ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৯ কার্তিক ১৪২৬, ১৪ নভেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

‘হু টোল্ড ইউ?’

ক্রীড়া প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১০-১৪ ৫:৩৪:২৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১০-১৪ ৫:৩৪:২৮ পিএম

বাংলাদেশের অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়ার জন্ম ডেনমার্কের কোপেনহেগেনে। তার বাবা-মা বাংলাদেশি। ষাটের দশকে তারা ডেনমার্কে প্রবাসী হয়। পৈত্রিকসূত্রে জামাল বাংলাদেশেরও নাগরিক। তাইতো ২০১৩ সালে তাকে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলে সুযোগ দেওয়া হয়। সেই থেকে তিনি নিয়মিত মুখ বাংলাদেশ দলের।

নিজের যোগ্যতা দিয়ে পেয়েছেন বাংলাদেশের অধিনায়কের আর্মব্যান্ডও। বাংলাদেশে আসার আগে থেকেই তিনি টুকটাক বাংলা জানতেন। এখন তো পুরোপুরি বাংলা বোঝেন। বলতেও পারেন বেশ। যদিও ইংরেজি বলতে তিনি স্বাচ্ছন্দবোধ করেন। সোমবার ভারতের বিপক্ষের ম্যাচকে সামনে রেখে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে জামাল ভূঁইয়াকে ভারতের এক সাংবাদিক প্রশ্ন করেন, জামাল আপনি তো বাংলাদেশের এখনো স্থায়ী বাসিন্দা নন, এটুকু বলার পরই তাকে থামিয়ে দিয়ে জামাল পাল্টা প্রশ্ন করেন? ‘হু টোল্ড ইউ?’।

এরপর সেই সাংবাদিক প্রশ্ন ঘুরিয়ে বলেন, ‘আপনি এর আগে কলকাতায় খেলেছেন। অনেকে আপনাকে চেনে। গ্যালারিতে অনেক দর্শক হবে। তারা হয়তো আপনাকে অনুপ্রাণিত করতে চাইবে গ্যালারি থেকে। আপনাকে উদ্দেশ্য করে কিছু বলতে চাইবে। আপনি কী তাদের সেই বাংলা ভাষা বুঝবেন এবং সেন্টিমেন্টাল হবেন?

জামাল জবাবে জামাল বলেন, ‘তারা বাংলায় যা বলবে সেটা আমি বুঝব। আমি বাংলা বুঝি। বাংলা আমার কাছে আর দশটা ভাষার মতোই। আমি পাঁচটা ভাষায় কথা বলতে পারি। আমি ঠিক জানি না যে সেন্টিমেন্টাল হব কিনা।’

বাংলাদেশ এই ম্যাচে নিঃসন্দেহে আন্ডারডগ। ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে ভারতের সাংবাদিকরা জামালের কাছে জানতে চান আন্ডারডগ হিসেবে খেলাটা তাকে অনুপ্রাণিত করবে নাকি চাপে রাখবে, ‘জামাল হেঁসে বলেন আমি আপনাদের এই বিশ^াস কালকে ভেঙে দিব। কোনো চাপ অনুভব করছি না। আমি ব্যক্তিগতভাবে তো মোটেই না। আমি মনে করি চাপটা ভারতের উপর। তারা যদি ভালো খেলতে না পারে তাহলে দর্শকরা তাদের বিপক্ষে চলে যাবে। আমি সবাইকে বলেছি। তোমরা ম্যাচটি উপভোগ করো। এমন সুযোগ সব সময় আসে না। মুহূর্তটা উপভোগ করো। তিন পয়েন্টকে তাড়া করো। আর ভারত অবশ্যই ফেভারিট। এটা মিথ্যে নয়।’

 

কলকাতা/আমিনুল/শামীম

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন