ঢাকা     সোমবার   ০৪ মার্চ ২০২৪ ||  ফাল্গুন ২০ ১৪৩০

শীত ও ঘন কুয়াশা 

বিপর্যস্ত নীলফামারীর জনজীবন, বিমান ওঠানামা বন্ধ 

নীলফামারী প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:০৪, ১১ ডিসেম্বর ২০২৩   আপডেট: ১৩:০৫, ১১ ডিসেম্বর ২০২৩
বিপর্যস্ত নীলফামারীর জনজীবন, বিমান ওঠানামা বন্ধ 

হিমালয়ের পাদদেশে অবস্থিত উত্তরের জেলা নীলফামারীতে প্রতিদিনই নামছে তাপমাত্রা। দুই দিন ধরে ঘন কুয়াশায় রাত থেকে দুপুর পর্যন্ত আচ্ছন্ন থাকছে। ঘন কুয়াশার কারণে দিনের বেলায়ও হেডলাইট জ্বালিয়ে চলাচল করছে বিভিন্ন যানবাহন। সৈয়দপুর বিমানবন্দরে উড়োজাহাজ ওঠানামায়ও বিঘ্ন ঘটছে। 

সোমবার (১১ ডিসেম্বর) সকাল ৬ টায় সৈয়দপুরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১৩ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা গত কয়েক দিনের চেয়ে কম। দুই-এক দিনে এই তাপমাত্রা আরও কমবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। 

এদিকে ঘন কুয়াশার কারণে সড়কে হেডলাইট জ্বালিয়ে ধীর গতিতে চলাচল করছে বিভিন্ন যানবাহন। এতে দূরপাল্লার যানবাহনগুলো নির্দিষ্ট সময়ে গন্তব্যে পৌঁছাতে পারছে না। এমন আবহাওয়ার কারণে অফিসগামী ও শ্রমজীবী মানুষেরা কিছুটা বিপাকে পড়েছে। এছাড়া ঠান্ডা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শীতজনিত রোগে আক্রান্তের হার বেড়েছে। বিশেষ করে শিশু ও বয়স্করা বেশি পরিমাণে আক্রান্ত হচ্ছেন।হাসপাতালগুলোতে রোগীর চাপও বেড়েছে।

ইজিবাইক চালক মোজাম হোসেন বলেন, গত দুইদিন ধরে বেশি ঠান্ডা লাগছে। দুইটা সোয়েটার পরেও ঠান্ডা কাটছে না। লোকজনও তেমন বাইরে বের হচ্ছে না। 

বসুনিয়া এলাকার কৃষক মোসলেম উদ্দিন বলেন, ঠান্ডায় হাত-পা অবশ হয়ে আসছে। তবু সবজি তুলে বাজারে বিক্রি করতে হবে, না হলে সংসার চলবে কি করে।

মুদি দোকানদার রফিকুল ইসলাম বলেন, কয়েকদিন আগেও সকাল ৬ টায় দোকান খুলতাম। গত দুইদিন ধরে ঘন কুয়াশার কারণে সকাল সাড়ে ১০ টায় দোকান খুলছি। কোনো ক্রেতা নেই, তাই বিক্রিও কম।

এদিকে সোমবার সকাল ৮টা থেকে ১১টা পর্যন্ত নীলফামারীর সৈয়দপুর বিমানবন্দরে কোনো ফ্লাইট ওঠা-নামা করেনি। এতে বেসরকারি দুই কোম্পানির দুইটি ফ্লাইটের প্রায় ৮০ জন যাত্রী বিমানবন্দরে আটকা পড়েছেন। তবে কোনো ফ্লাইট বাতিলের আশঙ্কা নেই বলে জানিয়েছে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

সৈয়দপুর বিমানবন্দরের ম্যানেজার সুপ্লব কুমার ঘোষ বলেন, ঘন কুয়াশার কারণে বিমানবন্দরে ফ্লাইট ওঠা-নামা ব্যাহত হয়েছে। দৃষ্টিসীমা বাড়লে ফ্লাইট চলাচল স্বাভাবিক হবে। কোনো ফ্লাইট বাতিল হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

ঘন কুয়াশায় দৃষ্টিসীমা কম থাকায় গতকাল রোববার রাত ৯ টায় নভোএয়ারের একটি ফ্লাইট ঢাকা থেকে সৈয়দপুর বিমানবন্দরে অবতরণ করতে না পেরে ফের ঢাকায় ফিরে গেছে।

বিমানবন্দর আবহাওয়া অফিসের কর্মকর্তা লোকমান হোসেন বলেন, সাধারণত ২ হাজার মিটার দৃষ্টিসীমা থাকলে রানওয়েতে বিমান ওঠা-নামা করতে পারে। সকাল ৯টায় বিমানবন্দর এলাকায় দৃষ্টিসীমা ছিল ১০০ মিটার। ফলে ঢাকা থেকে কোনো ফ্লাইট এখানে অবতরণ করতে পারেনি।

নীলফামারীর জেলা প্রশাসক পঙ্কজ ঘোষ বলেন, শীত মোকাবিলায় পর্যাপ্ত সরকারি সহায়তা প্রস্তুত রয়েছে। শীতবস্ত্র হিসেবে জেলার ৬ উপজেলা ও চার পৌরসভায় ২৫ হাজার পিস কম্বল পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। এখনও প্রায় ৫ হাজার মজুদ আছে।

সিথুন/টিপু

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়