ঢাকা     রোববার   ১৪ জুলাই ২০২৪ ||  আষাঢ় ৩০ ১৪৩১

ডিমের দামে রেকর্ড, ডজন ১৭০ টাকা

রায়হান হোসেন, ঢাকা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:৪১, ২১ জুন ২০২৪   আপডেট: ১৬:৪৫, ২১ জুন ২০২৪
ডিমের দামে রেকর্ড, ডজন ১৭০ টাকা

প্রতি ডজন ফার্মের মুরগির ডিম বিক্রি হচ্ছে ১৬৫ থেকে ১৭০ টাকায়

স্বল্প আয়ের মানুষের পুষ্টির বড় অংশ পূরণ করে ফার্মের মুরগির ডিম। সেটির দামও লাফিয়ে বেড়ে এখন রেকর্ড গড়েছে। প্রতি ডজন ফার্মের মুরগির ডিম বিক্রি হচ্ছে ১৬৫ থেকে ১৭০ টাকায়। আর খুচরা বাজারে ডিমের হালি বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকা।

শুক্রবার (২১ জুন) শুক্রবার সকালে রাজধানীর ধানমন্ডিসহ বিভিন্ন কাঁচাবাজার ঘুরে বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, প্রতি হালি ডিমের দাম ৫ টাকা বেড়ে ৫৫ থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বড়বাজার থেকে কিনলে ডিমের ডজন ১৬০ থেকে ১৬৫ টাকা, আর খুচরা দোকানে ১৭০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে রাজধানীর কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা যায়, বেগুন প্রতি কেজি ৭০ টাকা, করলা ৮০ টাকা, পেঁপে ৫০ টাকা, কচুর লতি ৬০ টাকা, গাজর ৮০ টাকা, কাঁচা মরিচ ২৮০টাকা, লাউ ও বাঁধাকপি এবং ফুলকপি ৫০ টাকা, টমেটো ১২০ টাকা, চিচিঙ্গা ৫০, শশা ২৪০, বরবটি ৮০, ঢেড়শ ৪০, পটল ৪০, কুমড়া ৩০ টাকা, কাঁকরোল ৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

অন্যদিকে, মুদিবাজারে গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে দেশি পেঁয়াজের দামও কেজিতে ১০ টাকা বেড়ে এখন ৯০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আলু বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকায়। রসুন ২২০ ও আদা ৩৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে, ব্রয়লার মুরগির দাম কিছুটা কমেছে। প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৯০ টাকায়। যা গত সপ্তাহে ছিল ২২০ টাকা। সোনালি মুরগির কেজি ৩০০ থেকে সাড়ে ৩২০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। গরুর মাংসের কেজি ৮০০ টাকা ও খাসির মাংসের কেজি ১১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

গত সপ্তাহের তুলনায় এ সপ্তাহে মাছের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। চাষের পাঙাস কেজি ২০০ থেকে ২২০ টাকা, তেলাপিয়া ২২০, চাষের শিং ৪০০ থেকে ৪৫০ টাকায়, রুই বড় সাইজের ৪০০ থেকে ৪৫০ টাকা, মাঝারি সাইজের ৩৫০, ছোট সাইজের ২০০ টাকা, কই ৩০০ টাকা, পাবদা মানভেদে ৪৫০ থেকে ৪০০ টাকা, চিংড়ি ৮০০ থেকে ৯০০ টাকা, কাতলা মাছ ৩৫০ থেকে ৪০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

রাজধানীর ডিম ব্যবসায়ী আব্দুর রহমান রাইজিংবিডিকে বলেন, উৎপাদন খরচ নির্ধারণ না হওয়ায় ডিমের বাজার পরিস্থিতি সম্পর্কে কোনো ধারণা করা যাচ্ছে না। খামারিরা বলছেন, মুরগির খাদ্য ও আনুষঙ্গিক ব্যয় বৃদ্ধি পেয়েছে। ডিমের দাম বাড়ার ক্ষেত্রে আমাদের কোনো হাত নেই। 

কেনাকাটা করতে আসা গৃহিণী শামসুন্নাহার বেগম রাইজিংবিডিকে বলেন, বাজারের সবকিছুর দাম এখন বেশি। ডিমের হালি যদি ৬০ টাকা হয় তাহলে আমরা কি খাব। সবজির দামও বেশি রাখছে বিক্রেতারা। আমরা সাধারণ ক্রেতারা অসহায়।

/এসবি/

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়