ঢাকা     সোমবার   ১১ ডিসেম্বর ২০২৩ ||  অগ্রহায়ণ ২৬ ১৪৩০

সুস্থ থাকতে সেহরিতে করণীয় ও বর্জনীয়

লাইফস্টাইল ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:০১, ২১ মার্চ ২০২৩   আপডেট: ২২:১৬, ২২ মার্চ ২০২৩
সুস্থ থাকতে সেহরিতে করণীয় ও বর্জনীয়

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে বৃহস্পতিবার (২৩ মার্চ) কিংবা শুক্রবার (২৪ মার্চ) থেকে শুরু হতে যাচ্ছে পবিত্র রমজান মাস। সিয়াম-সাধনার এই মাসে ইবাদত-বন্দেগীর ফজিলত তুলনামূলক বেশি। কিন্তু আপনি চাইলেই কাঙ্ক্ষিত ইবাদত করতে পারবেন না, যদি শারীরিকভাবে সুস্থ না থাকেন।

এমনকি রমজানের শুরু থেকে জীবনযাপনে সচেতন না হলে ভালো স্বাস্থ্যও খারাপের দিকে যেতে পারে। জীবনযাপনের গুরুত্বপূর্ণ অংশ হলো, আমরা যা খাই। সেহরিতে যেমন তেমন খাবার খেলে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার ঝুঁকি আছে, যা দৈনন্দিন কাজের পাশাপাশি ইবাদতেও নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। সুতরাং সেহরিতে করণীয় ও বর্জনীয় বিষয়ে সচেতন থাকুন।

* সেহরিতে সামর্থ্য অনুযায়ী আঁশ জাতীয় খাবার গ্রহণ করা প্রয়োজন (লাল চাল, লাল আটা, শাকসবজি, বিচি জাতীয় শস্য-সিমের বিচি, মটরশুটি ইত্যাদি)। আশ জাতীয় খাবার ধীরে হজম হয়, ফলে ক্ষুধা অনুভব কম হয় এবং পর্যাপ্ত শক্তি পাওয়া যায়।

* সেহরিতে বেশি খাওয়ার মানসিকতা পরিহার করতে হবে। ভাতের পরিমাণ কমিয়ে শাকসবজি এবং মাছ-মাংস ও অন্যান্য তরকারি খাওয়া উচিত হবে।  

* প্রতিদিনের আমিষের চাহিদা পূরণে ও দেহের ক্ষয়পূরণে ছোট-বড় মাছ, মাংস, ডিম, ডাল, দুধ ও দুধ জাতীয় খাবার খাওয়া প্রয়োজন। 

* রোজায় পানিশূন্যতা রোধে সহজে হজম হয় এমন শাকসবজি লাউ, রিঙে, পটল, চিচিঙ্গা, চামকুমড়া প্রভৃতিকে অগ্রাধিকার দিতে পারেন। 

* সেহরিতে চা এবং কফি পান না করাই ভালো। এগুলোতে থাকা ক্যাফেইন তৃষ্ণার সৃষ্টি করে, অ্যাসিডিটি উৎপন্ন করে এবং খাদ্যের পুষ্টি পরিশোষণে বাধা দেয়।

* সেহরিতে অতিরিক্ত তেল, মসলা ও চর্বি জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলুন। 

* তেহারি, খিচুরি, বিরিয়ানি প্রভৃতি সেহরিতে না খাওয়াই ভালো। এসব খাবার হজম করতে দেহে প্রচুর পানি পরিশোষিত হয়, যা তৃষ্ণা বাড়িয়ে দেয়।

* সেহরিতে অতি লবণাক্ত খাবার পরিহার করতে হবে। বিশেষজ্ঞদের মতে, উচ্চ মাত্রায় লবণ খেলে পিপাসা বেড়ে যায়।

* দেহের পানির চাহিদা পূরণে ইফতার এবং সেহরির মাঝের সময়ে ২.৫ - ৩ লিটার বা ৬ থেকে ১৮ গ্লাস নিরাপদ পানি পান করতে হবে। রোজায় পর্যাপ্ত পানি পান করলে মাথাব্যথা, বদহজম, কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময়েও সহায়ক হবে।

তথ্যসূত্র: বারটান

/ফিরোজ/

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়