ্রুতগতিতে বা উচ্চগতিতে নিচের দিকে নামে, সিটবেল্ট আপনার পশ্চাদ্ভাগকে যথাস্থানে রাখে, কিন্তু শিথিলভাবে সংযুক্ত কিছু অভ্যন্তরীণ অঙ্গ (যেমন- পাকস্থলী এবং অন্ত্র) সামান্য এয়ারটাইম পায়। কিন্তু এরকম বিস্ময়কর ঘটনায় উদ্বিগ্ন হবেন না। এরকম আরোহণে আপনার অন্ত্রাদির ক্ষতি করছেন না, এমনকি ক্রেজিয়েস্ট কোস্টারে চড়লেও (অন্ত্রাদি যথাস্থানে ফিরে আসবে)। আপনার স্নায়ু এই নড়াচড়া শণাক্ত করে, এতে আপনার মনে হবে- পাকস্থলী লাফ দিয়ে গলায় চলে এসেছে।

- মেজেড রিজক, এমডি, ক্লিভল্যান্ড ক্লিনিকের ডাইজেস্টিভ ডিজিজ ইনস্টিটিউটের গ্যাস্ট্রোএন্টারোলজিস্ট।

৩. নারীরা কেন পুরুষের চেয়ে বেশি ঠান্ডাপ্রবণ হয়?
নারীদের উচ্চ শতাংশে বডি ফ্যাট থাকে এবং তাদের কোরের আশেপাশে অধিক তাপ সংরক্ষিত থাকে। এটি তাদের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গসমূহকে সুন্দর ও উষ্ণ রাখে, কিন্তু হাত ও পা-কে নয়। যখন আপনার হাত ও পায়ে ঠান্ডা অনুভূত হবে, আপনার অন্যান্য অংশেও তাই অনুভূত হবে। গবেষকরা প্রকাশ করেন যে, নারীদের লোয়ার থ্রেশহোল্ডের (শরীরের কোনো অংশের আরম্ভস্থান, যেমন- হাত ও পা) জন্য ঠান্ডা লাগার প্রবণতা পুরুষদের তুলনায় বেশি। একই হিমায়িত তাপমাত্রায় নারীর হাতের আঙুলের রক্তনালী পুরুষের চেয়ে বেশি সংকুচিত হয়, যে কারণে নারীরা অধিক দ্রুত ঠান্ডার কবলে পড়ে।

- ক্যাথরিন স্যান্ডবার্গ, জর্জটাউন ইউনিভার্সিটির সেন্টার ফর দ্য স্টাডি অব সেক্স ডিফারেন্সেস ইন হেলথ, এজিং অ্যান্ড ডিজিজের পরিচালক।

৪. বৃদ্ধ ব্যক্তির ঘ্রাণ কি সত্য?
হ্যাঁ, ওল্ড-পার্সন স্মেল বা বৃদ্ধ ব্যক্তির ঘ্রাণের অস্তিত্ব আছে। এই বিস্ময়কর সত্য উপলব্ধি করার জন্য প্রস্তুত হোন। সাম্প্রতিক এক গবেষণার মতে, এছাড়াও স্বাতন্ত্র্যসূচক মিডল-এজড-পার্সন স্মেল বা মধ্যবয়স্ক ব্যক্তির ঘ্রাণ এবং ইয়াং-পার্সন স্মেল বা তরুণের ঘ্রাণও আছে। গবেষণায় পাওয়া যায় যে, মধ্যবয়স্ক ব্যক্তি ও তরুণের তুলনায় বৃদ্ধ ব্যক্তির কম তীব্রতাপূর্ণ ও অধিক সুখকর ঘ্রাণানুভূতি থাকে।

