ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ৩০ মে ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ১৬ ১৪৩১

রংপুরে নিখোঁজ ছেলেকে ফিরে পেতে বাবার আকুতি

রংপুর প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:০৬, ৩০ মে ২০২৩   আপডেট: ১৮:১৩, ৩০ মে ২০২৩
রংপুরে নিখোঁজ ছেলেকে ফিরে পেতে বাবার আকুতি

রংপুরে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যাওয়ার ১০ দিন পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত ছেলেকে ফিরে না পাওয়ায় দিশেহারা বৃদ্ধ বাবা বীর মুক্তিযাদ্ধা সাইদুর রহমানসহ তাঁর পরিবার। সংবাদ সম্মেলন করে ছেলেকে ফিরে পেতে আকূতি জানিয়েছেন তিনি। 

মঙ্গলবার (৩০ মে) দুপুরে রিপার্টার্স ক্লাব রংপুর- এ অপহরণ হওয়া ছেলে কাওছার হাসান (সাদী) কে উদ্ধারের জন্য সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি। 

সংবাদ সম্মলনে লিখিত বক্তব্যে সাইদুর রহমান বলেন, ‘আমার বাড়ি রংপুরের মিঠাপুকুর উপজলার ইমাদপুর ইউনিয়নের মির্জাপুর দিগর গ্রামে। গত ২১ মে দুপুর আনুমানিক সোয়া ১২টার দিকে আমার নিজ বাড়ি থেকে আমার ছেলে কাওছার হাসান ওরফে সাদি (৩০) কে অজ্ঞাত ৪ থেকে ৫ জন ব্যক্তি তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গাইবান্ধার সুদরগঞ্জ উপজেলার বামনডাঙ্গা সুইচগেইট মোড়ে 'সাদী টেলিকম' দোকানের কথা বলে নোহা মাইক্রো যোগে নিয়ে যায়। সেই থেকে আজ ১০ দিন অতিবাহিত হলেও তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি।’   

লিখিত বক্তব্য তিনি বলেন, ‘এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওই দিন রাতে রংপুরের মিঠাপুকুর থানায় লিখিত অভিযোগ করি। এরপর তার খোঁজ পাওয়া না গেলে ঘটনার ৬ দিনের মাথায় মিঠাপুকুর থানা কর্তৃপক্ষ সাধারণ ডায়েরি করার পরামর্শ দেন। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৭ মে সাধারণ ডায়েরি করি। যার সাধারণ ডায়েরি নং-২০৩৮।’  

এ সময় সাংবাদিকদের বিভিন প্রশ্নের জবাবে মা আফরোজা বলেন, ‘আমার ছেলে সাদীর বয়স ৩০ বছর। দীর্ঘ এই সময় তার নামে অভিযাগ আমরা শুনিনি। বরং সাদী পরহেজগার মানুষ। সেদিন হঠাৎ বাড়িতে কয়েকজন লোক এসে ছেলের দোকানে জরুরি কাজ আছে বলে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর থেকে ছেলেকে আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না এবং তার মোবাইল ফোনও বন্ধ।’ ছেলেকে বের করে দেন বলে কান্নায় ভেঙে পড়েন মা আফরোজা।

এ সময় অপহৃত সাদীর স্ত্রী হাসনা বেগম, তার দুই শিশু সন্তান আছিয়া (৬) ও মোহাম্মদ আলী (২) বাবাকে ফিরে পেতে কান্নায় ভেঙে পড়ে। এ সময় সাদীর মেয়ে শিশু আছিয়া তার বাবার ছবি হাতে নিয়ে বলেছিল, ‘আমার বাবাকে এনে দেন’। 

এ বিষয়ে মিঠাপুকুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তাফিজার রহমানের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি। পরে সংশ্লিষ্ট জিডির তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মামুনুর রশিদ জানান, ‘আমরা জিডির প্রাথমিক তথ্যানুন্ধানে ঘটনাস্থলে যাই এবং সাদীর বিষয়ে তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করি। তার বিরুদ্ধে খারাপ অভিযাগ পাইনি। তাকে উদ্ধারে আমাদের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।’ 
 

আমিরুল/বকুল 

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