RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ২৮ নভেম্বর ২০২০ ||  অগ্রাহায়ণ ১৪ ১৪২৭ ||  ১১ রবিউস সানি ১৪৪২

নতুন বছরে বই উৎসব হচ্ছে না: শিক্ষামন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৪:৫০, ২৯ অক্টোবর ২০২০  
নতুন বছরে বই উৎসব হচ্ছে না: শিক্ষামন্ত্রী

ফাইল ফটো

দীর্ঘদিন ধরে প্রতি বছর পয়লা জানুয়ারিতে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বছরের বই তুলে দেওয়া হয়। এজন্য দুই মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয়ভাবে আলাদা পাঠ্যবই উৎসব পালন করা হলেও এবার তা না করার কথা জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) সাংবাদিকের সঙ্গে ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী এ কথা জানিয়েছেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহাবুব হোসেন, কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা শিক্ষা অধিদপ্তরের 
মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ গোলাম ফারুক, বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যান।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমাদের প্রধান কাজ হচ্ছে নতুন বছরে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন পাঠ্যবই তুলে দেওয়া, সেটি মাথায় রেখে ৩৬ কোটি নতুন বই প্রস্তুত কর হচ্ছে। প্রতি বছরের মতো এবার করোনা পরিস্থিতির কারণে কেন্দ্রীয়ভাবে পাঠ্যপুস্তক উৎসব করা সম্ভব না হলেও কিভাবে নতুন বই শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেওয়া যায় সেই কাজটি করা হবে।

তিনি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকলেও যাতে পড়ালেখা কেউ দূরে সরে না যায় এজন্য নির্ধারিত সময়ে নতুন ক্লাসের বই তুলে দেওয়া হবে। নতুন বই হাতে পেলে শিক্ষার্থীরা আবারো পড়ালেখায় মনোযোগী হয়ে উঠবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুললে কেউ আর বাসায় বসে থাকতে চাবে না।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, নতুন করে আরও ১৪ দিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ালেও এ সময়ের পর সীমিত আকারে খোলার চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে। ক্লাসে শিক্ষার্থীদের আলাদাভাবে বা ভাগ ভাগ করে সশরীরে ক্লাস নেওয়া হতে পারে। তবে সবকিছু স্বাস্থ্যবিধির বিষয়টিকে গুরুত্ব দেওয়া হবে। করোনা পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানান।

অযৌক্তিক ফি বাতিল হচ্ছে
শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে টিউশন ফির সঙ্গে কি কি বাবদ অর্থ আদায় করা যাবে-তা উল্লেখ করে দেওয়া হবে। করোনা পরিস্থিতির মধ্যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় যেসব কার্যক্রম আয়োজন করা হয়নি টিউশন ফিতে তা বাদ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন দীপু মনি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, টিউশন ফি নিয়ে অনেক অভিভাবক ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার পরও অনেক প্রতিষ্ঠান তাদের ইচ্ছামতো নানা ধরনের ফি আদায় করছে। এ কারণে এ সংক্রান্ত একটি দিক নির্দেশনা জারি করা হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকাকালীন ক্রীড়া, মিলাদ মহাফিল, ল্যাব ফি, নানা ধরনের বিল বাতিল করে বাকি টাকা আদায় করতে বলা হবে। দ্রুত এ সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করা হবে।
 

ইয়ামিন/সাইফ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়