RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৪ নভেম্বর ২০২০ ||  অগ্রাহায়ণ ১০ ১৪২৭ ||  ০৭ রবিউস সানি ১৪৪২

শেবাচিম হাসপাতালে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের কর্মবিরতি 

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৫১, ৩১ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ২০:০০, ৩১ অক্টোবর ২০২০
শেবাচিম হাসপাতালে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের কর্মবিরতি 

বরিশালের শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসকরা তিন দফা দাবিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি পালন করছেন। আজ শনিবার (৩১ অক্টোবর) দুপুর থেকে ইন্টার্ন ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের ডাকে কর্মবিরতি শুরু হয়েছে।

তাদের দাবিগুলো হলো- হাসপাতালের সহকারী রেজিস্ট্রার ডা. মাসুদ খান কর্তৃক দায়ের করা মামলা প্রত্যাহার, ডা. মাসুদ খানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও গণমাধ্যমে প্রচারিত অসত্য তথ্যের জন্য মানহানির বিচার করা।

গত ২১ অক্টোবর হাসপাতালের মেডিসিন ইউনিট-৪ এর রেজিস্ট্রার ডা. মাসুদ খান হাসপাতাল পরিচালকের কাছে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন। তাতে তাকে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের সভাপতি ডা. সজল পান্ডে এবং সাধারণ সম্পাদক ডা. তরিকুল ইসলামসহ ৮/১০ জন মারধর করেছেন বলে দাবি করা হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা পরের দিন ডা. মাসুদ খানের বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ দাখিল করেন। পরে ডা. মাসুদ খান বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করলে ক্ষিপ্ত হন ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। 

ইন্টার্ন ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সজল পান্ডে বলেন, মেডিসিন বিভাগের সহকারী রেজিস্ট্রার মাসুদ খান সিনিয়র চিকিৎসকদের কক্ষে তালা দেওয়া, জুনিয়র চিকিৎসক, নারী চিকিৎসক এবং কর্মচারীদের সঙ্গে অশালীন আচরণ করে থাকেন। এর প্রতিকার চেয়ে পরিচালকের কাছে চিঠি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এই বিষয়ে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে না।

তিনি বলেন, তাকে (ডা. মাসুদ খান) মারধর করা হয়েছে- এমন মিথ্যা অভিযোগে এনে ইন্টার্ন ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম উল্লেখ করে ৮ থেকে ১০ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাই বাধ্য হয়ে দুপুর থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি শুরু করেছেন। 

হাসপাতাল পরিচালক ডা. মো. বাকির হোসেন বলেন, গত সপ্তাহে ডা. মাসুদ খান এবং ইন্টার্ন চিকিৎসক উভয়পক্ষ থেকে দুটি অভিযোগ পেয়েছেন। অভিযোগ দুটি তদন্তের জন্য তিন সদস্যের কমিটি করা হয়েছে। কমিটিকে পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। প্রতিবেদন হাতে পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

তিনি আরও বলেন, ‘মামলার বিষয়ে আমি থানায় গিয়ে ওসির সঙ্গে কথা বলেছি। এ বিষয়ে একটি সমাধানের পথ খুঁজে বের করছি। কিন্তু ইন্টার্ন চিকিৎসকরা আমাকে সময় না দিয়ে কর্মবিরতির ডাক দিয়েছেন।’ 
 

স্বপন/বকুল 

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়