- সায়েন্টিফিক জার্নাল পিএলওএস ওয়ান

৫. রাতে কেন আপনি অন্যকিছু ছাড়া শুধু মূত্রত্যাগের জন্য জেগে ওঠেন?
আমরা অনেকক্ষেত্রে শরীরের অভ্যন্তরীণ জলপ্রণালীর বিস্ময়কর ঘটনার জন্য বিহ্বল হই, কিন্তু এটা প্লেইন বায়োলজি বা সাধারণ জীববিদ্যার ব্যাপার। আপনার অন্ত্রের বাস্তববুদ্ধি ও বোধশক্তিসম্পন্ন নিউরন কোলন কন্সট্র্যাকশন বা মলাশয়ের সংকোচন নিয়ন্ত্রণ করে যা মানব বর্জ্যকে দূরীভূত করে। এটি শরীরের সার্কাডিয়ান রিদম দ্বারাও প্রভাবিত হয়ে থাকে, এই সার্কাডিয়ান রিদমকে ইন্টারনাল ক্লক বা অভ্যন্তরীণ ঘড়িও বলে। এই ইন্টারনাল ক্লক আপনাকে অন্ধকার রাতে ঘুম থেকে জাগিয়ে তুলে (আপনি যখন জেগে উঠবেন, তখনও সার্কাডিয়ান রিদমের নিয়ন্ত্রণী ভূমিকা অব্যাহত থাকে)। তাই অধিকাংশ লোকের মধ্যরাতে কোলন খালি করার প্ররোচনা থাকে না। অন্যদিকে, কিডনিতে উৎপাদিত প্রস্রাবের ধারাবাহিক প্রবাহের রিজার্ভয়ার বা জলাধার হিসেবে ভূমিকা পালন করা ব্লাডার মূত্রত্যাগ করতে না যাওয়ার আগপর্যন্ত নির্দিষ্ট পরিমাণ প্রস্রাব ধরে রাখে। স্বাভাবিকভাবে, আপনি প্রস্রাব না করে ছয় থেকে আট ঘণ্টা ঘুমুতে পারেন, কিন্তু কিছু মেডিক্যাল সমস্যা বা বিছানায় যাওয়ার আগে অতিরিক্ত পানি পান, আপনাকে রাতে বাথরুম ব্যবহারের জন্য জাগ্রত করবে।

- পংকজ জে. পাসরিচা, এমডি, জন্স হপকিন্স সেন্টার ফর নিউরোগ্যাস্ট্রোএন্টারোলজি এর নিউরোগ্যাস্ট্রোএন্টারোলজির পরিচালক।

৬. কেন আমাদের ফিঙ্গারপ্রিন্ট থাকে?
অনেক বিশেষজ্ঞ ধারণা করেন, কোনো কিছু চেপে ধরার সামর্থ্যকে বৃদ্ধি করাই ফিঙ্গারপ্রিন্টের কাজ হতে পারে, কিন্তু কয়েকবছর আগের একটি ব্রিটিশ গবেষণা অন্যকিছু নির্দেশ করছে। গবেষকরা আবিষ্কার করেন যে, ফিঙ্গারপ্রিন্টের সংযোগ রেখার কারণে ফ্ল্যাট বা সমতল ও মসৃণ পৃষ্ঠকে (যেমন- প্লেক্সিগ্লাস) ধরে রাখা কঠিন হয়, কারণ এসব ফিঙ্গারপ্রিন্টের সংযোগ রেখা চর্মের কন্টাক্ট এরিয়াকে সংকুচিত করে ফেলে। এর পরিবর্তে তারা মনে করেন, আমাদের প্রিন্টসমূহ আমাদের চর্মকে অধিক সহজে প্রসারিত করতে সাহায্য করে, যা এখানটাকে ক্ষতি হওয়া থেকে রক্ষা করে এবং ব্লিস্টার বা ফোস্কা প্রতিরোধে ভূমিকা রাখতে পারে। অন্যান্য বিজ্ঞানীদের ধারণা, ফিঙ্গারপ্রিন্ট আমাদের স্পর্শানুভূতি উন্নত করতে পারে। আমরা নিশ্চিতভাবে জানি যে দুই ব্যক্তির ফিঙ্গারপ্রিন্ট কখনো একই হয় না, এমনকি তারা হুবহু একই চেহারার জমজ হলেও।

- ভি. প্যাটিসন লোম্বার্ডি, পিএইচডি, ইউনিভার্সিটি অব ওরিগনের বায়োলজির গবেষণা সহকারী অধ্যাপক।

(আগামী পর্বে সমাপ্য)




রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৩ অক্টোবর ২০১৭/ফিরোজ

Walton
 
   
Marcel