ঢাকা     রোববার   ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||  ফাল্গুন ১২ ১৪৩০

শীতের সন্ধ্যায় জমজমাট ব্যাডমিন্টন উৎসব

মোসলেম উদ্দিন, দিনাজপুর || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১০:৩৬, ২৯ নভেম্বর ২০২৩   আপডেট: ১০:৩৮, ২৯ নভেম্বর ২০২৩
শীতের সন্ধ্যায় জমজমাট ব্যাডমিন্টন উৎসব

কার্তিক মাস শেষ, চলছে গ্রহায়ণের মাঝামাঝি, পড়তে শুরু করেছে শীত। আর তাই খোলা মাঠের জমিতে কোর্ট কেটে লাইটের আলোয় চলছে খেলা। র‌্যাকেটের বাড়ি খেয়ে হাওয়ায় উড়ছে কর্ক। কেউ সমস্বরে পয়েন্ট গুনছেন, কেউবা সুযোগ পেয়ে সজোরে ‘চাপ’ বসিয়ে দিচ্ছেন বিপক্ষ দলের কোর্টে। কোর্টের পাশে র‌্যাকেট হাতে দাঁড়িয়ে অন্যান্য খেলোয়াড়, দর্শক। র‌্যাকেটের বাড়ি আর দর্শকের হাত তালিতে মুখর পুরো এলাকা।

এ চিত্র দিনাজপুরের হিলিতে। শীতের আগমনী বার্তায় ভারত সীমান্তবর্তী শহরটির শিশু, কিশোর, যুবকসহ মধ্য বয়সীরা এখন ব্যাডমিন্টন খেলায় মেতে উঠেছেন।

শীতের সন্ধ্যায় পাড়া কিংবা মহল্লায়, শহর কিংবা গ্রামে ব্যাডমিন্টন খেলার এ চিত্র খুব পরিচিত। শীত এলেই বাড়ির আঙিনা বা অন্য কোথাও জমে ওঠে এই মৌসুমি খেলা। সন্ধ্যা নামার পরপরই র‌্যাকেট নিয়ে মাঠে হাজির হন অফিস ফেরত কর্মজীবী ও স্কুল কলেজর শিক্ষার্থীরা। তাদের হই-হুল্লোড়ে মুখর থাকে পুরো এলাকা।

হিলির যুবসমাজ থেকে শুরু করে বিভিন্ন বয়সী ছেলে-মেয়েরা সন্ধ্যার পর থেকেই ব্যাডমিন্টন খেলায় মেতে ওঠেন। বিশেষ করে রাত ৮ টা থেকে ১০টা পর্যন্ত এই খেলায় অংশ নেওয়া মানুষের সংখ্যা থাকে বেশি।

মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) সন্ধ্যার পর হিলি রেলওয়ে একতা ক্লাব চত্বরে গিয়ে দেখা যায়, ব্যাডমিন্টন খেলায় মেতে উঠেছে শিশু কিশোর ও যুবকেরা। ব্যাডমিন্টন নেটের দুই পাশের খুঁটিতে বিদ্যুতিক বাল্ব জ্বালিয়ে খেলছেন তারা। 

মুসা মিয়া নামের একজন খেলোয়াড় রাইজিংবিডিকে বলেন, ব্যাডমিন্টন আমার খুবি প্রিয় খেলা। শীতের শুরুতেই আমরা  এই খেলা শুরু করেছি। প্রতিদিন সন্ধ্যা হলেই এখানে ব্যাডমিন্টন খেলতে আসি। যেকোনো বদ অভ্যাস পরিহার করতে হলে খেলার অভ্যাস করতে হবে। নিজেকে সুস্থ এবং ভাল রাখার জন্য অবশ্যই খেলাধুলার প্রয়োজন আছে।

খেলোয়াড় রাজন আহমেদ বলেন, স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য প্রতিটি মানুষের খেলাধুলার খুবি প্রয়োজন। খেলাধুলা মন এবং শরীরকে সুস্থ রাখে। আমি ছোট বেলা থেকে খেলাধুলা পছন্দ করি। তবে ব্যাডমিন্টন আমার প্রিয় খেলা।

ব্যাডমিন্টন কোর্টের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা দর্শক নিজাম উদ্দিন বলেন, প্রতিদিন সন্ধ্যা হলেই এখানে খেলা দেখতে আসি। ব্যাডমিন্টন আমার একটি পছন্দের খেলা। এখন খেলি না, খেলা দেখতে আসি, দেখেও অনেক তৃপ্তি পাই।

রেলওয়ে একতা ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বুলু রাইজিংবিডিকে বলেন, আমাদের এই এলাকাটি সীমান্তবর্তী হওয়ায় মাদকের প্রবণতা বেশি। শীত আসলেই বিভিন্ন বয়সের খেলোয়াড়রা আমাদের ক্লাব চত্বরে ব্যাডমিন্টন খেলতে আসেন। খেলাধুলার মধ্যে ডুবে থাকলে শরীরের পাশাপাশি মনও ভালো থাকে।

/এসবি/

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়