RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     সোমবার   ২৬ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ১১ ১৪২৭ ||  ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

‘কার্যকর উন্নয়ন ব্যবস্থাপনার মাধ‌্যমে অগ্নিঝুঁকি কমানো সম্ভব’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:১৬, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০  
‘কার্যকর উন্নয়ন ব্যবস্থাপনার মাধ‌্যমে অগ্নিঝুঁকি কমানো সম্ভব’

বহুতল ভবনে অগ্নিকাণ্ড (ফাইল ফটো)

নগর এলাকার সঠিক পরিকল্পনা, নিরাপদ ভবন নির্মাণ, কার্যকর উন্নয়ন ব্যবস্থাপনা ও সুষ্ঠু নজরদারির মাধ‌্যমে অগ্নিকাণ্ডের ঝুঁকি কমানো সম্ভব বলে অভিমত ব‌্যক্ত করেছেন নগর পরিকল্পনাবিদরা। 

শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্সের (বিআইপি) উদ্যোগে অনলাইন মাধ্যমে অনুষ্ঠিত ‘নগরে অগ্নিঝুঁকি ও নিরাপত্তা’ শীর্ষক পরিকল্পনা সংলাপে এ অভিমত জানান তারা।

পরিকল্পনা সংলাপের শুরুতেই বিআইপি’র সাধারণ সম্পাদক ড. আদিল মুহাম্মদ খান ‘নগরে অগ্নিঝুঁকি ও নিরাপত্তা’ শীর্ষক প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন।

প্রতিবেদনে তিনি সাম্প্রতিক কিছু অগ্নিকাণ্ডের উদাহরণ টেনে এর সঙ্গে পরিকল্পনা, প্রকৌশল ও ব্যবস্থাপনাগত বিভিন্ন সমস্যার যোগসূত্র তুলে ধরেন। এছাড়া, এ সংক্রান্ত বিদ্যমান আইন ও বিধিমালার সুষ্ঠু প্রয়োগের মাধ্যমে সসম্যার আশু সমাধানের জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

তিনি বলেন, ‘আমাদের সেবা সংস্থাগুলোকে জনগণের জীবনকে প্রাধান্য দিতে হবে। দুর্ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়ে সঠিক ব্যবস্থাপনার দিকে নজর দিতে হবে। ইমারত নকশার অনুমোদনের পাশাপাশি পরিকল্পনাগত অনুমোদনের ব্যবস্থা করতে হবে। এছাড়া, দেশের শহর ও গ্রামীণ এলাকায় ভূমি ব্যবহারের অনুমোদনের বিধান রাখতে হবে। তাহলেই আমরা পরিকল্পিত নগর ও গ্রাম তৈরি করতে পারব এবং দেশ বসবাসের উপযোগী হবে।’

বিআইপি’র সহ-সভাপতি নগর পরিকল্পনাবিদ মুহাম্মদ আরিফুল ইসলাম বলেন, ‘রিয়েল এস্টেট প্রতিষ্ঠানগুলো ব্যবসায়িক উদ্দেশ‌্যে ইমারত নির্মাণ করে। গ্রাহককে টেকসই ও নিরাপদ আবাসস্থল দিতেই রিয়েল এস্টেট প্রতিষ্ঠানগুলো সব নিয়ম মেনে ইমারত নির্মাণ করে। একটি ইমারত ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রিয়েল এস্টেট প্রতিষ্ঠানগুলো নয়, বরং সেই ইমারতের বাসিন্দারাই থাকে। তাই তাদেরকেই অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা সুচারু রাখার দিকে নজর রাখতে হবে।’

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ মুহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘প্রতিটি বিল্ডিংয়ের জন‌্য অকুপেন্সি সার্টিফিকেট নিতে হয়, যা পাঁচ বছর পর পর নবায়ন করতে হয়। যদি এ কাজটি রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ সঠিকভাবে করতে পারে তাহলে অগ্নি দুর্ঘটনা কমানো সম্ভব।’

ঢাকার বিশদ এলাকা পরিকল্পনা (ড্যাপ) প্রণয়ন প্রকল্পের পরামর্শক হিশাম উদ্দীন চিশতি বলেন, ‘একটি ইমারত সব ধরনের নিয়ম মেনে তৈরি হচ্ছে কি না, সে বিষয়ে আমাদের দৃষ্টি রাখতে হবে।’

ঢাকা/হাসান/রফিক

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়