ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ২৩ মে ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ৯ ১৪৩১

বিড়ালকে জড়িয়ে ধরার দিন আজ

জাহিদ সাদেক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:১৪, ৪ জুন ২০২৩   আপডেট: ১৭:৫০, ৯ জুন ২০২৩
বিড়ালকে জড়িয়ে ধরার দিন আজ

৪ জুন বিশ্বব্যাপী পালিত হয় বিড়ালকে জড়িয়ে ধরার দিন হিসেবে। বিড়ালের প্রতি ভালোবাসা থেকেই এই দিবসের উৎপত্তি। বিড়াল ভালোবাসেন না, এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া কঠিন। বিড়াল পুষতে অনেকেই পছন্দ করেন। বিড়াল মানুষের জীবনে যে ভালোবাসা, স্বাচ্ছন্দ্য এবং আনন্দ নিয়ে আসে তার প্রতি কৃতজ্ঞতা দেখানোর এটি একটি দিন। তাই পরম মমতায় আজ আপনার পোষা বিড়ালকে আলিঙ্গন করুন, স্নেহ, সম্মানের সঙ্গে  আপনার পোষা বিড়ালকে আদর দিন।

ইতিহাস থেকে জানা যায়, বিড়ালকে প্রাচীন মিশরীয়রা শ্রদ্ধা করত ও মিশরীয় দেবী বাস্টেটকে প্রায়শই একটি বিড়াল হিসেবে চিত্রিত করা হতো। গ্রীক ঐতিহাসিক হেরোডোটাসের মতে, প্রাচীনকালে বিড়ালকে হত্যা করা নিষিদ্ধ ছিল। যখনই কোনো পোষ্য বিড়াল প্রাকৃতিক কারণে মারা যেত, পুরো পরিবারের সদস্যরা তাদের ভ্রু কামিয়ে শোক প্রকাশ করতো।

অন্যদিকে গ্রীকরা বিড়াল মারা যাওয়ার পর মৃত বিড়ালকে পবিত্র শহর বুবাস্টিসে নিয়ে গিয়ে দাফন করতো। গ্রীক ও রোমানরাই প্রথম বিড়ালদের পোষা প্রাণী হিসেবে পালন শুরু করে। গ্রীক গৃহপালিত বিড়ালের প্রাচীনতম সুস্পষ্ট প্রমাণ পাওয়া যায় ম্যাগনা গ্রেসিয়ার দুটি মুদ্রায়, যা খ্রিষ্টপূর্ব পঞ্চম শতাব্দীর মাঝামাঝি থেকে। অতীতে বিড়ালের গ্রীক শব্দটি ছিল ‘আইলোরোস’। যার অর্থ লেজ নাড়ানো। তবে প্রাচীন গ্রীক সাহিত্যে বিড়ালের কথা খুব কমই পাওয়া যায়। ৫০০ খ্রিষ্টপূর্বাব্দে বিড়াল হয়ে ওঠে ধনীদের পোষা প্রাণী। চীনের সম্রাট বিড়াল পোষার পর থেকেই ধনীদের মধ্যে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে বিড়াল পোষা। মহাকাশে পাঠানো প্রথম বিড়ালের নাম ফেলিসেটই।

বিড়ালকে আলিঙ্গন দিবস উদযাপন করার ব্যাপারে আপনি কতটা যত্নশীল তা দেখানোর একটি দারুণ উপায় আছে। যেমন—

আলিঙ্গন সেশন: আপনার বিড়ালের সঙ্গে আলিঙ্গন করার জন্য নির্দিষ্ট সময় আলাদা করুন। কম্বল এবং বালিশ দিয়ে একটি আরামদায়ক জায়গা তৈরি করুন। যেখানে বিড়ালের সঙ্গে আপনি আরাম করতে পারেন এবং কিছু শান্তিপূর্ণ সময় উপভোগ করতে পারেন। আলতো করে তাদের পশমে হাত বুলিয়ে দিন। তার গলা ধরে ভালোবাসার শব্দগুলো ফিসফিস করে বলুন। আপনার আলিঙ্গনের উষ্ণতা আপনার ভালোবাসা এবং স্নেহ প্রকাশ করুন।

খেলার সময় আচরণ: আপনার বিড়ালকে তাদের প্রিয় খেলার কার্যকলাপে নিযুক্ত করুন। ইন্টারেক্টিভ খেলনা, পালক বা লেজার পয়েন্টার ব্যবহার করে তাদের কৌতূহল উদ্দীপিত করুন এবং তাদের বিনোদন দিন। একসঙ্গে খেলা শুধু আপনার বন্ধনকে শক্তিশালী করে না বরং তার পশমে হাত বুলানো সঙ্গীর জন্য মানসিক এবং শারীরিক উদ্দীপনাও প্রদান করে।

বিড়ালকে প্যাম্পার করুন: আপনার বিড়ালকে একটি স্পা দিয়ে চিকিৎসা করুন! আলতো করে তাদের পশম সাজান, তাদের কোট ব্রাশ করুন এবং তাদের একটি বডি ম্যাসেজ দিন। অস্বস্তি বা কোন স্বাস্থ্য সমস্যার লক্ষণ আছে কিনা তা-ও পরীক্ষা করুন।

খেলনা বা ট্রিট দিয়ে বিড়ালকে চমকে দিন: নতুন খেলনা বা বিশেষ ট্রিট দিয়ে আপনার বিড়ালের মন জয় করুন। তাকে অবাক করে দিয়ে গিফট দিন। বিড়াল নতুন খেলার জিনিস অন্বেষণ করতে এবং সুস্বাদু খাবারের স্বাদ নিতে পছন্দ করে।

বাড়িতে বিড়ালের আরামের জায়গা করুন: আপনার বাড়ির একটি কোণ বা একটি ঘর বিশেষভাবে আপনার বিড়ালের জন্য উৎসর্গ করুন। একটি নিরাপদ এবং উদ্দীপক পরিবেশ তৈরি করতে একটি আরামদায়ক বিছানা, স্ক্র্যাচিং পোস্ট এবং খেলনা সেট আপ করুন।

বিড়াল সাহচর্যের আনন্দ উপভোগ করুন: জীবনে আনন্দ, সান্ত্বনা এবং সাহচর্য আনার অনন্য একটি উপায় বিড়াল। নিঃশর্ত প্রেম, সাহচর্য এবং তাদের মজার আচরণ মানুষকে শুদ্ধভাবে ভাবতে শেখায়। সার্বিকভাবে আজকে আপনার বিড়ালের সঙ্গে দিনটি ভালো কাটুক।

ঢাকা/শান্ত

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়