ঢাকা     রোববার   ১৪ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ১ ১৪৩১

তৃতীয় ইন্টার স্কুল স্টেম ফেস্ট অনুষ্ঠিত

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:৩৩, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪  
তৃতীয় ইন্টার স্কুল স্টেম ফেস্ট অনুষ্ঠিত

নানা আয়োজনে তৃতীয়বারের মতো অনুষ্ঠিত হলো দুই দিনব্যাপী ইন্টার স্কুল স্টেম ফেস্ট। রাজধানীর উত্তরায় ইন্টারন্যাশনাল হোপ স্কুল বাংলাদেশ আয়োজিত এ আয়োজন ১৬ ফেব্রুয়ারি (শুক্রবার) সকাল ১০টায় শুরু হয়। শেষ হয় ১৭ ফেব্রুয়ারি (শনিবার)।

রাজধানীর ৫০টি নামি স্কুল এই বিজ্ঞান উৎসবে অংশ নেয়। দেশসেরা স্কুলগুলোর ষষ্ঠ থেকে দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে বিজ্ঞানবিষয়ক অভিনব আয়োজন স্টেম ফেস্ট। এবার প্রায় ১ হাজার ৫০০ জন শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে প্রদর্শিত হয় ১১৫টি বিজ্ঞান প্রজেক্ট। বায়োকেমেস্ট্রি, রোবোটিক্স, পদার্থ, রসায়নসহ বিজ্ঞানসংশ্লিষ্ট বিষয়াদি নিয়ে এই উৎসবে আধুনিক প্রযুক্তিসমৃদ্ধ প্রজেক্ট শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞানমনস্কতা ও বিজ্ঞানভাবনার পরিচয় দিয়েছে বলে জানায় আয়োজকরা।

উৎসবের দ্বিতীয় ও সমাপনী দিনে আজ শনিবার স্কুলের মাঠে সকাল ১০টা থেকেই চালু হয় বিভিন্ন স্টল। এছাড়াও ছিল ‘হোপিয়ান বায়োকেমেস্ট্রি অলিম্পিয়াড’। এতে অংশ নিয়েছে প্রায় ৬০০ শিক্ষার্থী। এ বছর তিনটি ক্যাটাগরিতে এ প্রতিযোগিতা হয়েছে। শুধু ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের নিয়ে একটি ক্যাটাগরি, সপ্তম থেকে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের নিয়ে একটি ক্যাটাগরি এবং দশম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের নিয়ে আরেকটি ক্যাটাগরি।

স্কুল মাঠের প্রতিটি স্টলে ছিল নানা প্রজেক্ট। বোর্ডে প্রজেক্ট সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য লেখা ছিল। শিক্ষার্থীরা দর্শনার্থীদের কাছে প্রজেক্টগুলোর ব্যবহার ও সম্ভাবনা সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরেছেন। এবারের উল্লেখযোগ্য প্রজেক্টগুলোর মধ্যে রয়েছে—মেট্রোরেল, বঙ্গবন্ধু টানেল, সিকিউরিটি ড্রোন, রোবোটিক আর্ম, রিমোট কন্ট্রোল গাড়ি, সেলফ ব্যালেন্সিং রিমোট, স্মার্ট রোবটস, পেপার রিসাইকেল মেশিনসহ বিভিন্ন অত্যাধুনিক প্রজেক্ট। বিজ্ঞানী এরিস্টটল এবং নিউটনের সাজে ঘুরে বেড়িয়েছেন দুজন শিক্ষার্থী। দুই দিনই ছিল ‘নাসা রোভার ডিসপ্লে’ শীর্ষক বিশেষ একটি প্রদর্শনী।

ইন্টার স্কুল স্টেম ফেস্টে অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের জন্য ছিল আকর্ষণীয় উপহার। প্রত্যেকেই পেয়েছেন একটি নোটবুক, চাবির রিং, কলম, ক্যাপ এবং খাবার। বিজয়ীরা পুরস্কার হিসেবে পেয়েছেন অ্যাওয়ার্ড এবং সার্টিফিকেট।  

শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টায় স্কুল প্রাঙ্গণে ছিল উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা-১৮ আসনের সংসদ সদস্য মো. খসরু চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োকেমেস্ট্রি ও মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের অধ্যাপক আবদুল খালেক এবং মালয়েশিয়ার ইউসিএসআই বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলাদেশ ব্র্যাঞ্চের প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক দাতোয়ার মোহাম্মদ সালেহ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইন্টারন্যাশনাল হোপ স্কুল বাংলাদেশের প্রিন্সিপাল রোকসানা জেরিন।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ঢাকা-১৮ আসনের সংসদ সদস্য মোঃ খসরু চৌধুরী এ উৎসবের ভূয়সী প্রশংসা করেন। এ ধরনের আয়োজন বিজ্ঞানচর্চায় বাংলাদেশকে আরো এগিয়ে নিয়ে যাবে বলে তিনি মন্তব্য করেন। এই বিজ্ঞানমুখী শিক্ষার্থীদের মাধ্যমেই বিশ্বের বুকে বাংলাদেশ গৌরবের অবস্থানে অর্জন করতে পারবে বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেন।

স্বাগত বক্তব্যে ইন্টারন্যাশনাল হোপ স্কুল বাংলাদেশের  প্রিন্সিপাল রোকসানা জেরিন বলেন, দিন দিন স্টেম ফেস্টের পরিসর বাড়ছে। শুধু আমাদের স্কুল নয়, এ বছর আমাদের প্রতিযোগিতায় যুক্ত হয়েছে বড় বড় ৫০টি স্কুল। এ বছর তৃতীয়বারের মতো আমাদের ইন্টার স্কুল স্টেম ফেস্টিভ্যাল হচ্ছে। প্রথম থেকেই শিক্ষার্থীরা এই বিজ্ঞান উৎসবের ব্যাপারে অত্যন্ত আগ্রহী ছিল। এ ধরনের প্রতিযোগিতার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা বিজ্ঞান এবং আধুনিক প্রযুক্তিতে দক্ষতা প্রমাণ করছে। গত কয়েক বছরে স্টেম ফেস্টে অংশগ্রহণকারীদের অনেকে দুবাইয়ে আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছে। এটি আমাদের অনেক বড় পাওয়া। এবারও এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীরা আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অনেক সুনাম অর্জন করবে। 

অলিম্পিয়াডের প্রথম দিন ১৬ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার স্টেম ফেস্টের আয়োজনে ছিল ‘হোপিয়ান ম্যাথ অলিম্পিয়াড’। এতে বিভিন্ন স্কুলের প্রায় ৯০০ শিক্ষার্থী অংশ নেন। তাদের মধ্যে পুরস্কৃত হয়েছেন ১৫ জন শিক্ষার্থী।

প্রসঙ্গত, স্টেম ফেস্ট এরই মধ্যে বাংলাদেশে স্কুল পর্যায়ে বিজ্ঞানবিষয়ক একটি উল্লেখযোগ্য উৎসবে পরিণত হয়েছে। এই উৎসবে অংশগ্রহণ করে শিক্ষার্থীরা বিজ্ঞান বিষয়ে পৃথিবীর অগ্রসর দেশগুলোর সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারছেন। প্রথম স্টেম ফেস্টে অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের একটি দল গত বছর দুবাইয়ে অনুষ্ঠিত ‘দুবাই গ্লোবাল চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে বাংলাদেশের সুনাম বৃদ্ধি করেছে।

ইন্টারন্যাশনাল হোপ স্কুল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৯৬ সালে। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে এই স্কুলটি পড়াশোনা, সাংস্কৃতিক ও বুদ্ধিভিত্তিক চর্চার পাশাপাশি বিজ্ঞানচর্চায় নিরলসভাবে কাজ করছে। 

হাসান/রফিক

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়