ঢাকা     শনিবার   ১০ ডিসেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ২৫ ১৪২৯

মায়ের কোলে শিশু গুলিবিদ্ধ: জামিনে থাকা আসামির মৃত্যু

মাগুরা প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:২৪, ৩ অক্টোবর ২০২২   আপডেট: ১২:৪৮, ৩ অক্টোবর ২০২২
মায়ের কোলে শিশু গুলিবিদ্ধ: জামিনে থাকা আসামির মৃত্যু

মারা যাওয়া আসামি আলী আকবর

মাগুরায় মায়ের গর্ভে শিশু গুলিবিদ্ধের ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলার দুই নম্বর আসামি আলী আকবরের মৃত্যু হয়েছে। রোববার (২ অক্টোবর) দিবাগত রাতে জেলার শ্রীপুর উপজেলার ওয়াপদা কালিনগর এলাকার একটি বাড়িতে তিনি মারা যান।

এদিকে আকবরের মৃত্যুকে অস্বাভাবিক দাবি করেছে পরিবারের সদস্যরা। এ ঘটনার আকবরের প্রথম স্ত্রী রিনা খাতুন ও তার পরিবারকে দায়ী করেছেন তারা।

মারা যাওয়া আকবর (৪৫) মাগুরা শহরতলীর দোয়ারপাড়া এলাকার মোহাম্মদ উল্লাহর ছেলে। 

আকবরের পরিবারের সদস্যরা জানান, তিন বছর আগে স্ত্রী রিনা খাতুনের সঙ্গে আকবরের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। তিন মাস আগে পারভিন সুলতানা নামে আরেকটি মেয়েকে বিয়ে করে সংসার শুরু করেন আকবর। কিন্তু শনিবার সকালে রিনা খাতুন এসে আবকরকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যান। ওই ঘটনার পর সারাদিন তাকে পাওয়া যায়নি। পরে তারা জানতে পারেন রিনা মাগুরার শ্রীপুর উপজেলার ওয়াপদা কালিনগর এলাকায় তার খালাতো বোনের বাড়িতে আকবরকে নিয়ে যায়। সেখানে রাত ৩টার দিকে আলী আকবরের মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে প্রথম স্ত্রী রিনা সুলতানার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। 

আলী আকবরের বড়ভাই ফারুক হোসেন অভিযোগ করেন, ‘বিবাহ বিচ্ছেদের পরও স্ত্রী রিনা খাতুন বিভিন্ন সময় আকবরকে নানাভাবে হয়রানি করে আসছিলেন। নগদ টাকার দাবি করে তিনি যেখানে সেখানে আকবরকে তাড়া করতো। সম্প্রতি দ্বিতীয় বিয়ের খবর জানতে পেরে রিনা খাতুনের হয়রানির মাত্রা আরো বেড়ে যায়। এ বিয়ে সে মেনে নিতে না পারায় তাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে হত্যা করেছে বলে আমরা ধারণা করছি।’

মাগুরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হওয়া যাবে।’

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে মাদক ব্যবসা এবং আধিপত্য বিস্তার নিয়ে মাগুরা শহরের দোয়ারপাড়ে প্রকাশ্য দুটি পক্ষের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এসময় ৮ মাসের প্রসূতি নাজমা বেগম, তার গর্ভে থাকা শিশু এবং মোমিন ভূইয়া (৬৫) নামে এক বৃদ্ধ গুলিবিদ্ধ হন। প্রসূতি নাজমা বেগম এবং গর্ভে থাকা শিশুটি বেঁচে গেলেও ঘটনার দুই দিন পর মোমিন ভূইয়া মারা যান। এ ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার ২ নম্বর আসামি ছিলেন আলী আকবর। তিনি আদালত থেকে জামিনে ছিলেন। 

শাহীন/ মাসুদ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়