ঢাকা     শুক্রবার   ০১ মার্চ ২০২৪ ||  ফাল্গুন ১৭ ১৪৩০

যুক্ত হচ্ছে সার্কের চার দেশ 

বুধবার খুলনা-মোংলা ট্রেন চলাচল উদ্বোধন 

মুহাম্মদ নূরুজ্জামান, খুলনা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:২৪, ৩০ অক্টোবর ২০২৩  
বুধবার খুলনা-মোংলা ট্রেন চলাচল উদ্বোধন 

খুলনার সঙ্গে মোংলা বন্দরের যোগাযোগ সহজতর করতে নির্মিত হয়েছে খুলনা-মোংলা রেললাইন। আগামী বুধবার (১ নভেম্বর) আনুষ্ঠানিকভাবে এই রুটে ট্রেন চলাচল উদ্বোধন করা হবে। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যৌথভাবে ভার্চুয়ালি এই রেলপথ উদ্বোধন করবেন। এর ফলে ভারত, নেপাল ও ভুটান বাণিজ্যিকভাবে যুক্ত হবে বাংলাদেশের সঙ্গে। এতে আরও গতিশীল হবে মোংলা বন্দর।

এদিকে, উদ্বোধনের আগেই সোমবার (৩০ অক্টোবর) পরীক্ষামূলকভাবে খুলনা-মোংলা রুটে চলেছে ট্রেন। 

প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা জানান, ট্রানজিট সুবিধার আওতায় ভারত, নেপাল ও ভুটানে পণ্য পরিবহন সহজ করতে ২০১০ সালে খুলনার ফুলতলা রেলস্টেশন থেকে মোংলা বন্দর পর্যন্ত রেলপথ স্থাপন প্রকল্প হাতে নেয় সরকার। ২০১০ সালের ২১ ডিসেম্বর একনেকে অনুমোদন পায় প্রকল্পটি। ভারত সরকারের ঋণসহায়তায় প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে ভারতীয় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান লার্সেন অ্যান্ড টার্বো ও ইরকন ইন্টারন্যাশনাল। প্রথমে প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছিল ৩ হাজার ৮০১ কোটি ৬১ লাখ টাকা। ২০১৩ সালের ডিসেম্বরে প্রকল্পটি শেষ হওয়ার কথা ছিল। কয়েক ধাপে মেয়াদ বাড়িয়ে ২০২৪ সালের অক্টোবর পর্যন্ত করা হয়। সর্বশেষ প্রকল্পের ব্যয় বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ২৬০ কোটি ৮৮ লাখ ৫৯ হাজার টাকা।

এই প্রকল্পের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল রূপসা নদীর ওপর সেতু নির্মাণ। ৫.১৩  কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের রেলসেতুর কাজ পুরোপুরি শেষ। ফুলতলা থেকে মোংলা পর্যন্ত ৬৪ কিলোমিটার পথ হলেও স্টেশনগুলোর ডাবল লাইন হিসাব করে এই প্রকল্পে রেলপথ বসবে ৯১ কিলোমিটার। এরই মধ্যে প্রকল্পের ৮১ কিলোমিটার রেলপথ বসানো সম্পন্ন হয়েছে। ফুলতলা থেকে মোংলা পর্যন্ত মোট ৯টি প্লাটফর্ম রাখা হয়েছে। সবগুলোর নির্মাণও সম্পন্ন হয়েছে। এছাড়া শেষ হয়েছে ১০৭টি ছোট ব্রিজ ও ৯টি আন্ডারপাস নির্মাণকাজও।

প্রকল্প পরিচালক মো. আরিফুজ্জামান জানান, খুলনা-মোংলা রেললাইন নির্মাণ প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছিল ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে। এই রেলপথের দৈর্ঘ্য প্রায় ৯০ কিলোমিটার। এ প্রকল্পে ব্যয় হয়েছে ৪ হাজার ২৬০ কোটি টাকা।

তিনি আরও জানান, বুধবার উদ্বোধনের আগে আজ সোমবার এই রুটে ট্রেন পরীক্ষামূলকভাবে চালানো হয়েছে। ফুলতলা স্টেশন থেকে ট্রেনটি মোংলা বন্দরে যায়। আগামীকাল মঙ্গলবারও ট্রেনটি চালানো হবে। 

খুলনা চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি কাজী আমিনুল হক বলেন, খুলনা-মোংলা রেল যোগাযোগের মাধ্যমে ভারত, নেপাল ও ভুটান বাণিজ্যিকভাবে আমাদের দেশের মোংলা বন্দর ব্যবহার করবে। এর মাধ্যমে খুলনার অর্থনৈতিক উন্নয়ন বৃদ্ধি পাবে।  

নূরুজ্জামান/মাসুদ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়