ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ মাঘ ১৪২৬, ২১ জানুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

ঘোটালাকাণ্ডে সাবেক মন্ত্রীর জামিন খারিজ

আগরতলা থেকে অভিজিৎ ঘোষ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১২-১৫ ১০:৩৬:২১ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১২-১৫ ১০:৪৩:২০ পিএম
ফাইল ফটো

৬৩৮ কোটি টাকার ঘোটালাকাণ্ডে ত্রিপুরার প্রাক্তন মন্ত্রী বাদল চৌধুরীর জামিনের আবেদন আবারো খারিজ হয়ে গেছে। শুক্রবার বাদল চৌধুরীর জামিনের আবেদন সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে ত্রিপুরা উচ্চ আদালতে শুনানী হয়। আদালত এই আবেদন খারিজ করে দেন।

বিচারপতি অরিন্দম লোধের এজলাসে মামলার শুনানী হয়। এর আগে নিম্ন ও উচ্চ আদালত বাদল চৌধুরীর জামিনের আবেদন পৃথকভাবে খারিজ করেছিল।

সরকারি আইনজীবী রতন দত্ত বলেন, ‘গত ৯ ডিসেম্বর প্রাক্তন পূর্ত মন্ত্রী বাদল চৌধুরীর আইনজীবীরা আদালতে ফের জামিনের আবেদন করেন। এই আবেদনের উপর শুক্রবার আদালতে শুনানী হয়। শুনানীকালে বাদল চৌধুরী আইনজীবীরা আগে যে গ্রাউন্ড থেকে জামিনের আবেদন জানিয়েছিলেন, এদিনও একই গ্রাউন্ড থেকে জামিনের আবেদন জানান। নতুন কোনো কারণ দেখতে পারেননি তারা।এই জন্যই আদালত বাদল চৌধুরীর জামিনের আবেদন খারিজ করে দেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘শুনানির সময় বাদল চৌধুরীর আইনজীবীরা জানিয়েছিলেন, তিনি অসুস্থ। প্রাক্তন মন্ত্রীকে চিকিৎসার জন্য অন‌্য রাজ্যে নিয়ে যাওয়া দরকার। যদি মেডিক্যাল টিম বাদল চৌধুরীর শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করে তাকে ভিন রাজ্যে নিয়ে যাওয়ার কথা জানায়, তাহলে আদলত সেই বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে দেখবে।’

এদিকে উচ্চ আদালত বাদল চৌধুরীর জামিনের আবেদন খারিজ করে দিয়েছে একথা স্বীকার করেছেন প্রাক্তন মন্ত্রীর আইনজীবী রঘুনাথ মুখার্জি।

গত ১৪ অক্টোবর বাদল চৌধুরীর উন্নত চিকিৎসার জন্য এইমস-এ যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ১৩ অক্টোবর বাদল চৌধুরীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছিল। এরপর তিনি আর যাননি এইমসে। বিষয়টি আদালতে শুনানির সময় উত্থাপন করেছিলেন বাদল চৌধুরীর আইনজীবী রঘুনাথ মুখার্জি।

তিনি বলেন, ‘আদালত জানিয়ে দিয়েছে বাদল চৌধুরীর চিকিৎসার দায়িত্বে থাকা কর্তৃপক্ষ যদি গ্রিন সিগন‌্যাল দেয় তাহলে তিনি এইমসে চিকিৎসা করাতে পারবেন। এ সংক্রান্ত নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি অরিন্দম লোধ।’

আগামী ৭ জানুয়ারি বাদল চৌধুরীর মামলা সংক্রান্ত বিষয়ে ফের শুনানি হবে। এদিনই শুনানী হবে প্রাক্তন প্রধান বাস্তুকার সুনীল ভৌমিকের জামিনের বিষয়টি। এই মামলার অপর অভিযুক্ত প্রাক্তন মুখ্য সচিব ওয়াই পি সিং এখনো পুলিশের ধরা ছোঁয়ার বাইরে। ক্রাইম বিভাগ এখনো তাকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।


ত্রিপুরা (ভারত)/অভিজিৎ ঘোষ/সনি