ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ২৩ মে ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ৯ ১৪৩১

নোয়াখালীর পোলট্রি ফিড কারখানায় ‘হেলমেট’ বাহিনীর হামলা

নোয়াখালী প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৩২, ২০ নভেম্বর ২০২৩   আপডেট: ১৬:৩৯, ২০ নভেম্বর ২০২৩
নোয়াখালীর পোলট্রি ফিড কারখানায় ‘হেলমেট’ বাহিনীর হামলা

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে একটি পোলট্রি ফিড কোম্পানির কারখানার কার্যালয়ের হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে ‘হেলমেট’ বাহিনী বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। রোববার (১৯ নভেম্বর) রাত ১০টার দিকে উপজেলার সিরাজপুর ইউনিয়নের এ কে পোলট্রি ফিড কারখানায় ঘটনাটি ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গতকাল রাত ১০টার দিকে ৩০ থেকে ৪০টি মোটরসাইকেলে করে ‘হেলমেট’ বাহিনীর সদস্যরা ইউনিয়নের গোয়ালের পোল এলাকার বসুরহাট-কবিরহাট সড়কের পাশে থাকা এ কে পোলট্রি ফিড কারখানার সামনে জড়ো হন। তখন ফটকে থাকা নিরাপত্তারক্ষীরা ভয়ে কারখানার ভেতরের দিকে চলে যান। এরপর হেলমেট বাহিনীর সদস্যরা কারখানার কার্যালয়ের একটি কক্ষে ঢুকে হামলা ও ভাঙচুর শুরু করেন। একই সময় তারা কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটান। ভয় ও আতঙ্কে কারখানার পরিচালক ও কর্মচারীরা নিরাপদ স্থানে চলে যান। প্রায় ৪০ মিনিট পর কারখানা থেকে দুর্বৃত্তরা বের হয়ে আসেন। পরে কারখানার লোকজন জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে ফোন করেন। খবর পেয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানার পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।  

কারখানার পরিচালক শরফুদ্দিন ফারুক বলেন, ২০০০ সালে তার বাবা আবুল কালাম পোলট্রি ফিড কারখানাটি প্রতিষ্ঠা করেন। তাদের পরিবার কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সম্পৃক্ত নয়। সবার সঙ্গেই তাদের সুসম্পর্ক রয়েছে। গতকাল রাতে মুখোশ ও হেলমেট পরিহিত শতাধিক ব্যক্তি মোটরসাইকেল করে তাদের কারখানায় আসেন। তারা কারখানার অফিস কক্ষে ব্যবহৃত কম্পিউটার ও আসবাবপত্রসহ সবকিছু ভেঙে গুঁড়িয়ে দেন। এ সময় তারা অন্তত ১৫টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করেন। হামলা ও ভাঙচুরে তাদের কয়েক লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ঘটনার সময় তিনি কারখানাতেই ছিলেন। হামলাকারীদের ভাঙচুর করতে দেখে তিনি দৌঁড়ে ভেতরের দিকে ঢুকে যান। এরপর তিনি থানায় ফোন দেন। প্রথম কেউ ফোন ধরেননি। পরে তিনি জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে ফোন দেন। হামলাকারীরা চলে যাওয়ার পর পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। তারা জানতে চায়, কারা হামলা চালিয়েছে। কিন্তু হামলাকারীদের সবার মুখে মাস্ক ও মাথায় হেলমেট থাকায় তিনি কাউকে চিনতে পারেননি। এ ঘটনায় তারা আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক স্থানীয় বাসিন্দা জানান, গত ১ মাস ধরে কোম্পানীগঞ্জে তৎপর এই ‘হেলমেট’ বাহিনী। ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় এক ক্ষমতাধর নেতার মদদ রয়েছে ‘হেলমেট’ বাহিনীর সদস্যদের প্রতি। গত কয়েক দিন আগে বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের অন্তত ১৪ জন নেতাকর্মীর বাড়িতেও হামলা ও ভাঙচুর চালিয়েছে এই হেলমেট বাহিনী। এসব ঘটনায় ভয়ে কেউ প্রশাসন ও পুলিশের কাছে অভিযোগ করছেন না। 

কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রণব চৌধুরী বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। ঘটনাস্থলে গিয়ে হামলা-ভাঙচুরের সত্যতা পাওয়া গেছে। তবে কে বা কারা হামলা করেছে তা কারখানার মালিক জানাতে পারেননি।  

সুজন/মাসুদ

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়