Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৯ অক্টোবর ২০২১ ||  কার্তিক ৩ ১৪২৮ ||  ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

অমিতাভের টাকা ফেরত: হ‌ুমায়ূন আহমেদকে অবমাননা 

রাহাত সাইফুল || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:০৫, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১   আপডেট: ১৮:২৫, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১
অমিতাভের টাকা ফেরত: হ‌ুমায়ূন আহমেদকে অবমাননা 

নন্দিত কথাসাহিত্যিক হ‌ুমায়ূন আহমেদের উপন্যাস ‘পেন্সিলে আঁকা পরী’ অবলম্বনে সিনেমা নির্মাণ করতে চেয়েছিলেন অমিতাভ রেজা চৌধুরী। চলতি অর্থবছরে এ জন্য সরকারি অনুদান পান তিনি। কিন্তু হঠাৎ করেই এই নির্মাতা ঘোষণা দিয়েছেন- সিনেমাটি আর তিনি বানাবেন না। এমনকি অনুদানের টাকা ফিরিয়ে দেবেন।

এমন ঘোষণায় চলচ্চিত্র পাড়ায় বিবিধ প্রশ্ন ওঠে- কি এমন কারণ যে কারণে অনুদানের টাকা ফেরত দিচ্ছেন নির্মাতা? অনেকে বিষয়টি নিয়ে হতাশা প্রকাশ করেছেন। তবে নির্মাতা অমিতাভ রেজা জানান, ‘পেন্সিলে আঁকা পরী’ নির্মাণের জন্য দুই দফায় তিনি কথাসাহিত্যিক হ‌ুমায়ূন আহমেদের কাছ থেকে অনুমতি নিয়েছেন। তার পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গেও একাধিকবার এই সিনেমা নির্মাণের বিষয়ে পজিটিভ আলোচনা হয়েছে। তারপরই তিনি অনুদানের জন্য চিত্রনাট্য জমা দেন তবে হ‌ুমায়ূন আহমেদের পরিবারের কাছে চূড়ান্ত অনুমোদন নিতে গেলে তারা নির্মাতাকে বেশ কিছু নতুন শর্ত দেন। এর ফলে তিনি মনে করছেন, সিনেমাটি শর্ত মেনে নির্মাণ করতে গেলে গল্পটির প্রতি অবিচার করা হবে।

প্রশ্ন ওঠে হ‌ুমায়ূন পরিবারের শর্ত নিয়ে। এ প্রসঙ্গে ‘মনপুরা’খ্যাত এই নির্মাতা রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘হ‌ুমায়ূন আহমেদ স্যার জীবিত থাকা অবস্থায় এই সিনেমা নির্মাণের অনুমতি দিয়েছিলেন। কিন্তু এখন তার মৃত্যুর পর পরিবার শর্ত দিচ্ছে- এটা আসলে অনাকাঙ্ক্ষিত বিষয়। যদি হ‌ুমায়ূন আহমেদ সাহেব অনুমতি দিয়ে থাকেন এবং সেই অনুযায়ী যদি লিখিত কাজগপত্র থেকে থাকে, তাহলে তার পরিবারে উচিত ছিল সিনেমাটা করতে দেয়া। নতুন করে শর্ত দিয়ে আগের সিদ্ধান্ত বাতিল করা হলে হ‌ুমায়ূন আহমেদ সাহেবকে অবমাননা করা হবে।’

উল্লেখ্য ‘পেন্সিলে আঁকা পরী’ নির্মাণের জন্য প্রথম অনুমতি নিয়েছিলেন নন্দিত নির্মাতা আবু সাইয়ীদ। তিনি চিত্রনাট্যও তৈরি করেছিলেন। পরে অমিতাভ রেজা সিনেমাটি বানাতে চাইলে আবু সাইয়ীদ তাকে অনুমতি দেন। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে আবু সাইয়ীদ বলেন, ‘আমি অমিতাভকে বলেছিলাম ছবিটা করতে। আমার কোনো আপত্তি ছিল না। কিন্তু আমি চুক্তিনামা স্থানান্তর করতে পারি কিনা আমার জানা ছিল না, ফলে আমি তাকে বলেছিলাম, হ‌ুমায়ূন আহমেদ সাহেবের সঙ্গে কথা বলে নিতে।’  

আবু সাইয়ীদ আরো বলেন, ‘হ‌ুমায়ূন আহমেদের পরিবারের উচিত এ ছবির জন্য অর্থনৈতিক বিষয়টাকে মুখ্য হিসেবে না দেখা। এখন ২৫ হাজার টাকার ব্যাপারটি ২৫ হাজারেই থাকবে নাকি কিছুটা বাড়বে এটা দেখা যাবে। কিন্তু কয়েক লক্ষ টাকা এবং ছবির কিছু কিছু ব্যাপারে শেয়ার চাওয়া— এটা মনে হয় বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে ঠিক হবে না।’

এমন ঘটলে ছবিটা আর হবে না। কেউ হয়তো করতে পারবে না বা অন্য উপন্যাস নিয়ে মানুষ খুব বেশি উৎসাহ দেখাবে না বলেও মনে করেন এই নির্মাতা। 

এদিকে হ‌ুমায়ূন আহমেদের স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন গণমাধ্যমে জানান তাদের পক্ষ থেকে কোনো শর্ত জুড়ে দেয়া হয়নি। কপিরাইট ভ্যালু চাওয়া হয়েছে। শাওন বলেন, ‘অনেক জায়গায় দেখছি এটাকে শর্ত জুড়ে দেয়া হয়েছে বলা হচ্ছে। এটা কিন্তু কোনো শর্ত জুড়ে দেয়া হয়নি, এটা কপিরাইট ভ্যালু চাওয়া হয়েছে। এটা সবার কাছেই চাওয়া হয় এবং হবে। এই ভ্যালুটা তার (অমিতাভ রেজা) মনমতো হয়নি।’

ঢাকা/তারা

সর্বশেষ