ঢাকা     বুধবার   ০৭ ডিসেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ২৩ ১৪২৯ ||  ১২ জমাদিউল আউয়াল ১৪১৪

গোপালগঞ্জে পৌর নির্বাচনকে ঘিরে ব্যস্ত ছাপাখানা 

বাদল সাহা  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:৩৭, ৪ জুন ২০২২   আপডেট: ১১:৪৬, ৪ জুন ২০২২
গোপালগঞ্জে পৌর নির্বাচনকে ঘিরে ব্যস্ত ছাপাখানা 

ব্যস্ত সময় পার করছেন ছাপাখানার মালিক ও কর্মচারীরা

গোপালগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সরগরম নির্বাচনী মাঠ। প্রতীক বরাদ্দের পর প্রার্থীরা পোস্টার ছাপাতে ছুটছেন ছাপাখানায়। এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন জেলার ছাপাখানার মালিক ও কর্মচারীরা। 

আগামী ১৫ জুন গোপালগঞ্জ পৌরসভায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে ১০ জন মেয়র, ৬০ জন কাউন্সিলর এবং ২১ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। প্রতীক বরাদ্দের পরপরই নির্বাচনী প্রচারণার প্রধান অনুসঙ্গ প্রতীক সম্বলিত পোস্টার ছাপাতে যান প্রার্থীরা।

জেলার ছোট-বড় শতাধিক প্রেসে এসব পোস্টার ছাপানো হচ্ছে। ফলে সারা বছর কাজ কম থাকলেও এখন কর্মচঞ্চল ছাপাখানার শ্রমিকরা। অল্প সময়ের মধ্যে পোস্টার ডেলিভারি দিতে রাতেও কাজ করছেন তারা। 

এদিকে, গত তিন বছর করোনার কারণে অর্ডার না থাকায় লোকসান গুণতে হয় ছাপাখানার মলিকদের। তবে এবার গোপালগঞ্জ জেলায় আওয়ামী লীগের দলীয় প্রতীকে নির্বাচন না হওয়ায় প্রার্থী সংখ্যা বেড়েছে। বেড়েছে পোস্টার ছাপার কাজ। এ কারণে গত তিন বছরের লোকাসান কাটিয়ে লাভের আশা করছেন তারা।

কথাকলি অফসেট প্রেসের কর্মচারী মো. হারুনুর রশিদ ও মোশাররফ শেখ বলেন, সারা বছর কাজ কম থাকায় আমরা নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে থাকি। এবার প্রার্থীর সংখ্যা বেশি হওয়ায় কাজও বেশি। তাই রাত জেগে আমাদের কাজ করতে হচ্ছে। এতে আমরা বেশি মজুরি পাচ্ছি।

শহরের খান প্রিন্টিং প্রেস মালিক জাকির খান ও কথাকলি অফসেট প্রেসের মালিক মো. একিরূর রহমান খান জানান, গোপালগঞ্জ আওয়ামী লীগের দুর্গ। এখানে যিনি নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করেন তিনি জয়ী হন। ফলে প্রার্থীর সংখ্যা কম থাকে। তবে এবার আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়ন না দেওয়ায় প্রার্থীর সংখ্যা বেশি। ফলে পোস্টার ছাপানোর অর্ডারও বেশি। করোনার কারণে তিন বছর ক্ষতি হয়েছে। এবার ক্ষতি পুষিয়ে লাভ হবে বলে আশা করছি।

বাদল সাহা/ইভা 

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়