ঢাকা     শনিবার   ০২ মার্চ ২০২৪ ||  ফাল্গুন ১৮ ১৪৩০

বগুড়ায় র‌্যাম্পে হাঁটানো হলো গরু

বগুড়া প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৪৮, ৮ ডিসেম্বর ২০২৩   আপডেট: ২১:৪২, ৮ ডিসেম্বর ২০২৩

এ যেন ফ্যাশন শো’র মঞ্চ। র‌্যাম্পে হাঁটবেন কোনো সুদর্শনা। বাজনা বাজছে। ক্যামেরা প্রস্তুত। মঞ্চের চারপাশে শত শত দর্শকের ভিড়। প্রত্যেকের চোখে বিস্ময়। অনেকের উচ্ছ্বাস উপচে পড়ছে! কিন্তু এই বিস্ময় বা উচ্ছ্বাস কোনো ফ্যাশন শো’র জন্য নয়। মঞ্চে প্রদর্শিত হলো দেশ-বিদেশের বিভিন্ন জাতের গরু। ফলে দর্শকের কৌতূহল একটু বেশিই ছিল। আয়োজনেও ছিল চমক।

বগুড়ায় দুইদিনব্যাপী ‘উত্তরবঙ্গ গরু মেলা’য় দেখা গেল এ দৃশ্য। 

ডেইরি ফার্মার্স এসোসিয়েশনের আয়োজনে শুক্রবার বেলা ১১টায় বগুড়ার টিএমএসএস বিনোদন পার্কে ব্যতিক্রমধর্মী এ মেলার উদ্বোধন করা হয়। মেলায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বগুড়া-৬ আসনের সংসদ সদস্য রাগেবুল আহসান রিপু।

উত্তরবঙ্গের ১৬টি জেলার আড়াইশ খামারি ৪৫০টি গরু নিয়ে মেলায় উপস্থিত হয়েছেন। মেলায় স্টল রয়েছে ২১৬টি। গরুর পাশাপাশি মেলায় গয়াল, মহিষ, দুম্বা, ছাগলসহ কুকুর, বেড়াল, বিদেশি জাতের মুরগিসহ বিভিন্ন পাখিও রয়েছে। 

মেলার নির্ধারিত স্থানে আয়োজন করা হয়েছে পশু প্রদর্শনীর। সেখানেই ফ্যাশন শো’র ভঙ্গিতে ব্রাহামা, শাহীওয়াল, আরসিসি, সিজারিয়ান, ভুট্টী, নর্থ বেঙ্গল গ্রেসহ দেশি-বিদেশি বিভিন্ন জাতের গরুর প্রদর্শনী হয়েছে। বলা যায়, মেলার মূল আকর্ষণ ছিল ‘গরুর র‌্যাম্প শো’। 

দুপুর ২টায় র‌্যাম্পের মঞ্চে খামারিরা তাদের গরু নিয়ে একে একে প্রবেশ করেন। এরপর মিউজিকের তালে তালে গরুগুলোকে র‌্যাম্পে হাঁটানো হয়। এ সময় গরুর মালিকেরা গরুর জাত, বয়স এবং দাম উপস্থিত সবাইকে জানান। শো শেষে তারা গরু নিজ নিজ স্টলে নিয়ে যান। 

সাদাত নামে এক দর্শনার্থী বলেন, আমি আমার মেয়েকে নিয়ে মেলায় গরু দেখতে এসেছি। অনেকগুলো গরু দেখলাম। আমার মেয়ে এনজয় করছে! অনেক গরু এর আগে দেখিনি। এ ছাড়া গরু যে এত বড় হয় নিজে না দেখলে বিশ্বাস হতো না!

শাম্মি নামে আরেক দর্শনাথী বলেন, অনেক কৌতূহল নিয়ে মেলায় এসেছি। ভালো লেগেছে। গেটের সামনে বিশাল বড় একটা গরু। আবার কিছু দূর যেতেই ছোট একটা গরু দেখতে পেলাম। যেগুলো কখনও দেখিনি। অনেক এক্সাইটেড আমি! বাচ্চাদেরও নিয়ে এসেছি। তারাও খুব খুশি।

দিনাজপুরের হিলি থেকে মেলায় আসা গোলাম রসুল জানালেন গরু দেখার উদ্দেশ্যেই মেলায় এসেছেন তিনি। কীভাবে গরু প্রজনন এবং পালন করা হয় বিস্তারিত জানতে চান তিনি। 

পাবনার ঈশ্বরদীর বিসমিল্লাহ এগ্রো ফার্মের স্বত্ত্বাধিকারী পাভেল ভারতের রাজস্থানের কাংরাজ জাতের শিং লম্বা দুটি গরু মেলায় এনেছেন। দাম হাঁকাচ্ছেন ১৫ লাখ টাকা। পাভেল গরুর বিভিন্ন জাত নিয়ে কাজ করেন। অনলাইনেই মূলত তিনি গরু বিক্রি করেন।  

পাভেল বলেন, আমরা চেষ্টা করি এক্সক্লুসিভ জাতের গরু নিয়ে আসার যাতে সবার নজর কাড়ে। সেই লক্ষ্যে এর মধ্যে রাজস্থানী হির, রাজস্থানের কাংরাজ, এলবিনো মহিষসহ বিভিন্ন জাতের গরু এবং মহিষ নিয়ে মেলায় এসেছি।

বগুড়া ভাণ্ডার এগ্রো ফার্মের স্বত্বাধিকারী ও উত্তরবঙ্গ গরু মেলার প্রধান সমন্বয়ক তৌহিদ পারভেজ বিপ্লব বলেন, মেলার উদ্দেশ্য প্রান্তিক খামারিদের সৌখিন খামারিদের সঙ্গে সেতুবন্ধন স্থাপন করে দেয়া। যাতে প্রান্তিক খামারিরা তাদের গবাদিপশু ভালো দামে বিক্রি করতে পারে। প্রত্যেক কোরবানি ঈদে প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে হতাশা থাকে যে তারা গরু বিক্রি করতে পারেনি। এই হতাশা দূর করতে সারা বাংলাদেশের খামারিদের এখানে উপস্থিত করেছি। বগুড়া শহরের প্রায় সব হোটেল বুকড। যারা গরু কিনবেন তারা মেলায় আসছেন। আশা করছি, মেলার ৮০ শতাংশ গরু বিক্রি হয়ে যাবে। যার মূল্য প্রায় ১৫ কোটি টাকা। 

বাংলাদেশ ডেইরি ফারমার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি ইমরান হোসেনের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. নাহিদ রশীদ, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক ডা. এমদাদুল হক তালুকদার, এসিআই এগ্রি বিজনেসের প্রেসিডেন্ট ড. এফ এইচ আনসারি।

এনাম///

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়